Naya Diganta

জয় অব্যাহত থাকবে বলে আশ্বাস পাকিস্তানি কোচের

এখনো সাফ ফুটবলে চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনি পাকিস্তান। একই পথে নেপালও। এবার তাদের মিশন ঢাকায় সাফ শিরোপায় হাত ছোঁয়ানো। এই লক্ষ্যে এই দুই দলেরই জয়ে শুরু জরুরি ছিল। ম্যাচের একপর্যায়ে সবাই ড্রই ধরে নিয়েছিল ম্যাচের রেজাল্ট। কিন্তু কাউন্টার অ্যাটাক থেকে ইনজুরি টাইমে গোল করে বিজয়ের হাসি পাকিস্তানের। ২০১৫ সালে মার্চে সর্বশেষ আর্ন্তজাতিক ম্যাচ খেলা এই দলের এই জয় তাদের ফুটলের পুর্নজাগনের জন্য অতি জরুরি। কাল সেই কথাই উল্লেখ করলেন পাকিস্তানের ব্রাজিলিয়ান কোচ হোসে অ্যান্তনিও নগেইরা। জানান, আমাদের এমন জয় অব্যাহত থাকবে। এই জয় পাকিস্তানবাসীদের জন্য বিশাল অনুপ্রেরণা। এখন তাদের আরো উৎসাহিত করবে ফুটবলের প্রতি। অন্য দিকে হারের জন্য ডিফেন্সকে দায়ী করলেন নেপালের কোচ বাল গোপাল মহাজন।
জিতলেও নেপাল দলের খেলার প্রশংসা পাকিস্তানের কোচের মুখে। তার মতে কঠিন ম্যাচ ছিল আমাদের জন্য। তিন বছর পর দেশের প্রথম স্বীকৃত আন্তর্জাতিক ম্যাচ। প্রস্তুতিও ভালো ছিলনা আমাদের। তার উপর নেপাল বেশ চমৎকার খেলেছে।’ কোচ যোগ করেন, আমি জানতাম জাকার্তা এশিয়াডে আমাদের কাছে হারে পর তারা এই ম্যাচে তারা জয়ের জন্য মরিয়া হবে। তাই সেই অনুযায়ীই কৌশল সাজিয়েছে। এছাড়া দুই ফুটবলারের ইনজুরি এবং একজনের অসুস্থতা আমাদের ফরমেশনে পরিবর্তন আনতে বাধ্য করে। কোচের মতে, এখন আমাদের লক্ষ্য পরের দুই ম্যাচ। সে সাথে বললেন, এই জয়ের ফলে নক আউটের পথে আমরা একধাপ এগিয়ে গেলাম।তবে তিনি রেজাল্ট খুশি হলেও দলের খেলায় হতাশ।

তাদের দ্বিতীয় ম্যাচ বাংলাদেশের বিপক্ষে। নগেইরার মতে, বাংলাদেশ বেশ ভালো দল। এশিয়াড়ে আমি তাদের খেলা দেখেছি। তারা দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলেছিল।’ ম্যাচে জয়ের নায়ক মোহাম্মাদ আলীর দেশের হয়ে এটাই প্রথম গোল। তার মতে, এই গোলের মাধ্যমে দলকে জিতিয়ে পুনরায় দেশের পাতাকা তুলে ধরতে পারলাম। বেশ টাফ ম্যাচ ছিল এটি।

এদিকে নেপালের কোচ বাল গোপাল মহাজন ম্যাচের ফলাফল সম্পর্কে বলেন, ‘এটা হতে পারে। তবে ডিফেন্ডারদের অবহেলায় দুটি গোল হজম করেছি। এবং হার।’ তবে এখনো সব শেষ হযে যায়নি বলে মন্তব্য তার। জানান, এখন আমাদের জিততে হবে পরের দুই খেলায়। তিনি দলের ফরোয়ার্ডদের পারফরম্যানেসও বিরক্ত। বলেন, তারা আশানুরূপ খেলতে পারেনি।