Naya Diganta

জাল সনদে চাকরি : বরিশালে নারী কনস্টেবল জেলহাজতে

মুক্তিযোদ্ধার জাল সনদ দিয়ে নারী কনস্টেবল পদে চাকরি নেয়ার অভিযোগে ভুয়া মুক্তিযোদ্ধাসহ নারী কনস্টেবলকে জেল হাজতে প্রেরণ করেছে আদালত। সোমবার দুপুরে বরিশাল অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মারুফ আহমেদ তাদের জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন।
জেল হাজতে প্রেরণকৃতরা হলেন, বরিশাল সদর উপজেলার চরকেউটিয়া এলাকার মৃত করিম গাজীর পুত্র ভূয়া মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক সুবেদার আব্দুল লতিফ গাজী এবং তার কন্যা নারী কনস্টেবল মিল্কী আক্তার।
মামলার বরাত দিয়ে বরিশাল কোতোয়ালী মডেল থানার জিআরও এসআই খোকন জানান, মুক্তিযোদ্ধা কোটায় ভূয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ দিয়ে ২০১০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি নারী কনস্টেবল মিল্কী আক্তার চাকরি পায়। পরে মিল্কী আক্তারের পিতা সাবেক সুবেদার আব্দুল লতিফ গাজীর মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাছাই শেষে জানা যায় সনদটি জাল। এর আগে ছয় মাসের প্রশিক্ষণ শেষ করে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে যোগদান করে নারী কনস্টেবল মিল্কী আক্তার। পরে পুলিশ হেডকোটার্সের নির্দেশে রিজার্ভ পুলিশের এসআই কবির হোসেন ২০১৮ সালের ৩০ মে বাদী হয়ে কোতোয়ালী মডেল থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। সোমবার আদালতে হাজির হয়ে জামিনের প্রার্থনা করলে বিচারক উভয়কে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেয়।