২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

জামালপুরে চাঞ্চল্যকর মুয়াল্লিম হত্যা মামলার আসামি ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান গ্রেফতার

শাহজাহান আলী ও নিহত আব্দুল হক -

জামালপুরে চাঞ্চল্যকর মুয়াল্লিম আব্দুল হক হত্যা মামলার আসামি নরুন্দি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী সরকারকে গ্রেফতার করেছে সিআইডি। আজ মঙ্গলবার তাকে জামালপুর আদালতে সোপর্দ করা হবে। সোমবার রাতে সিআইডির পক্ষ থেকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে তাকে কখন, কোথা থেকে গ্রেফতার করা হয়েছে এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন সিআইডির জামালপুর কার্যালয়ের পরিদর্শক এমএ নাসিম।

উল্লেখ্য, মুয়াল্লিম আব্দুল হক গত বছরের ১২ মে রাত সাড়ে ৯টার দিকে ১১ লাখ টাকা নিয়ে ব্যবসায়ীক কাজে সদর উপজেলার ইটাইল ইউনিয়নের খলিলের মোড় এলাকায় যান। এরপর থেকেই তিনি নিখোঁজ ছিলেন। তার মোবাইল ফোনটিও বন্ধ পাওয়া যায়। এ ব্যাপারে ১৩ মে জামালপুর থানায় জিডি করেন তার স্ত্রী মরিয়ম আক্তার।

নিখোঁজের পাঁচ দিন পর ১৬ মে সকালে সদর উপজেলার ইটাইল ইউনিয়নের মানিকেরচর এলাকায় ব্রহ্মপুত্র নদ থেকে সিমেন্টের খুঁটির সাথে বাঁধা অবস্থায় তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এসময় লাশের পায়জামার পকেটে এক লাখ টাকা পাওয়া যায়। হত্যাকারীরা লাশ গুম করার উদ্দেশ্যে সিমেন্টের দুটি খুঁটির সাথে তাকে বেঁধে পানিতে ডুবিয়ে রেখেছিল।

এ ঘটনায় নিহত আব্দুল হকের স্ত্রী মরিয়ম আক্তার বাদী হয়ে গত বছরের ১৬ মে রাতে জামালপুর সদর থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় নরুন্দি ইউপি চেয়ারম্যান শাহজাহান আলী সরকার ও আব্দুল হকের হোটেল ব্যবসার অংশীদার শহরের বাগেরহাটা বটতলা এলাকার চাঁন মিয়াসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করা হয়।

মামলা দায়েরের তিন মাস পর থানা থেকে ওই মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব সিআইডির জামালপুর কার্যালয়ে স্থানান্তরিত হয়।

নিহত আব্দুল হক সদর উপজেলার ইটাইল ইউনিয়নের মহিশুরা গ্রামের ইউসুফ আলীর ছেলে এবং তিনি জামালপুর শহরের সকাল বাজারস্থ আরাফাত এন্টারপ্রাইজের মালিক ও আরব-বাংলাদেশ হজ্ব এজেন্সির জামালপুর জেলা প্রতিনিধি ছিলেন। এছাড়াও তিনি ইসলামী শ্রমিক আন্দোলন জামালপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি ছিলেন। জামালপুর শহরের কাচারীপাড়া এলাকায় নিজ বাড়িতে স্ত্রী ও সন্তান নিয়ে থাকতেন তিনি।


আরো সংবাদ