Naya Diganta

গুছিয়ে নিন আগেই : রঙের ফিচার

কোরবানির ঈদ মানেই কাজের ব্যস্ততা। মূলত গৃহিণীকেই সামলাতে হয় ঈদের সব কাজ। আগে থেকেই যদি কিছু কাজ এগিয়ে রাখা যায় তাহলে ঈদের দিনটিতে কাজ নিয়ে হিমশিম খেতে হয় না। তাই প্রস্তুতি নিন আগে থেকেই

ষ কোরবানির ঈদে পশু জবাইয়ের জন্য আলাদা কিছু জিনিসের প্রয়োজন পড়ে। যেমন, প্লাস্টিকের বালতি, মগ, চাটাই, প্লাস্টিক সিট, রশি, ন্যাপকিন, সুতি গামছা, কাপড়, দা, ছুরি, বটি, বোল, বড় হাঁড়ি পাতিল, পানি ধরে রাখার ড্রাম, প্লাস্টিক প্যাকেট ইত্যাদি।
ষ প্লাস্টিকের বোল, বালতি, মগ, হাঁড়ি-পাতিল ধুয়ে মুছে হাতের কাছেই রাখুন। পর্যাপ্ত পানিরও ব্যবস্থা রাখুন।
ষ প্রয়োজনীয় প্লেট, বাটি, গ্লাস, জগ, ডিস ইত্যাদি নামিয়ে ধুয়ে নিন।
ষ দা, বটি, ছুরি, চাপাতি আগে থেকে ধার করিয়ে নিন।
ষ চাটাই, রশি, ন্যাপকিন, কাপড়, প্লাস্টিক শিট হাতের কাছেই রাখুন। ব্লিচিং পাউডার, স্যাভলন ও ঝাড়– সংগ্রহে রাখতে হবে।
ষ বাড়তি পানি সংরক্ষণ করে রাখতে হবে। সেজন্য প্লাস্টিকের ড্রাম ব্যবহার করুন।
ষ কাগজে নামের তালিকা তৈরি করে রাখুন।
ষ ঈদের দিন বা তার পরের দিনের রান্নার উপকরণ যেমনÑ মসলা, মাছ, গোশত, মুরগি, চাল, তেল, দুধ ইত্যাদি কেনাকাটা করে রাখুন।
ষ আদা, রসুন আগে থেকেই বেটে রাখুন। ঈদের দিন রান্না করার গোশত ঈদের আগের দিন রাতেই কষিয়ে নেবেন। কাবাব বানাতে চাইলে আগের দিনই তৈরি করে ফ্রিজে রেখে দিন। খাবার সময় ভেজে নিলেই হবে।
ষ ফ্রিজটা আগে থেকেই পরিষ্কার করে রাখুন। এ সময় ফ্রিজের ব্যবহারটা বেশি হয়।
ষ রান্না করার জন্য যা কিছু প্রয়োজন (প্যাকেট জাতীয়) তার সব কিছু একটি প্লাস্টিকের ঝুড়িতে গুছিয়ে রাখুন।
ষ গোছগাছের কাজও কিছু কিছু আগের দিন রাতেই সেরে রাখতে পারেন। যেমনÑ টেবিল, সোফা, টিভি, দরজা জানালা ইত্যাদির পর্দাগুলো লাগিয়ে ফেলুন। বিছানার চাদরগুলো একসাথে রাখুন যাতে সকালে চট করে বিছিয়ে দিতে পারেন।
ষ সকালে যারা নামাজ পড়তে যাবেন, তাদের কী কী প্রয়োজন হতে পারে তার সবকিছু একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রেখে দিন। যেমন, পায়জামা, পাঞ্জাবি, টুপি, জায়নামাজ, জুতা, আতর, তসবি ইত্যাদি।
ষ ঈদের আগের রাতেই ঘরে কিছু কৃত্রিম ও তাজা ফুল সাজিয়ে ফেলুন।
ষ ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় আগের রাত থেকেই শুরু হয়ে যায়, তাই কাউকে মোবাইল করা, মেসেজ পাঠানো ইত্যাদি কাজ রাতেই করতে পারেন।
ষ ঈদের দিনের জন্য বাজার আগে থেকেই করে গুছিয়ে রাখতে পারলে ভালো হয়।
ষ অতিথি আপ্যায়নের সুবিধার্থে হালকা কিছু নাশতা রাখতে পারেন।
ষ ডাইনিং টেবিল সুন্দর করে সাজিয়ে রাখুন। প্রয়োজনীয় প্লেট, গ্লাস, চামচ, ন্যাপকিন সব হাতের কাছেই গুছিয়ে রাখুন।
ষ ঘরের ধুলা-ময়লা আগেই পরিষ্কার করে নিন।
কিছু কাজ আগে থেকেই গুছিয়ে রাখলে ঈদের দিন ঝামেলা অনেক কম হবে। কাজকর্ম করেও উপভোগ করতে পারবেন ঈদের আনন্দ।