Naya Diganta

আরো এগিয়ে গেল মোহামেডান মোহামেডান ৩:১ নোফেল (সোলেমান ২, তকলিচ) ( আশরাফুল)

আগের ম্যাচে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ঢাকা আবাহনীর বিপক্ষে ৪ গোলের জয়। ওই জয়ে আরো উজ্জীবিত মোহামেডান। ফলে কাল তাদের সামনে দাঁড়াতেই পারেনি রেলিগেশন ফাইটে থাকা নোফেল স্পোর্টিং ক্লাব। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে গতকাল টিভিএস বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে মোহামেডান ৩-১ গোলে নোফেলকে হারিয়ে অবনমনের শঙ্কা দূর করার ক্ষেত্রে আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল। আর আশঙ্কায় থেকেই গেল নোফেল। কাল জয়ের ফলে মোহামেডানের পয়েন্ট ২১ খেলায় ২৩। আর নোফেলের সমান খেলায় ১৬। ১৯ পয়েন্ট নিয়ে নোফেলের উপরে রহমতগঞ্জ। ৮ পয়েন্ট নিয়ে তলানিতে বিজেএমসি। প্রিমিয়ারে টিকে থাকতে মোহামেডানকে বাকি তিন খেলা থেকে তিন পয়েন্ট অর্জন করতে হবে।
কাল ৯ মিনিটেই মালির সোলেমানের গোলে লিড মোহামেডানের। তার প্রথম শট ঠেকিয়ে দেন নোফেলের কিপার। ফিরতি বলে বল জালে পাঠান তিনি। ১৩ মিনিটে মোহামেডান ব্যবধান দ্বিগুণ করে তকলিচের গোলে। এমিলির ফ্রি-কিকে তকলিচের হেডে পরাস্ত প্রতিপক্ষ কিপার। অব্যশ একটু পরেই ব্যবধান কমান নোফেলের ফরোয়ার্ড আশরাফুল ইসলাম। ডান দিক থেকে বক্সে ঢুকে আগুয়ান গোলরক্ষকের মাথার উপর দিয়ে বল জালে পাঠান অনূর্ধ্ব-২৩ জাতীয় দলের হয়ে প্রস্তুতি ম্যাচে কাতারের ক্লাবের বিপক্ষে গোল করা আশরাফুল। যদিও তাদেরকে বেশিক্ষণ লড়াইয়ে থাকতে দেননি সোলেমান। ৪২ মিনিটে পেনাল্টি থেকে মোহামেডানকে সুবিধাজনক স্থানে নিয়ে যান সোলেমান। বিপক্ষ ডিফেন্ডার এলিটা জুনিয়র তাকে নিষিদ্ধ এলাকায় ফাউল করেন। তা থেকে সৃষ্ট পেনাল্টিতে গোল করেন সোলেমান।
দুই ম্যাচে এটি সোলেমানের তৃতীয় গোল। সাথে তকলিচেরও। আবাহনীর বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন তকলিচ। সে দিন সোলেমান একটি গোলে করেছেন আর দুই গোলের জোগানদাতা। কাল তিনি করেছেন দুই গোল। তকলিচের গোল সংখ্যা একটি। কাল অন্য ম্যাচে গোল শূন্য ড্র করেছে ব্রাদার্স ও মুক্তিযোদ্ধা।