০৮ ডিসেম্বর ২০১৯

চট্টগ্রামে বিস্ফোরণের ঘটনায় কাজ শুরু তদন্ত কমিটির

-

চট্টগ্রাম নগরীর পাথরঘাটায় বিস্ফোরণে সাতজন নিহত হওয়ার ঘটনায় গঠিত জেলা প্রশাসনের পাঁচ সদস্যের ও সিএমপির তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি কাজ শুরু করেছে। দুর্ঘটনার প্রকৃত কারণ খুঁজে বের করার পাশাপাশি কোনো কর্তৃপক্ষের অবহেলা আছে কি-না তা খতিয়ে দেখবেন তারা। অন্য দিকে এ ঘটনায় দু’জনকে আসামি করে কোতোয়ালি থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
গত রোববার ঘটনার দিন সন্ধ্যায় কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি লিমিটেডর (কেজিডিসিল) চার সদস্যের তদন্ত কমিটি প্রাথমিক তদন্ত শেষে কেজিডিসিএলের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিয়েছে।
প্রতিবেদনে বলা হয়, গ্যাস লাইনের কোনো সমস্যা থেকে বিস্ফোরণের সূত্রপাত হয়নি। তাদের দাবি, সেপটিক ট্যাংক থেকে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে।
তবে বিতরণ কোম্পানির এ দাবির সাথে একমত নয় বিস্ফোরক অধিদফতর, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস। তাদের মত, গ্যাস লিকেজ থেকেই এ দুর্ঘটনা। পাশাপাশি লিকেজের আলামত পাওয়ার দাবিও করছে তারা। তারা বলছে, সেপটিক ট্যাংক বাইরে থাকায় তা থেকে বিস্ফোরণে ঘরের ভেতরে থাকা কারো আহত হওয়ার কথা নয়। আর ফায়ার সার্ভিস বলেছে, বদ্ধ ঘরে বিস্ফোরণের আগুন দীর্ঘস্থায়ী হওয়ার তথ্য ঠিক নয়। দুর্ঘটনার পর ভবনটিকে ঝুঁকিপূর্ণ ঘোষণা করে বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়েছে ফায়ার সার্ভিস। চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বেশ ক’টি কারণে ভবনটি ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। কোনো নিয়ম না মেনে এটি নির্মাণ করা হয়েছে। এ দিকে দুর্ঘটনায় আহত ৯ জন চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। এর মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আর একজনকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।
অন্য দিকে গ্যাস লাইন বিস্ফোরণের ঘটনায় দু’জনের নাম উল্লেখ করে ও তাদের অজ্ঞাত সহযোগীদের আসামি করে মামলা হয়েছে। বিস্ফোরণের ঘটনায় নিহত মাহমুদুল হকের স্ত্রী শাহিনা আক্তার সোমবার দুপুরে কোতোয়ালি থানায় এই মামলাটি দায়ের করেছেন বলে জানান ওসি মোহাম্মদ মহসীন। অবহেলাজনিত মৃত্যুর অভিযোগ এনে দণ্ডবিধির ৩০৪ (ক), ৩২৬ ও ৪২৭ ধারায় মামলাটি রেকর্ড করা হয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে দুই আসামির নাম জানায়নি পুলিশ।
উল্লেখ্য, গত রোববার চট্টগ্রাম নগরীর পাথরঘাটায় বড়–য়া ভবনে বিস্ফোরণে সাতজন নিহত হয়।
এ ঘটনায় আহত হয় ১৭ জন। ঘটনার পর থেকেই বিভিন্ন সংস্থা দুর্ঘটনার কারণ সম্পর্কে পরস্পরবিরোধী বক্তব্য দেয়া হচ্ছে।


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik