২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮

প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড পেলেন ভালুকার স্কাউটস তাজনুর

প্রধান শিক্ষিকার সাথে তাজনুর আক্তার। ছবি - নয়া দিগন্ত।

বাংলাদেশ স্কাউটস এর সর্বোচ্চ সম্মাননা প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড ২০১৮ আর্জন করলেন, ভালুকার ঐতিহ্যবাহী হালিমুন্নেছা চৌধুরাণী মেমোরিয়াল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের মেধাবী শিক্ষার্থী তাজনুর আক্তার। তিনি ভালুকা পৌরসভার ৫ নম্বর ওয়ার্ডের গার্মেন্টকর্মী মো: সেলিম রেজার একমাত্র মেয়ে। তাজনুর আক্তার এই বছরই আবার সমাজ উন্নয়ন এ্যাওয়ার্ড সম্মাননা অর্জন করেন। তাছাড়া এই প্রতিষ্ঠানের আরো তিন শিক্ষার্থী সুমি আক্তার, আঞ্জুমান আরা, মুন্নি আক্তারও এই সম্মাননা পান।

জাতীয় পর্যায়ে অনুষ্ঠিত চূড়ান্ত পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে ৩ জুলাই, ২০১৮ (মঙ্গলবার) বাংলাদেশ স্কাউটস এর প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড প্রাপ্তদের নামের তালিকা ঘোষণা করা হয়। এতে স্থান করে নেন, ভালুকার তাজনুর আক্তার।প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড অর্জন করায় তাজনুর আক্তার তার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, আমার এ পদক পাওয়ার পেছনে সবচেয়ে বেশি অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন প্রধান শিক্ষক আনোয়ারা নীনা ম্যাডাম। এছাড়াও আমাদের স্কুলের স্কাউটস টিচার শরীফা ম্যাডাম ও ময়মনসিংহ জেলা স্কাউটস এর শিক্ষক মোকাররম স্যারের দিক-নির্দেশনাও ছিল খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমি সারাজীবন মানুষের কল্যাণে কাজ করে যেতে চাই।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনোয়ারা নীনা নয়া দিগন্ত বলেন, ১৯৯১ সাল থেকে আমার প্রতিষ্ঠানে স্কাউটস কার্যক্রম শুরু করা হয়। ইতোমধ্যে এই প্রতিষ্ঠানটি উপজেলায় শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছ এবং আমাকে শ্রেষ্ঠ প্রধান শিক্ষক হিসেবে সম্মানান প্রধান করা হয়েছে। আমার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী তাজনুর আক্তার বাংলাদেশ স্কাউটস এর প্রেসিডেন্ট এ্যাওয়ার্ড অর্জন করায় আমি খুবই আনন্দিত ও গর্বিত। তাজনুর খুবই মেধাবী ও কঠোর পরিশ্রমী। সে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণীতে জিপিএ পেয়েছে। সে আমাদের দিক-নির্দোশনা যথাযথভাবে পালনের চেষ্টা ও সাধনা করেছে। যার ফলে আজ বাংলাদেশ স্কাউটস এর সর্বোচ্চ সম্মাননা অর্জন করতে পেরেছেন।

তিনি আরো বলেন, আমার প্রতিষ্ঠানে স্কাউটসের দুইটি ইউনিটে ৬৪ জন ছাত্রী রয়েছে। স্কাউটসের জন্য আমাদের তেমন কোন অর্থ বরাদ্দ নেই। অভিভাবকদের কাছ থেকে যা পাওয়া যায় তা দিয়েই এই কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়ে থাকে।

ময়মনসিংহ জেলা স্কাউটস এর শিক্ষক মোকাররম হোসাইন বলেন, তাজনুর আক্তার অসাধারণ প্রতিভার অধিকারী। তাকে আমি যেভাবে দিক-নির্দেশনা দিয়েছি, সে যথাযথভাবে পালনের চেষ্টা করেছে। সে আমার ক্লাসে খুবই মনোযোগী ছিল। কোনো বিষয় বুঝতে না পারলে সাথে সাথেই প্রশ্ন করে বুঝে নিত। আমি প্রথম থেকেই তাকে নিয়ে আশাবাদী ছিলাম। তার চেষ্টা ও সাধণা আজ সফল হয়েছে।

উপজেলা স্কাউটস এর সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব আলী খান সন্তুষ্টি প্রকাশ করে বলেন, তাজনুর আমাদের গর্ব। সে এমনিভাবে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে এগিয়ে যাক। তার মধ্যে অসাধারণ প্রতিভা রয়েছে। প্রতিভাকে কাজে লাগিয়ে জীবনে অনেক বড় হোক।


আরো সংবাদ