Naya Diganta

অনেক বাঁক বদলের পর ইউরোপের ভিসা পেলো দেশ সেরা প্রোগ্রামিং টিম

অনেক বাঁক বদলের পর ইউরোপের ভিসা পেলো দেশ সেরা প্রোগ্রামিং টিম

ঢাকার ফ্রান্স দূতাবাস থেকে থেকে বাতিল হওয়ার পর অনেক বাঁক বদল করে ইউরোপের ভিসা পেয়েছে দেশ সেরা প্রোগ্রামিং টিম ‘সাস্ট ডেসিফ্রেডর’। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এই টিম পর্তুগালের ইউনিভার্সিটি অব পোর্টোতে অনুষ্ঠিতব্য প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা ‘ইন্টারন্যাশনাল কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং কনটেস্ট’ (আইসিপিসি)-২০১৮ আসরে চূড়ান্ত পর্বে অংশ নেবে।

জানা যায়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় বৃহস্পতিবার তাদের ভিসা দিতে রাজি হয় ঢাকার ফ্রান্স দূতাবাস। ফলে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে শনিবার পর্তুগালের উদ্দেশে রওনা দিচ্ছেন সাস্ট ডেসিফ্রেডরের সদস্যরা।

শুক্রবার বিষয়টি নিশ্চিত করেন টিম সাস্ট ডেসিফ্রেডরের সহকারী কোচ ও শাবির কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী।

তিনি বলেন, অবশেষে ভিসা পেয়েছি। অনেক ভালো লাগছে। আমরা সবাই প্রায় আশা ছেড়েই দিয়েছিলাম৷ শেষ পর্যন্ত বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করার সুযোগ পাচ্ছি। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, আমাদের ভিসিসহ যারা যারা সহযোগিতা করেছেন তাদের সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

আগের ভিসা বাতিল হওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, ফ্রান্স দূতাবাস প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের বিষয়টি এভাবে গুরুত্ব দেয়নি। যে দুটি কারণে তারা ভিসা বাতিল করেছিল, তার মধ্যে একটি ছিল পর্তুগাল ছেড়ে আসার নিশ্চয়তা না দেয়া। ভিসি স্যার এ বিষয়ের নিশ্চয়তা দিয়ে দূতাবাসে একটি গ্রান্ট লেটার দিয়েছেন।

এর আগে গত ৪ মার্চ ফরাসি দূতাবাস তাদের ভিসা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। ফলে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে অনিশ্চয়তায় পড়েন সাস্ট ডেসিফ্রেডরের পাঁচ সদস্য।

টিম সূত্র জানায়, গত ২২ জানুয়ারি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের আমন্ত্রণপত্র পান টিমের ১৩ জন সদস্য। বাংলাদেশে পর্তুগালের দূতাবাস না থাকায় গত ২১ ফেব্রুয়ারি ঢাকায় ফ্রান্সের দূতাবাসে সেনজেন ভিসার আবেদন করেন টিমের পাঁচজন সদস্য। আবেদনপত্রে আমন্ত্রণপত্র, হোটেল বুকিং লেটার, বিমান টিকিট বুকিংয়ের কাগজপত্রসহ প্রয়োজনীয় তথ্য জমা দেন। কিন্তু ৪ মার্চ ফরাসি দূতাবাস তাদের ভিসা আবেদন বাতিল করে।

কারণ হিসেবে দুইটি বিষয় উল্লেখ করা হয়। প্রথমত, জমা দেয়া তথ্য, উদ্দেশ্য এবং শর্তের জন্য সমর্থনযোগ্য তথ্য নির্ভরযোগ্য ছিল না। দ্বিতীয়ত, ভিসার মেয়াদ শেষ হওয়ার আগে দলটির সদস্যরা পর্তুগাল ছেড়ে আসার নিশ্চয়তা না দেয়া।

দলটির আরেক সহকারী কোচ ও সিএসই বিভাগের প্রভাষক মেহেদী হাসান নাহিদ জানান, গত ৪ মার্চ ভিসা বাতিল হওয়ার পর ভিসি ফরিদ উদ্দিন আহমেদ, বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. জহিরুল ইসলাম ও বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের (বিডিওএসএন) সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসানের প্রচেষ্টায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ফ্রান্স দূতাবাসে যোগাযোগ করে। বৃহস্পতিবার পাসপোর্ট নিয়ে ফ্রান্স দূতাবাসে দেখা করার কথা জানায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এরপর ফরাসি দূতাবাস আমাদেরকে ৭ দিনের ভিসা দিয়েছে।

টিম সাস্ট ডেসিফ্রেডরের সদস্যরা হলেন- সিএসই বিভাগের শিক্ষার্থী মওদুদ আহমেদ খাঁন, জুবায়ের আরাফ ও অভিষেক পাল। আর তাদের সহকারী কোচ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক বিশ্বপ্রিয় চক্রবর্তী ও প্রভাষক মেহেদী হাসান নাহিদ।

সাস্ট ডেসিফ্রেডর টিমের সদস্য মওদুদ শাহরিয়ার বলেন, বিশ্ব আসরে অংশ নেয়ার সুযোগ করে দেয়ায় আমরা সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞ। আমরাও সর্বোচ্চ চেষ্টা করব ভালো করার। প্রোগ্রামিংয়ে দেশের নাম উজ্জ্বল করার।

গত বছরের ১০ নভেম্বর অনুষ্ঠিত এ প্রতিযোগিতায় দেশের সবকটি বিশ্ববিদ্যালয়কে পেছনে ফেলে বাংলাদেশে (ঢাকা অঞ্চলে) চ্যাম্পিয়ন হন শাবির সাস্ট ডেসিফ্রেডর। প্রথম রানারআপ হন বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) দল ‘ব্লাড হাউন্ড’।

আগামী ৩১ মার্চ থেকে ৫ এপ্রিল পর্তুগালের ইউনিভার্সিটি অব পোর্টোতে অনুষ্ঠিতব্য আইসিপিসি চূড়ান্ত পর্বে বিশ্বের ১১১টি দেশের ৩১০০ বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বমোট ৫৫ হাজার প্রতিযোগী অংশগ্রহণ করবে।