Naya Diganta

বাগেরহাটে নসিমুন চালক হত্যা মামলায় ৪ জনের মৃত্যূদন্ডাদেশ

বাগেরহাটের সদর উপজেলার চুলকাঠি এলাকার নসিমুন চালক হত্যা মামলায় বৃহষ্পতিবার বিকালে ৪ জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ দিয়েছে আদালত। বাগেরহাটের অতিরিক্ত দায়রা জজ আদালত-১ এর বিচারক মো. হাফিজুর রহমান এই রায় প্রদান করেন। দন্ডাদেশ প্রাপ্তরা হলো সদর উপজেলার ভট্টবলিয়াঘাটার আব্দুল ফকিরের ছেলে সোহাগ ফকির, গোলাম মোস্তফা ওরফে মাফুজের ছেলে ইব্রাহিম মোল্লা, দক্ষিন খানপুরের মোহাম্মদ আলীর ছেলে মিজান ও ফকিরহাট উপজেলার লকপুরের ওমর আলী মোল্লার ছেলে জুনু ওরফে ইসমাইল মোল্লা। একই মামলা অপর আসামী খুলনার জোনাব আলী গাজীর ছেলে জয়নাল আবেদীনকে ২ বছরের সশ্রম কারাদন্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমান অনাদায়ে ৩ মাসের কারাদন্ডাদেশ দিয়েছে আদালত।
মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণে জানাগেছে, বাগেরহাট সদর উপজেলার হাকিমপুর গ্রামের আব্দুল্লাহ মোল্লার ছেলে নসিমুন চালক মো. মামুন মোল্লা ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর আসামীরা পরষ্পরের সহযোগীতায় নসিমুন নিয়ে খুলনার উদ্দ্যেশ্যে রওয়ানা করে। পরে মামুন মোল্লাকে তার পরিবারের লোকজন খুজে না পেয়ে ৯ সেপ্টেম্বর সদর থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করে। ১ বছরেরও পরে এই সাধারন ডায়েরীর তদন্ত করতে গিয়ে বাগেরহাট সদর থানার এস আই আজগর আলী এক আসামীকে আটকের পর জানতে পারেন আসামীরা মামুন মোল্লাকে নসিমুনসহ ভাড়ায় নিয়ে খুলনার উদ্দেশ্যে রওয়ানা করে। পরে খুলনায় না গিয়ে পথিমধ্যে তাকে হত্যা করে নসিমুন নিয়ে অন্যত্র বিক্রি করে। এই ঘটনায় ২০১৪ সালের ১২ জুন একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। পরে মামলাটি সিআইডিতে ন্যাস্ত করা হয়। সিআইডি পরিদর্শক মো. নিজাম উদ্দিন হাওলাদার ২০১৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর মৃত্যুদন্ডাদেশ প্রাপ্ত ৪ আসামীসহ ৫ জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। আদালত স্বাক্ষীদের স্বাক্ষ্য গ্রহন শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে এই রায় প্রদান করেন। মামলা রাষ্ট্র পক্ষে ছিলেন, এ্যাড সৈয়দ জাহিদ হোসেন ও আসামী পক্ষে ছিলেন এ্যাড. মো. মোসলেম উদ্দিন, মো. এনায়েত হোসেন, মনোজ কুমার শিকদার।