Naya Diganta

বিদায়বেলা কুকের ব্যাটে রান উৎসব

অ্যালিস্টার কুক

ক্যারিয়ারের শেষ টেস্ট খেলতে নেমেছিলেন, বলে সবার দৃষ্টি ছিলো অ্যালিস্টার কুকের ওপর। সিরিজের ফলাফল আগেই নির্ধারন হয়ে গেছে বিধায় এই টেস্ট নিয়ে দর্শকদের আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলেন ইংলিশ ওপেনার কুক। বিদায় বেলটাকে রঙিন করতে কী দারুণ খেলাটাই না খেলেছেন তিনি। সেই সাথে ঢুকে গেছেন রেকর্ড বইয়ের একাধিক পাতায়।

অথচ এই টেস্ট খেলতে নামার আগে তার ব্যাটে ছিলো রান খরা। এই সিরিজে আগের চার টেস্টে রান পেতে কী সংগ্রামটাই না করেছেন। ০, ১৩, ২১, ১৭, ২৯, ১২, ১৭- এই ছিলো ভারতের বিরুদ্ধে চলতি সিরিজে তার রান। গত এক বছর ধরেই রান খরায় ভুগছিলেন এই ওপেনার। যে কারণে বাধ্য হয়েই অবসরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলেন। কিন্তু বিধাতা হয়তো চেয়েছিলেন তার বিদায়টাকে রঙিন করবে।

সোমবার ভারত-ইংল্যান্ড ওভাল টেস্টের চতুর্থ দিন সকালেই সেঞ্চুরির দেখা পান অ্যালিস্টার কুক। এটিই তার জীবনে শেষবারের মতো ব্যাট করতে নামা, তাই শেষটা রাঙাতে চেষ্টার ত্রুটি করেননি কুক। দারুণ এক সেঞ্চুরি করেছেন। সেই সাথে ঢুকে গেছেন অভিষেক ও শেষ টেস্টে সেঞ্চুরি করা সৌভাগ্যবানদের তালিকায়। কুকের আগে মাত্র চারজন ব্যাটসম্যান এই কৃতিত্ব অর্জন করেছেন।

ভারতের বিপক্ষেই ২০০৬ সালের মার্চে নাগপুরে টেস্ট অভিষেক হয়েছিলো তার। অভিষেক টেস্টে প্রথম ইনিংসে ফিফটি, দ্বিতীয় ইনিংসে সেঞ্চুরি। শেষ টেষ্টেও তা-ই! জীবনের প্রথম ও শেষ টেস্টে সেঞ্চুরি করা মাত্র পঞ্চম ব্যাটসম্যান কুক।

একশো বছরেরও বেশি সময় আগে এমন কৃতিত্ব প্রথমবার দেখিয়েছিলেন অস্ট্রেলিয়ার রেজিনাল্ড ডাফ। তিনি শেষ টেস্টটি তিনি খেলেছেন ১৯০৫ সালে। তালিকায় পরের দুটি নামও অস্ট্রেলিয়ানদের- উইলিয়াম পন্ফোসর্ড ও গ্রেগ চ্যাপেল। তিন অস্ট্রেলীয়র পর এ রেকর্ডটি সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিনের। আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নেয়ার সুযোগ হয়নি আজহারের। ২০০০ সালের মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে খেলা বহুল আলোচিত বেঙ্গালুরু টেস্টই তাঁর শেষ টেস্ট হয়ে আছে, যেটির দ্বিতীয় ইনিংসে করেছিলেন ১০২ রান। ১৮ বছর পর এই বিরল রেকর্ডে নাম তুললেন কুক।

রেকর্ড বইয়ে কুকের আরো একটি অর্জন আছে এই টেস্টে। কুমার সাঙ্গাকারাকে টপকে সবচেয়ে বেশি টেস্ট রানের মালিকের তালিকায় পাঁচ নম্বরে উঠেছেন তিনি। এই ইনিংসে ১৪৭ রানে আউট হয়েছেন। তার মোট টেস্ট রান ১২ হাজার ৪৭২। আউট হয়েছেন অভিষিক্ত ভারতীয় বোলার হানুম বিহারির বলে। ক্যাচ দিয়েছেন উইকেটের পিছনে।

এই টেস্ট খেলতে নামার আগে ছিলেন ছয় নম্বরে, সেরা পাঁচে ওঠার জন্য দরকার ছিলো ১৪৭ রান। এই তালিকায় সবার ওপরে আছেন শচীন টেন্ডুলকার(১৫৯২১ রান)। এরপর যথাক্রমে রিকি পন্টিং(১৩৩৭৮), জ্যাক ক্যালিস(১৩২৮৯) ও রাহুল দ্রাবির(১৩২৮৮)।
এছাড়া বাহাতি ব্যাটসম্যানদের মধ্যেও কুক সর্বোচ্চ টেস্ট রানের মালিক হলেন। এরচেয়ে সুন্দর বিদায় আর কী হতে পারে!

সর্বশেষ : ইংল্যান্ড দ্বিতীয় ইনিংসে ৩৪৬/৪