১৬ অক্টোবর ২০১৯

রাজধানীতে ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৫ পুলিশ সদস্য রিমান্ডে

-

রাজধানীতে মরননেশা ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ৫ পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন। রোববার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দক্ষিণখান থানার হাজী ক্যাম্পে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তাদের হেফাজত থেকে সাড়ে ৫০০ ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়।
গতকাল সোমবার ৫ পুলিশ সদস্যকে আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ডের আবেদন করা হয়। আদালত তিনজনকে তিন দিনের এবং দুইজনকে দুই দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন।
গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেনÑ ১ম আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের কনস্টেবল প্রশান্ত মণ্ডল, নায়েক মো: জাহাঙ্গীর আলম, কনস্টেবল মো: রনি মোল্লা, কনস্টেবল মো: শরিফুল ইসলাম ও গুলশান থানার সহকারী সাব ইন্সপেক্টর মাসুদ আহমেদ মিয়াজী।
গতকাল ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (মিডিয়া অ্যান্ড পাবলিক রিলেশনস) উপ-পুলিশ কমিশনারের দফতর থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, উত্তরা পূর্ব থানা সূত্রে জানানো হয়, ১৫ সেপ্টেম্বর ১ম আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের এসআই মো: আবু জাফর সঙ্গীয় ফোর্সসহ দক্ষিণখান থানার হাজী ক্যাম্প এলাকায় মাদকদ্রব্য উদ্ধার ও বিশেষ অভিযান পরিচালনার সময় জানতে পারেন উত্তরার ১ম এপিবিএন ১ নম্বর ব্যারাক ভবনে পুলিশ সদস্যরা ইয়াবা ভাগ বাটোয়ারা করছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে বিকেলে ব্যারাক ভবনে পৌঁছে প্রশান্ত রনি ও শরিফুলকে পায়। তাদের শরীর তল্লাশি করে প্রশান্তের ফুল প্যান্টের পকেট থেকে ১৫৮ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেন। প্রশান্তকে জিজ্ঞাসাবাদের পর তার ব্যবহৃত ট্রাংক থেকে আরো ৩৯৪ পিস ইয়াবাসহ প্রশান্তের কাছ থেকে মোট ৫৫২পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করা হয়। এ সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত কনস্টেবল শরিফুলের হেফাজত থেকে ইয়াবা বিক্রির নগদ ১৫ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়। শরিফুল জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, সে কনস্টেবল রনির কাছ থেকে ১৮ হাজার ৫০০ টাকায় ১৫০ পিস ইয়াবা কিনেছে। গ্রেফতারকৃত প্রশান্তকে জিজ্ঞাসাবাদে আরো জানায়, গত ১১ সেপ্টেম্বর গুলশান থানার গুদারাঘাট এলাকায় চেক পোস্টে ডিউটি করার সময় একটি মোটরসাইকেলকে সিগন্যাল দেয় এবং সন্দেহ হলে তল্লাশি করে মোটরসাইকেল আরোহীর কাছ থেকে ইয়াবা উদ্ধার করে মোটরসাইকেল আরোহীকে পরস্পর যোগসাজশে ছেড়ে দেয়া হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবা থেকে এএসআই মাসুদ আহমেদ মিয়াজী ২০০পিস এবং নায়েক জাহাঙ্গীর আলম ১৫০পিস ইয়াবা নিজের কাছে রেখে দেয়। এ ঘটনার পরই উত্তরা পূর্ব থানায় নিয়মিত মামলা দায়ের করা হয়। গতকাল ৫ পুলিশ সদস্যকে ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করে ঢাকার আদালতে প্রেরণ করা হলে আদালত কনস্টেবল প্রশান্ত, এএসআই মাসুদ ও নায়েক জাহাঙ্গীরকে ৩ দিনের এবং কনস্টেবল রনি ও শরিফুলকে ২ দিনের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum