১৬ নভেম্বর ২০১৯

প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

-

গত ৩ নভেম্বর নয়া দিগন্তে প্রকাশিত ‘মায়ের কাছে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে ছেলে কারাগারে’ শীর্ষক খবরের প্রতিবাদ জানিয়েছেন ভুক্তভোগী হামিদা বেগমের ছেলে মো: আনোয়ার হোসেন। এক লিখিত প্রতিবাদে তিনি দাবি করেছেন, সংবাদে যে বিষয় এবং ঘটনাটি উল্লেখ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন। তিনি তার মায়ের কাছে কখনো ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেননি কিংবা দোকান ঘরের তালা ভাঙেননি। সংবাদে যে দোকানের তালা ভাঙার কথা উল্লেখ করা হয়েছে সেখানে আনোয়ার হোসেন দীর্ঘ দিন ধরে জুতা তৈরির কারখানা পরিচালনা করে আসছে। তার দাবি, হামিদা বেগমের ছোট ছেলে কিছু সন্ত্রাসী দিয়ে আনোয়ার হোসেনের কারখানা ঘরের তালা ভেঙে দখল নেয়ার চেষ্টা করে এবং মেশিনপত্রের ক্ষতিসাধন করে। ৪৯/৩-বি নং লুৎফর রহমান লেনস্থ বাড়িটিসহ যাবতীয় সম্পত্তির প্রকৃত মালিক আনোয়ারের বাবা মরহুম আব্দুল খালেক। হামিদা বেগমের ছোট ছেলে মোশারফ হোসেন নিপ্পন পিতার ব্যবসায় প্রতিষ্ঠান খালেক ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কসপ অবৈধভাবে দখল করে নেয়। এই অন্যায় কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করলে মোশারফ হোসেন নিপ্পন মা হামিদা বেগমকে বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করাচ্ছেন। পারিবারিক বিরোধের এই বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলর একটি ফয়সালা করে দিলেও আনোয়ার ছাড়া অন্যরা সিদ্ধান্ত মানেননি।
প্রতিবেদকের বক্তব্য : সংবাদে যা উল্লেখ করা হয়েছে তা প্রতিবেদকের নিজস্ব কোনো বক্তব্য নয়। হামিদা বেগম তার বড় ছেলে আনোয়ারের বিরুদ্ধে দায়ের মামলায় যা উল্লেখ করেছেন সংবাদে তাই লেখা হয়েছে। তার ছোট ছেলে মোশারফ হোসেন নিপ্পন নয়া দিগন্তকে বলেন, ৬ তলা বাড়িটি তার মায়ের নামে। বড় ভাই আনোয়ার হোসেন হুমকি-ধমকি দিয়ে ভাড়াটিয়াদের কাছ থেকে মাকে ভাড়া আদায় বন্ধ করে দেন। দুই মাস ভাড়া আদায় বন্ধ ছিল। তিনি বলেন, বড় ভাই আনোয়ার হোসেন নিচের দুটি দোকানে জোর করে তালা দিয়ে রেখেছেন। এখনো দোকান তালাবদ্ধ অবস্থায় আছে। বিভিন্ন সময় আমার বড় ভাই স্থানীয় নাসির উল্লাহ ওয়ালিদ ও তার লোকজন নিয়ে মাকে ভয়ভীতি দেখিয়ে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেছিল। এজন্য মা বাধ্য হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন। ওই মামলায় আনোয়ার হোসেন গত ১৭ অক্টোবর গ্রেফতার হন। প্রায় দুই সপ্তাহ কারাগারে থাকার পর তিনি জামিন নিয়ে বের হয়ে আসেন। মোশারফ হোসেন নিপ্পন বলেন, আনোয়ার হোসেন একটি অভিযোগ দেয়ার পর স্থানীয় কাউন্সিলর আমাদের ডেকেছিলেন। তবে কাউন্সিলর কোনো সমাধান করেননি।


আরো সংবাদ

যথাযথ মর্যাদায় ভেটারানস ডে উদযাপিত নাশকতা কি না খতিয়ে দেখা হচ্ছে : রেলমন্ত্রী বাবরি মসজিদ রক্ষায় মুসলিমদেশগুলোকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে : ইসলামী আন্দোলন কুমিল্লায় ২ কিশোর ও গেটম্যানের বুদ্ধিমত্তায় রক্ষা পেল যাত্রীবাহী ট্রেন রাষ্ট্রপতি দেশে ফিরেছেন সাভার উপজেলা আ’লীগের সম্মেলনে : হাসিনা-সভাপতি রাজিব-সাধারণ সম্পাদক প্রধানমন্ত্রী দুবাই এয়ারশোতে যোগ দিতে আমিরাত যাচ্ছেন আজ ঢাবি থেকে ২৬ জনের পিএইচডি লাভ ইসলামী আন্দোলনের কর্মীদের অবসর গ্রহণের সুযোগ নেই : মহানগর জামায়াত অর্থ মন্ত্রণালয়ের সম্মতি জ্ঞাপনপত্র প্রাথমিক শিক্ষকদের প্রত্যাখ্যান তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিলো কমিটি

সকল