২১ নভেম্বর ২০১৮

‘ওগো বধূ সুন্দরী’

মেহজাবিন চৌধুরী - ছবি : মোহসীন আহমেদ কাওছার

আগামী ঈদের জন্য ভালো ভালো গল্পের নাটক টেলিফিল্মে কাজ করছেন এ সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবিন চৌধুরী। অভিনয় জীবনের পথচলায় অনেক গুণী নাট্যনির্মাতার নির্দেশনায় তার কাজ করার সুযোগ হয়েছে। তবে এবারই প্রথম তিনি নাটক ও চলচ্চিত্র নির্মাতা হিমেল আশরাফের নির্দেশনায় নাটকে অভিনয় করছেন।

নাটকের নাম ‘ওগো বধূ সুন্দরী’। এ নামে উত্তম কুমারের একটি চলচ্চিত্র আছে। তবে সেই চলচ্চিত্রের সাথে এ নাটকের গল্পের কোনো মিল নেই। নাটকটির গল্প প্রসঙ্গে নির্মাতা হিমেল আশরাফ বলেন, ‘স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য জীবন যখন ধীরে ধীরে অনেক বছরে পেরিয়ে যায়, তখন অনেক স্ত্রীই মনে করেন যে তার স্বামী হয়তো আগের মতো তাকে ভালোবাসে না। অপিও তাই মনে করে যে তার স্বামী এখন আর আগের মতো তাকে ভালোবাসে না। তাই সে বিভিন্নভাবে স্বামীর নজর কাড়ার চেষ্টা করে; কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্ক এমন এক সম্পর্ক যাদের মনের ভেতরই ভালোবাসা সুপ্ত থাকে, প্রয়োজনে তার প্রকাশ ঘটেই। এটি এমনই এক সম্পর্ক যেখানে প্রেমিক-প্রেমিকার মতো প্রতিদিন আই লাভ ইউ বলতে হয় না।’

নাটকটিতে অপি চরিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে মেহজাবিন চৌধুরী বলেন, ‘এবারই প্রথম হিমেল আশরাফ ভাইয়ার নির্দেশনায় নাটকে অভিনয় করছি। সব মিলিয়ে কাজটি বেশ ভালো হয়েছে। গল্পটার প্রেক্ষাপট আমার কাছে ভালো লেগেছে। আশা করছি সব মিলিয়ে নাটকটি দর্শকের ভালো লাগবে।’

নির্মাতা হিমেল আশরাফ জানান, আগামী ঈদে ‘ওগো বধূ সুন্দরী’ নাটকটি এনটিভিতে প্রচার হবে। উল্লেখ্য, লন্ডনে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর নির্দেশনায় একটি বিজ্ঞাপনের শুটিং শেষে ঢাকায় ফিরে একের পর এক নাটক টেলিফিল্মে অভিনয় নিয়ে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন মেহজাবিন চৌধুরী। অল্প কিছু দিনের মধ্যেই শিহাব শাহীন, মিজানুর রহমান আরিয়ান, আশফাক নিপুণসহ আরো বেশ ক’জন নাট্যনির্মাতার নাটক, টেলিফিল্মে অভিনয় করবেন।

বেশ কয়েক বছর ধরে তার অভিনীত নাটক টেলিফিল্ম দর্শকের কাছে বেশ প্রশংসিত হচ্ছে। তাই দর্শকের কথা চিন্তা করে এখন আগের চেয়ে নাটক টেলিফিল্মে অভিনয় করার ক্ষেত্রে আরো অধিক মনোযোগী ও সতর্ক হয়েছেন মেহজাবিন। গেল ঈদে তার অভিনীত মিজানুর রহমান আরিয়ান পরিচালিত ‘বুকের বা পাশে’ সবচেয়ে বেশি সাড়া ফেলে।

আরো পড়ুন:  ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদকে ভূষিত রুনা লায়লা
‘স্বাধীনতা পুরস্কার’, ‘মহাগুরু পুরস্কার’, ‘বঙ্গবিভূষণ’সহ বহু আন্তর্জাতিক পুরস্কারে সম্মানিত উপমহাদেশের বরেণ্য কিংবদন্তি নজরুল সঙ্গীতশিল্পী ফিরোজা বেগম স্মৃতি স্বর্ণপদকে ভূষিত হলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সঙ্গীতশিল্পী রুনা লায়লা। সোমবার বেলা সাড়ে ৩টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে রুনা লায়লার হাতে এই স্বর্ণ পদক তুলে দেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি ড. মো: আখতারুজ্জামান।

স্বর্ণপদকে ভূষিত হয়ে রুনা লায়লা বলেন, ‘ফিরোজা বেগম আপার সঙ্গে আমার খুব বেশি ঘনিষ্ঠতা ছিল না। কিন্তু যখনই কোনো অনুষ্ঠানে দেখা হতো তিনি আমাকে খুব স্নেহ করতেন, আদর করতেন। তার স্মৃতিতে এই স্বর্ণপদকে ভূষিত হওয়া আমার জন্য অনেক দোয়া বলেই আমি মনে করি। সত্যিই আজ আমার জন্য বিশেষ একটি দিন। পুরস্কার সবসময়ই অনেক আনন্দ দেয়, অনুপ্রেরণা জোগায়। কিন্তু ফিরোজা আপার স্মৃতিতে এ পুরস্কার আমার জন্য অনেক আশীর্বাদ বলেই আমি মনে করছি।’

রুনা লায়লা বলেন, ফিরোজা আপা সারা পৃথিবীতে নজরুল সঙ্গীতের প্রচার করেছেন, প্রসার করেছেন। তিনি সব সময়ই শিল্পীদের উৎসাহ দিতেন। আমাকেও উৎসাহ দিতেন। আজ এ স্বর্ণ পদক প্রাপ্তি আমার জন্য আরো আনন্দের এ কারণেই যে আজ এই পুরস্কার গ্রহণ করতে আমার সঙ্গে আমার দুই নাতি জাইন ও আরোনও এসেছে। আমার এ সম্মাননা প্রাপ্তিতে তারা দুইজনও ভীষণ খুশি।’

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন এসিআই ফাউন্ডেশন ও ট্রাস্ট ফান্ডের দাতা এম আনিস উদ দৌলা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩৫০টি ট্রাস্ট ফান্ডের মধ্যে এই ট্রাস্টে সর্বোচ্চ টাকা আছে বলে অনুষ্ঠানে জানানো হয়। অনুষ্ঠানটির সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. মো: কামাল উদ্দীন।


আরো সংবাদ