Naya Diganta

তবুও শোচনীয় পরাজয় ভারতের

তবুও শোচনীয় পরাজয় ভারতের

পঞ্চম টেস্টে ভারতকে ১১৮ রানে হারিয়ে ৪-১ ব্যবধানে সিরিজ জিতল ইংল্যান্ড। যদিও রোমাঞ্চকর মোড় নিয়েছিল নিয়মরক্ষার ওভাল টেস্টের পঞ্চম দিনের অন্তিম সেশনে। বাকি তখনও ৩৩ ওভার। জয়ের জন্য ইংল্যান্ডের দরকার ৫ উইকেট। আর ভারতের প্রয়োজন আরো ১৬৬ রান। লোকেশ রাহুল ১৪২ ও ঋষভ পন্থ ১০১ রানে ক্রিজে ছিলেন। চা পানের বিরতির পর দ্রুত গতিতে রান তোলায় মেতেছিলেন ভারতের দুই ব্যাটসম্যান। সিরিজ পকেটে পুরে ফেললেও পঞ্চম টেস্টে ভারতের প্রত্যাবর্তন দেখে কপালে চিন্তায় ভাঁজ পড়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ডের অধিনায়ক অ্যালিস্টার কুকের। ষষ্ঠ উইকেটে লোকেশ ও ঋষভ ২০৪ রানের পার্টনারশিপ গড়ার পর ভারতের জয়ের সম্ভাবনা ক্রমশ উজ্জ্বল হচ্ছিল। কিন্তু যাবতীয় জল্পনায় পানি ঢেলে আদিল রশিদের দুরন্ত বোলিংয়ের সুবাদে ম্যাচে ফিরে আসে ইংল্যান্ড।

রশিদের বিষাক্ত স্পিনে লোকেশ রাহুল ১৪৯ রানে বোল্ড হন। ২০টি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারি হাঁকিয়েছেন তিনি। ঋষভ পন্থও স্নায়ুর চাপটা শেষ দিকে নিতে পারেননি। আদিল রশিদের গুগলিতে পরাস্ত হয়ে তিনি মঈনের হাতে ১১৪ রানে ধরা পড়েন। তার ইনিংসে রয়েছে ১২টি চার ও ১টি ছক্কা। দুই সেট ব্যাটসম্যান ফিরতেই ভারতের দ্বিতীয় ইনিংস ধীরে ধীরে ৩৪৫ রানে শেষ হয়ে যায়। ইশান্ত (৫) ও জাদেজাকে (১৩) আউট করেন কুরান। ইংলিশ পেসার জেমস অ্যান্ডারসনের বলে সামি (০) বোল্ড হতেই যবনিকা পড়ে ম্যাচে। সেই সঙ্গে অ্যান্ডারসন ১৪৩টি টেস্টে ৫৬৪টি উইকেট নিয়ে টেস্টের ইতিহাসে সেরা পেস শিকারি হয়ে গেলেন। তিনি পিছনে ফেললেন গ্লেন ম্যাকগ্রাকে (৫৬৩)। সেই সঙ্গে এক রোমাঞ্চকর জয়ের মধুর স্মৃতি সঙ্গে নিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে বিদায় নিলেন অ্যালিস্টার কুক। ইংল্যান্ড সিরিজ জিতল ৪-১ ব্যবধানে।

ভারত মঙ্গলবার শুরু করে ৩ উইকেটে ৫৮ রান নিয়ে। লোকেশ ৪৬ ও অজিঙ্কা রাহানে ১০ রানে অপরাজিত ছিলেন। প্রবল চাপ নিয়ে ভালো খেলছিলেন দু’জনে। রাহানে-রাহুল যোগ করেন ১১৮ রান। উইকেটে সেট হয়ে যাওয়ার পরেই রাহানে ৩৭ রানে মঈন আলির বলে আউট হন। অভিষেক টেস্ট খেলতে নামা হনুমা বিহারি খাতা খুলতে পারেনি। পরপর দু’টি উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা হয়ে যায় কোহলি বাহিনী। লাঞ্চে ভারতের স্কোর ছিল ৫ উইকেটে ১৬৭ রান। আর যাই হোক, এমন একটা পরিস্থিতি থেকে ভারত এভাবে ঘুরে দাঁড়াবে সেটা অনেকেই ভাবেননি।

পুরো সিরিজে হতাশাজনক ব্যাটিংয়ের পর লোকেশ রাহুল এদিন অনবদ্য ব্যাটিং করে শতরান পূর্ণ করেন। দাপটের সঙ্গে ব্যাট করে ইংল্যান্ড বোলারদের মাথা তুলতে দেননি লোকেশ। তার সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে লড়াই করেন ঋষভ পন্থ। ১১৮ বলে সেঞ্চুরি পূর্ণ করেন লোকেশ। আর ছক্কা হাঁকিয়ে ১১৭ বলে টেস্ট কেরিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পান ঋষভ। তিনি প্রথম ভারতীয় উইকেটরক্ষক হিসাবে ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট সিরিজে শতরান করলেন।

পঞ্চম দিনের স্কোর : প্রথম ইনিংসে ইংল্যান্ড ৩৩২ ও ভারত ২৯২। দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ড ৪২৩/৮ (ডিঃ)। ভারত (৩ উইকেটে ৫৮ থেকে) লোকেশ বো রশিদ ১৪৯, রাহানে ক জেনিংস বো মঈন ৩৭, হনুমা ক বেয়ারস্টো বো স্টোকস ০, ঋষভ ক মঈন বো রশিদ ১১৪, জাদেজা ক বেয়ারস্টো বো কুরান ১৩, ইশান্ত ক বেয়ারস্টো বো কুরান ৫, সামি বো অ্যান্ডারসন ০, বুমরাহ অপরাজিত ০, মোট ৯৪.৩ ওভারে ১০ উইকেটে ৩৪৫।

উইকেট পতন : ১২০-৪, ১২১-৫, ৩২৫-৬, ৩২৮-৭, ৩৩৬-৮, ৩৪৫-৯, ৩৪৫-১০।
বোলিং : অ্যান্ডারসন ২২.৩-১১-৪৫-৩, ব্রড ১২-১-৪৩-১, মঈন ১৭-২-৬৮-১, কুরান ৯-২-২৩-২, স্টোকস ১৩-১-৬০-১, রশিদ ১৫-২-৬৩-২, রুট ৬-১-১৭-০।