Naya Diganta

কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের নাট্যকলা বিভাগের তিন শিক্ষিকাসহ অনেক নারী শিক্ষার্থী ওই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ রুহুল আমিনের দ্বারা যৌন নিপীড়নের শিকার হন। এ ঘটনায় ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটিকে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হলেও পেরিয়ে গেছে দীর্ঘদিন। বুধবার দুপুরে আবারো তার স্থায়ী বহিস্কারের দাবিতে প্রশাসনিক ভবনের সামনে মানববন্ধন ও মৌনমিছিল করেন ওই বিভাগের শিক্ষার্থীরা।
যৌন হয়রানির শিকার সহকর্মী তিন নারী শিক্ষক গত ১৭ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বরাবর একটি লিখিত অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত সহকারী অধ্যাপক মুহাম্মদ রুহুল আমিনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ওই ঘটনায় তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। তদন্ত কমিটিকে ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়। কিন্তু অদৃশ্য কারনে ওই ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করতে ব্যর্থ হয় কমিটি। এছাড়াও অভিযুক্ত শিক্ষক রুহুল আমিন নিজের ফেসবুক আইডি থেকে নাট্যকলা বিভাগ নিয়ে বিভিন্ন স্ট্যাটাস দিয়ে ওই বিভাগকে কুলষিত করছেন বলে শিক্ষার্থীদের অভিযোগ। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের ফেসবুক মেসেঞ্জারেও প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন। এতে ক্ষুব্দ হচ্ছেন শিক্ষার্থীরা।
বুধবার দুপুরে রুহুল আমিনের স্থায়ী বহিস্কারের দাবিতে নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থীরা কলা ভবনের সামনে থেকে একটি মৌনমিছিল বের করে। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক পদক্ষিন শেষে প্রশাসনিক ভবনের সামনে গিয়ে শেষ হয়। প্রশাসনিক ভবনের সামনে মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করেন শিক্ষার্থীরা। পরে প্রক্টর উজ্জল কুমার প্রধান, সহকারি প্রক্টর নীলা সাহা, শাহজাদা আহসান সহ অন্যান্য শিক্ষকদের হস্তক্ষেপে ক্লাসে ফিরে যান শিক্ষার্থীরা।
এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান জানান, ১৫ কার্যদিবস শেষ হওয়ার পর তদন্ত কমিটি আরও সাত দিন সময় নিয়েছে। সাত কার্যদিবসের মধ্যে ৩ দিন অতিবাহিত হয়েছে। আগামী চার কার্যদিবসের মধ্যে হয়তো তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেয়ে যাব।