০৬ ডিসেম্বর ২০১৯

সাড়ে ৪ মাস পর ভিডিও প্রকাশ্যে রেফারিকে এসপি হারুনের মারধর

-

ঘটনাটি ছিল গত ২৯ জুন। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের শেখ রাসেল স্টেডিয়ামে প্রীতি ফুটবল খেলার আয়োজন করা হয়েছিল। স্থানীয় এমপি লিয়াকত হোসেন খোকা একাদশ ও এসপি হারুর অর রশিদ একাদশের মধ্যে খেলাটি অনুষ্ঠিত হয়। ওই সময় খেলার মাঠে প্রকাশ্যে রেফারিকে মারধর করেন এসপি হারুন ও তার সঙ্গীরা। আবার এ ঘটনা যাতে না ছড়ায় সে জন্যও উপস্থিত লোকজনকে শাসিয়ে যান হারুন। তবে এসপি হারুনকে নারায়ণগঞ্জ থেকে প্রত্যাহারের পর প্রায় সাড়ে চার মাস আগে রেফারিকে মারধরের ওই ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে।
ভিডিওটিতে দেখা যায়, প্রথমার্ধের খেলা শেষে দ্বিতীয়ার্ধে খেলার একপর্যায়ে এসপি হারুন অফসাইড থেকে একটি গোল দেন। আর সেটি রেফারির চোখে পড়লে তিনি অফসাইড দিয়ে গোল বাতিল করেন। এতে রেগে গিয়ে এসপি হারুন দৌড়ে এসে রেফারিকে লাথি মারেন। এ সময় এসপি একাদশের অন্য খেলোয়াড়রা রেফারিকে ঘিরে ফেলে মারধর শুরু করে; কিন্তু নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা অন্য পুলিশ সদস্যরা রেফারিকে না রক্ষা করে উল্টো এসপি হারুনকে রক্ষা করে মাঠ থেকে নিয়ে যান। অন্য দিকে মারধর থেকে বাঁচতে রেফারি দৌড়ে মাঠ ছেড়ে পালিয়ে যান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে উপস্থিত দর্শকরা মাঠে নেমে প্রতিবাদ জানাতে শুরু করলে পুলিশের সাথে দর্শকদেরও বাগি¦তণ্ডা হয়। সে সময় উপস্থিত দর্শকদের হুমকি দেয়া হয়Ñ এসব ঘটনা প্রকাশ করলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। গণমাধ্যমের কর্মীদের কাছ থেকেও ভিডিও দৃশ্য ধারণের মেমোরি কার্ড রেখে দেয়া হয়, যার ফলে তখন বিষয়টি ধামাচাপা পড়ে যায়। ওই খেলায় এসপি একাদশের কাছে ২-০ গোলে পরাজিত হয়েছিল এমপি একাদশ।


আরো সংবাদ




Paykwik Paykasa
Paykwik