১৭ আগস্ট ২০১৮

সংবাদপত্র এজেন্ট, বিক্রেতা ও সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন

মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন -

ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে সংবাদপত্র এজেন্ট, পত্রিকা বিক্রেতা ও স্থানীয় সাংবাদিকদের আসামী করে রেলওয়ে জিআরপি পুলিশের দায়ের করা মিথ্যা মামলা  প্রতাহারের দাবিতে সোমবার সকালে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। গফরগাঁও বাজার ব্যবসায়ী সমিতি. গফরগাঁও প্রেসক্লাব ও উপজেলার সংবাদপত্র হকারদের ব্যানারে গফরগাঁও প্রেসক্লাবের সামনে এই মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। সকাল ১১টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে কয়েক’শ ব্যবসায়ী, উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিক এবং পত্রিকা বিক্রেতারা অংশ নেয়।

মানবববন্ধন চলাকালে মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহারের দাবী জানিয়ে বক্তব্য রাখেন, গফরগাঁও প্রেসক্লাবের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল আমিন বিপ্লব, সাবেক সভাপতি ফকির এ মতিন, রফিকুল ইসলাম খান, মো: আতিকুল্লাহ, শফিকুল কাদির, সাবেক সাধারন সম্পাদক রোবেল মাহমুদ, নাজমুল হক বিপ্লব, শেখ আব্দুল আওয়াল, শফিউল আলম মারুফ, আব্দুছ ছালাম সবুজ, সাংবাদিক আজিম উদ্দিন মাস্টার, এম কামরুজ্জামান লিটন, এইচ কবীর টিটো, গফরগাঁও বাজার ব্যবসায়ী সমিতির যুগ্ম-আহবায়ক মেহেদী হাসান বাবুল, কামরুল ইসলাম, ব্যবসায়ী তোফায়েল আহম্মেদ , উপজেলা হিন্দু ,বৌদ্ধ,খ্রীষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি বাবু চিত্ত রঞ্জন ঘোষ, পত্রিকা বিক্রেতা বাবুল হোসেন ও আব্দুল করিম প্রমুখ।

এদিকে সংবাদপত্র এজেন্ট ও সংবাদপত্র বিক্রেতার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের ও অজ্ঞাতনামা আসামী হিসেবে অন্য সংবাদপত্র বিক্রেতাদের জিআরপি পুলিশের গ্রেফতারের হুমকির কারনে গত দুইদিন যাবত গফরগাঁও উপজেলায় সংবাদপত্র বিক্রি বন্ধ রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বুধবার বিকালে গফরগাঁও রেলওয় স্টেশনে অবস্থিত রেলওয়ে বুক স্টলের মালিক ও সংবাদপত্র এজেন্ট রুকন উদ্দিন সবুরকে দুই দফা মারধর করে পুলিশ। পরে উত্তেজিত সংবাদপত্র বিক্রেতা ও স্থানীয় ব্যবসায়ী জিআরপি ফাঁড়ি ঘেরাও করে। এ সময় কবির নামে এক হকার পুলিশ সদস্য রঞ্জু মিয়াকে পিটিয়ে জখম করেন। এ মামলায় গফরগাঁওয়ে কর্মরত দৈনিক ইত্তেফাক প্রতিনিধি আতাউর রহমান মিন্টু ও যুগান্তর প্রতিনিধি তফাজ্জাল হোসেনকে আসামি করা হয়েছে। গফরগাঁও রেলওয়ে স্টেশনে প্রকাশ্যে টিকিট কালোবাজারি, ছিনতাই, পকেটমার এবং চলন্ত ট্রেন থেকে যাত্রী ফেলে হত্যা করা এসবের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় সংবাদ প্রকাশ করায় সাংবাদিকদের আসামি করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন স্থানীয় সাংবাদিকরা।

 


আরো সংবাদ