Naya Diganta

আইসিসি’র পাঁচ চমকের দলে মোসাদ্দেক

ইংল্যান্ড এন্ড ওয়েলসে আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য ইতোমধ্যে নিজেদের স্কোয়াড ঘোষণা করে দিয়েছে টুর্নামেন্টে অংশগ্রহনকারী ১০টি দেশই। দল ঘোষণার বেশ আগ থেকেই নিজেদের স্কোয়াড প্রায় সাজিয়েই রেখেছিলো দেশগুলো। তারপরও শেষ মুহূর্তে এমন দু’একজনকে দলে নিয়ে চমক দিয়েছে ১০টি দেশই। যাদের বিশ্বকাপে সুযোগের সম্ভাবনা ছিলো একেবারেই ক্ষীণ।

যারা চমকের তালিকায় ছিলেন, তাদের মধ্যে সেরা পাঁচজন খেলোয়াড়কে বেছে নিয়েছে ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। নিজেদের ওয়েবসাইটে পাঁচ জনের নাম দিয়েছে আইসিসি। ঐ পাঁচজনের মধ্যে বাংলাদেশের একজন রয়েছেন। তিনি হলেন- মোসাদ্দেক হোসেন। অন্য চারজন হলেন- নিউজিল্যান্ডের টম ব্লানডেল, ভারতের বিজয় শংকর, আফগানিস্তানের হামিদ হাসান ও শ্রীলংকার মিলিন্দা সিরিবর্ধনে।

মোসাদ্দেক হোসেন (বাংলাদেশ) : ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বরে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ওয়ানডে অভিষেক হয় মোসাদ্দেকের। উজ্জল ভবিষ্যতের আভাস দিয়েই ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন তিনি; কিন্তু ফর্মহীনতার দলের মধ্যে যাওয়া-আসার মধ্যেই ছিলেন মোসাদ্দেক। তাই এখন অবধি মাত্র ২৪টি ওয়ানডে খেলেছেন বাংলাদেশের জার্সি গায়ে। ১টি হাফ-সেঞ্চুরিতে রান করেছেন মাত্র ৩৪১ রান। সর্বশেষ এশিয়া কাপে খেললেও, দেশের মাটিতে জিম্বাবুয়ে-ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে এমনকি নিউজিল্যান্ড সফরের দলেও সুযোগ পাননি তিনি; কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে ঘরোয়া আসর ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ব্যাট হাতে উজ্জল ছিলেন মোসাদ্দেক। ১৪ ইনিংসে ১টি সেঞ্চুরি ও ৫টি হাফ-সেঞ্চুরিতে ৪৮৮ রান করেন মোসাদ্দেক। এছাড়া বল হাতেও ব্রেক-থ্রু এনে দেয়ার ক্ষমতা রাখেন তিনি।

টম ব্লানডেল (নিউজিল্যান্ড) : প্রথম দল হিসেবে আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপের জন্য দল ঘোষণা করে নিউজিল্যান্ড। সেখানে চমক ছিলেন উইকেটরক্ষক ব্লানডেল। ২০১৭ সালে টি-২০ দিয়ে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে পা রাখেন তিনি। ঐ বছরের ডিসেম্বরে টেস্ট অভিষেক ঘটে তার; কিন্তু এখন পর্যন্ত ওয়ানডে খেলতে পারেননি ব্লানডেল। ২টি টেস্ট ও ৩টি টি-২০ ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা নিয়ে বড় চমক হিসেবেই বিশ্বকাপে সুযোগ পেলেন এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান। টিম সেইফার্টের ইনজুরি ব্লানডেলকে দলে সুযোগ করে দেয়।

বিজয় শংকর (ভারত) : ২০১৮ সালে টি-২০ দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে পথচলা শুরু বিজয়ের; কিন্তু ঐ বছর মাত্র ১টি ম্যাচ খেলতে পারেন তিনি। চলতি বছরের শুরুতে নিউজিল্যান্ড সফরে ও দেশের মাটিতে বল-ব্যাট হাতে অলরাউন্ডার হিসেবে চমক দেখিয়েছেন বিজয়। প্রয়োজনীয় সময়ে ব্যাট হাতে রান ও ব্রেক-থ্রু এনে দেয়ার পাশাপাশি ডেথ ওভারে নিজের যোগ্যতা দেখিয়েছেন বিজয়। তাই চমক হিসেবে ভারতের বিশ্বকাপ দলে সুযোগ মিলে বিজয়ের।

হামিদ হাসান (আফগানিস্তান) : আফগানিস্তানের বিশ্বকাপ দলে চমক হলো দু’টি। একটি অধিনায়কের পদ। অন্যটি ডান-হাতি পেসার হামিদ হাসানের অন্তর্ভুক্তি। বিশ্বকাপের আগ মুর্হতে নিয়মিত ও সফল অধিনায়ক আসগর আফগানকে সরিয়ে গুলবাদিন নাইবকে দলের দায়িত্ব দেয় আফগানিস্তান।

আর জাতীয় দলের হয়ে সর্বশেষ ২০১৬ সালে ওয়ানডে খেলেন হামিদ; কিন্তু অভিজ্ঞতা ও সম্প্রতি ফর্মে হঠাৎই দলে সুযোগ পেয়ে যান তিনি। গত বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের পক্ষে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারী ছিলেন হামিদ। ৪ দশমিক ৫৫ গড়ে ৩২ ম্যাচে ৫৬ উইকেট শিকার করেছেন ৩১ বছর বয়সী এই পেসার।

মিলিন্দা সিরিবর্ধনে (শ্রীলংকা) : এবারের বিশ্বকাপের দলগুলোর মধ্যে চমকে সেরা পারফরমেন্স দেখিয়েছে শ্রীলংকা। এমন একজনকে অধিনায়ক করা হয়েছে, যে কিনা গেল চার বছর কোন ওয়ানডেই খেলেননি। তিনি হলেন দিমুথ করুনারত্নে। এছাড়া দীর্ঘদিন দলের বাইরে থাকা অনেক খেলোয়াড়ই দলে সুযোগ পেয়েছেন। গত এক বছর ধরে যারা খেলেছেন, তাদের অনেকেই দলে সুযোগ পাননি।

এরমধ্যে দলে সুযোগ পাওয়াতে সিরিবর্ধনকে চমকের তালিকায় রেখেছে আইসিসি। ২০১৭ সালে সর্বশেষ ওয়ানডে খেলেছেন সিরিবর্ধনে। লংকানদের হয়ে ২৬ ম্যাচে ৫১৩ রান করেছেন তিনি। সাম্প্রতীক ফর্ম বিশ্বকাপের মত সেরা মঞ্চে জায়গা করে দিলো সিরিবর্ধনেকে। সূত্র : বাসস