১৮ আগস্ট ২০১৯

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল ছাত্রীর শ্লীলতাহানি : শিক্ষার্থীদের ৬ ঘন্টা বিক্ষোভ

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ - নয়া দিগন্ত

ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ ছাত্রী নিবাসের সামনে বহিরাগত কর্তৃক এক ছাত্রীর শ্লীলতাহানির প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন ও প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে ছয় ঘণ্টা অবস্থান ও বিক্ষোভ করে শিক্ষার্থীরা। এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার কারণে ছাত্রী নিবাসের দুই কর্মচারী সেলিম ও বেগমকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।
বুধবার ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজের এম-৫৫ ব্যাচের এক ছাত্রী ইফতার নিয়ে ছাত্রী নিবাসে প্রবেশের সময় উৎ পেতে থাকা বহিরাগত এক বখাটে তার শ্লীলতাহানির চেষ্টা করে। বিষয়টি হোস্টেল সুপার ও কলেজ অধ্যক্ষকে অবহিত করার পর কর্তৃপক্ষ কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। বরং উল্টো শিক্ষার্থীদেরকে বিষয়টি ধামাচাপা দেয়ার কথা বলে। এতে বিক্ষুদ্ধ হয়ে ফুঁসে উঠে শিক্ষার্থীরা। প্রতিবাদে শিক্ষার্থীরা ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত টানা ৬ ঘন্টা কলেজের প্রধান ফটকে তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ করে। বিক্ষোভকারীরা বহিরাগত ওই ব্যক্তিকে গ্রেফতার ও শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার দাবি জানায়।
এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে শিক্ষার্থীদের হাতে ছাত্রী নিবাসের দারোয়ানকে মারধরকে কেন্দ্র করে কর্মচারীদের সাথে শিক্ষার্থীদের বাগিবিতণ্ডা ও ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এরপর চতুর্থ শ্রেণীর কর্মচারীরা কলেজ ক্যাম্পাসের ক্যান্টিনের সামনে অবস্থান নিয়ে বিক্ষোভ শুরু করলে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। উদ্ভুত পরিস্থিতিতে সকাল থেকেই ক্যাম্পাসে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়। পরিস্থিতি সামাল দিতে কলেজ প্রশাসন ও উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের সাথে বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের কয়েক দফা বৈঠকে নিরাপত্তা নিশ্চিত করাসহ সার্বিক বিষয়ে আলোচনার পর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী কলেজ কর্তৃপক্ষ ছাত্রী নিবাসের গেইটে দায়িত্ব অবহেলার জন্য দুই কর্মচারী সেলিম ও বেগমকে সাময়িক বরখাস্ত করে।
সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আল আমিন সাংবাদিকদের জানান, নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের সাথে কলেজ প্রশাসনকে নিয়ে বৈঠক হয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক।
শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, ক্যাম্পাসে নিরাপত্তার অভাবে প্রায়শই নানা দূর্ঘটনা ঘটছে। বিভিন্ন সময় আন্দোলন করেও নিরাপত্তা নিশ্চিত ও বহিরাগত ঠেকানো যাচ্ছে না। প্রতিনিয়তই বহিরাগতরা হোস্টেলে প্রবেশ করে ছাত্রীদের উত্ত্যক্ত করছে। রুমে প্রবেশ করছে, চুরি হচ্ছে। মাদক সেবন করছে। নিরাপত্তার দাবিতে একাধিকবার সিসি ক্যামেরা স্থাপনসহ পুলিশ মোতায়েনের দাবি করা হলেও প্রশাসন কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি।
এ ব্যাপারে কলেজের অধ্যক্ষ ডা. আনোয়ার হোসেন জানান, ক্যাম্পাসের নিরাপত্তায় ও শিক্ষার্থীদের দাবিগুলো বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ছাত্রী নিবাসের প্রধান ফটকে সিসি ক্যামেরা স্থাপন এবং নিরাপত্তার জন্য সার্বক্ষনিক আনসার সদস্য মোতায়েন, সীমানা প্রাচীরে কাটাতাঁরের বেড়া নির্মাণের সিদ্ধান্ত হয়। আগামী শনিবার অন্য বিষয়গুলো কলেজ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এবং পুলিশ প্রশাসনের সাথে আলোচনা করে পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে বলেও জানান তিনি।


আরো সংবাদ

রাঙ্গামাটিতে সন্ত্রাসীদের সাথে গুলি বিনিময়ে এক সেনাসদস্য নিহত স্মিথের বদলি লাবুশানে; টেস্ট ক্রিকেটে ইতিহাস ভারতের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার এখন ফ্যাসিস্ট মোদির হাতে : ইমরান খানের হুঁশিয়ারি রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনের সর্বোচ্চ প্রস্তুতি স্বাধীনতা বিরোধীরা এখনো ঘড়যন্ত্র করছে : আইনমন্ত্রী দুর্ঘটনা কেড়ে নিলো একটি পরিবার, ঈদ আনন্দে বিষাদের ছায়া ছাত্রদলের সভাপতি ও সম্পাদক হতে ইচ্ছুক ১০৮ তরুণ নেতা মানিকগঞ্জে বেড়েই চলছে ডেঙ্গু রোগী সিরাজগঞ্জে ডেঙ্গু রোগে আক্রন্ত কলেজ ছাত্রের মৃত্যু উপকূল সুরক্ষায় ৬৪২ কিলোমিটার সুপার ডাইক নিমার্ণের উদ্যোগ ছাগলের ক্ষেত খাওয়াকে কেন্দ্র করে বৃদ্ধা খুন

সকল




bedava internet