২৪ আগস্ট ২০১৯

পর্দা নামল জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনীর

-

শেষ হলো জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনী। গতকাল সন্ধ্যায় সমাপনী অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে পর্দা নামল ২১ দিনব্যাপী অনুষ্ঠিত ২৩তম জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনীর। শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে আয়োজিত সমাপনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন শিল্পী মোস্তফা জামান ও শিল্পী শাওন আকন্দ। শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় আলোচক ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অধ্যাপক মোস্তাফিজুল হক।
শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে গত ১ জুলাই ২৩তম জাতীয় চারুকলা প্রদর্শনী শুরু হয়। এতে ৩১০ জন শিল্পীর ৩২২টি শিল্পকর্ম স্থান পায়। যার মধ্যে ছিল চিত্রকলা, ছাপচিত্র, ভাস্কর্য, কারুশিল্প, স্থাপনা ও ভিডিও আর্ট মাধ্যমের শিল্পকর্ম। এ ছাড়াও ছিল কৃৎকলা (পারফরমেন্স আর্ট)।
অনুষ্ঠান শুরুর দিনে প্রদর্শনীতে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে আট বিজয়ীর হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। এর মধ্যে শ্রেষ্ঠ শিল্পকর্মের জন্য দুই লাখ টাকা, এ ছাড়া বিভাগীয় চিত্রকলা, ভাস্কর্য, ছাপচিত্র, নিউ মিডিয়া এ চারটিতে সম্মানসূচক পুরস্কার প্রদান করা হয়। যার আর্থিক মূল্যমান এক লাখ টাকা। ছিল এক লাখ টাকা অর্থমূল্যের বেঙ্গল ফাউন্ডেশন পুরস্কার, ২০ হাজার টাকা মূল্যমানের দীপা হক পুরস্কার ও ৫০ হাজার টাকার মূল্যের চিত্রশিল্পী কাজী আনোয়ার হোসেন পুরস্কার।
আয়োজকরা জানান, এবার প্রদর্শনীতে অংশ নেয়ার জন্য ৮৫০ জন শিল্পী আবেদন করেছিলেন। প্রাথমিক পর্যায়ে শিল্পকর্ম বাছাই কমিটিতে ছিলেন শিল্পী নাসরিন বেগম, শিল্পী মোস্তাফিজুল হক, শিল্পী শেখ সাদী ভূইয়া, শিল্পী মোহাম্মদ ইকবাল ও শিল্পী আনিসুজ্জামান। তারা আবেদনকৃত শিল্পীদের মধ্যে ৩১০ জন শিল্পীর ৩২২টি শিল্পকর্ম বাছাই করেন। পুরস্কারের জন্য সেরা শিল্পকর্ম বাছাইয়ে বিচারক হিসেবে ছিলেন শিল্পী আবদুস শাকুর শাহ, স্থপতি শামসুল ওয়ারেস, শিল্পী রণজীৎ দাস, শিল্পী ফরিদা জামান ও শিল্পী মোহাম্মদ ইউনুস।


আরো সংবাদ




mp3 indir bedava internet