Naya Diganta

ঘুষের প্রস্তাবে যা বললো রোবট পুলিশ

কেপি বট

কেরালা পুলিশের নতুন সদস্য হিসেবে কাজে যোগ দিয়েছে একটি রোবট। দুটি পা না থাকায় যে চোর ধরতে মানুষের মতো হয়তো দৌড়ে যেতে পারবে না। কিন্তু তার ওপর দেয়া অফিশিয়াল সব দায়িত্বই সামলাতে সক্ষম সে।

এ প্রথম ভারতে রোবট পুলিশ নিয়োগ হয়েছে। তাকে কাজে লাগিয়েছে কেরালার পুলিশ। তার পোশাকি নাম কেপি-বট। কেরালা পুলিশ ডিপার্টমেন্টের টেকনোলজিক্যাল রিসার্চ ও ডেভেলপমেন্ট সেন্টার অর্থাৎ কেরালা পুলিশ সাইবারডোম এ রোবট তৈরি করেছে।

যেমন- কাউকে গাইড করা, অফিসে কে ঢুকছে- বের হচ্ছে, তাদের নাম এন্ট্রি করা, পুলিশ কর্তাদের অ্যাপয়নমেন্ট ঠিক করা। এ সব কাজই একা সামলে নেবে কেপি-বট। এমনকি কেপি-বটের মুখে ফেসিয়াল রেকগনিশন ক্যামেরা লাগানো রয়েছে। যা মুখের ছবি তুলে রাখতে সক্ষম।

কেরালা পুলিশ জানায়, কেপি-বটের প্রযুক্তি আরো উন্নত করা হবে। এর ফলে দুষ্কৃতিদের চিনে নিয়ে তাদের থানায় ঢোকা থেকে আটকাতেও সক্ষম হবে এ রোবট পুলিশটি।

গত মঙ্গলবার কেরালার মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়ন দেশের প্রথম রোবট পুলিশের উদ্বোধন করেন। তখন এক পুলিশ অফিসার মজা করে কেপি-বটকে ঘুষ দেয়ার প্রস্তাব দেন। তিনি বলেন, ‘আমি কি তোমাকে ঘুষ দেব?’ সবাই অপেক্ষা করছিল, রক্তমাংসহীন পুলিশটা এর কী জবাব দেয়? কিন্তু উত্তরটা হয়েছে চটপট ও ধারালো। সৎ একজন পুলিশের মতোই জবাবে সে জানায়, তার ছবি ও কথা রেকর্ড করা রয়েছে। তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ কেপিবট নিজেই নড়াচড়া করতে পারে। এর ভেতরে সমস্ত ডাটা দিয়ে হবে। ফলে সে খুব ভালোভাবেই অপরাধীদের চিনতে পারবে এবং তাদের থামাতে পারবে। অপরাধীদের তদন্ত অথবা স্যাবোটাজ এড়াতে পরিচালিত চেকিংয়ের সময় এটি নিজে থেকেই ছবি তুলতে পারবে।