২৫ মে ২০১৯

গুলি করে কৃষক হত্যাকারী আওয়ামী লীগ নেতা গ্রেফতার

গুলি করে কৃষক হত্যার অভিযোগে আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান হবিকে আটক করে পুলিশ। (ইনসেটে) আওয়ামী লীগ নেতা হবি - নয়া দিগন্ত

শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে পিস্তলের গুলিতে নিহত চাঞ্চল্যকর কৃষক ইদ্রিস হত্যা মামলার প্রধান আসামী আওয়ামী লীগ নেতা হাবিবুর রহমান হবিকে (৫৩) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়া শুক্রবার রাতে গ্রেফতারকৃত হবি চেয়ারম্যানের দেয়া তথ্যমতে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বিদেশি পিস্তল ও ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত হাবিবুর রহমান হবি উপজেলার যোগানিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

এদিকে অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় শনিবার (৪ মে) নালিতাবাড়ী থানায় ইউপি চেয়ারম্যান হবিকে প্রধান আসামী ও ২ জনকে সহযোগী আসামী করে অস্ত্র আইনে পৃথক আরো একটি মামলা রেকর্ড করা হয়েছে।

অভিযানের বিষয়ে শনিবার (৪ মে) দুপুরে পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ বিল্লাল হোসেন জানান, বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে শেরপুরের পুলিশ সুপার কাজী আশরাফুল আজীম পিপিএমের তত্ত্বাবধানে নালিতাবাড়ী থানা পুলিশ তথ্য-প্রযুক্তির মাধ্যমে চাঞ্চল্যকর কৃষক ইদ্রিস হত্যা মামলার আসামী ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর রহমান হবির অবস্থান নিশ্চিত হয়।

পরে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলার ফতেহপুর এলাকায় স্থানীয় থানা পুলিশের সহায়তায় অভিযান চালিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান হাবিবুর হবিকে গ্রেফতার করা হয়। পরে শুক্রবার রাতে গ্রেফতারকৃত হবি চেয়ারম্যানকে নিয়ে নালিতাবাড়ী থানায় পৌঁছে পুলিশ।

এরপর জিজ্ঞাসাবাদে তিনি হত্যাকাণ্ডে নিজের ব্যবহৃত পিস্তলের অবস্থান সম্পর্কে তথ্য দিলে তাকে নিয়ে রাতেই অভিযান পরিচালিত হয়। একপর্যায়ে নালিতাবাড়ী উপজেলার জামিরাকান্দায় অবস্থিত তার তৃতীয় স্ত্রীর বসতবাড়ির একটি নারকেল গাছের গোড়ার মাটি খুঁড়ে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত বিদেশি পিস্তল ও ম্যাগজিন উদ্ধার করা হয়।

ব্রিফিংয়ে তিনি আরো জানান, ইউপি চেয়ারম্যান হবিকে গ্রেফতারের মধ্য দিয়ে চাঞ্চল্যকর এ হত্যা মামলার ২৭ আসামীর মধ্যে ১০ আসামীকেই এক সপ্তাহের মধ্যে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। অন্যদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। প্রেস ব্রিফিংয়ে অন্যান্যের মধ্যে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আমিনুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ সুপার (নালিতাবাড়ী সার্কেল) জাহাঙ্গীর আলম, নালিতাবাড়ী থানার ওসি ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আবুল খায়েরসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, পূর্ব বিরোধের জের ধরে গত ২৫ এপ্রিল দুপুরে যোগানিয়া ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান হবি দলবল নিয়ে পার্শ্ববর্তী কুত্তামারা গ্রামে কৃষক ইদ্রিস আলীর বাড়িতে হামলা চালায়। একপর্যায়ে ইউপি চেয়ারম্যানের লাইসেন্সবিহীন পিস্তলের গুলিতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান কৃষক ইদ্রিস আলী।

এই ঘটনায় ইদ্রিস আলীর বাবা ফজলুর রহমান বাদী হয়ে নালিতাবাড়ী থানায় ২৭ জনকে আসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।


আরো সংবাদ




Instagram Web Viewer
agario agario - agario
hd film izle pvc zemin kaplama hd film izle Instagram Web Viewer instagram takipçi satın al Bursa evden eve taşımacılık gebze evden eve nakliyat Canlı Radyo Dinle Yatırımlık arsa Tesettürspor Ankara evden eve nakliyat İstanbul ilaçlama İstanbul böcek ilaçlama paykasa