১৭ নভেম্বর ২০১৯
ভেজাল প্যারাসিটামলে শিশুমৃত্যু

ওষুধ প্রশাসনের দুই কর্মকর্তাকে চাকরিতে নিষেধাজ্ঞা বহাল

-

রিড ফার্মার ভেজাল প্যারাসিটামল খেয়ে ২৮ শিশুমৃত্যুর মামলায় অভিযুক্ত ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের দুই কর্মকর্তার দায়িত্ব পালনে হাইকোর্টের দেয়া নিষেধাজ্ঞা বহাল রেখেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। ওই দুই কর্মকর্তা হলেন ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের উপপরিচালক আলতাফ হোসেন ও সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম।
গত ১৮ জুলাই হাইকোর্ট বলেছিলেন, স্বাস্থ্যসচিব ও ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক যদি মনে করেন, তাদের অন্য কোথাও পদায়ন করবেন, তবে তা তারা করতে পারবেন। সেই আদেশ স্থগিত চেয়ে ওই দুই কর্মকর্তা আপিল বিভাগের চেম্বার আদালতে আবেদন করলে গত ২৩ জুলাই আদালত হাইকোর্টের আদেশটি স্থগিত করে দেন।
রিটকারী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশ গত ৮ আগস্ট চেম্বার আদালতের আদেশটি প্রত্যাহার চেয়ে আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে আবেদন করেন। এতে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন চার বিচারকের আপিল বেঞ্চ গতকাল সেই আবেদনটি মঞ্জুর করায় হাইকোর্টের আদেশই বহাল থাকল বলে জানান রিটকারী পক্ষের আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।
ভেজাল প্যারাসিটামল সিরাপ খেয়ে শিশু মৃত্যুর ঘটনায় রিড ফার্মার বিরুদ্ধে এক দশক আগের এক মামলার রায় হয় ২০১৬ সালের ২৮ নভেম্বর। সেই রায়ে পাঁচ আসামির সবাইকে খালাস দেন ঢাকার ওষুধ আদালতের বিচারক আতোয়ার রহমান। রায়ে বিচারক বলেন, মামলার বাদি ও তদন্ত কর্মকর্তা ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের তখনকার সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম ও উপ-পরিচালক আলতাফ হোসেনের ‘অযোগ্যতা ও অদক্ষতার কারণে’ রাষ্ট্রপক্ষ অভিযোগ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে।
২০১৭ সালের ২৩ সেপ্টেম্বর ওই দুই কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলেও চলতি বছরের ৩১ মার্চ ‘তিরস্কার’ করে তাদের সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করে নেয় ওষুধ প্রশাসন। দুই কর্মকর্তা তখন আবার চাকরি শুরু করেন। এর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে হাইকোর্ট গত ১৮ জুলাই ওই দুই কর্মকর্তার চাকরিতে নিষেধাজ্ঞা দেন। সাময়িক বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত কেন অবৈধ ও আইনগত কর্তৃত্ব বহির্ভূত ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে একটি রুলও জারি করা হয়। আপিল বিভাগ চেম্বার আদালতের আদেশ প্রত্যাহার করে নেয়ায় এখন হাইকোর্টের ওই নিষেধাজ্ঞাই বহাল থাকল।


আরো সংবাদ