১৫ অক্টোবর ২০১৯

জাজিরায় কলেজছাত্রী ধর্ষণ মামলায় মেয়র পুত্রের জামিন বাতিল

-

শরীয়তপুরের জাজিরায় কলেজছাত্রী ধর্ষণ মামলায় অভিযুক্ত জাজিরা পৌরসভার মেয়র পুত্র মাসুদ গ্রেফতারের আট দিনের মাথায় জামিনে বের হয়ে আসে। এরপর তিন দিনের মাথায় তাকে ফের কারাগারে পাঠিয়েছেন দায়রা জজ আদালতের বিচারক। গতকাল দুপুরে শরীয়তপুর আদালতে হাজির হলে তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে ফের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন জেলা ও দায়রা জজ প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস। এর আগে গত ৩০ জুন গ্রেফতার হয় মাসুদ। মাত্র আট দিনের মাথায় জেলা ও দায়রা জজের দায়িত্বে থাকা অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মরিয়ম মুন মঞ্জুরি অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দিয়েছিলেন মাসুদকে। জামিনে বের হয়ে সে মামলার ভিকটিমকে মামলা তুলে নেয়ার হুমকি দিচ্ছে এমন অভিযোগ এনে জাজিরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন ভিকটিমের বাবা। এ ছাড়া মাসুদ বেপারিকে জামিন দেয়ার পর ফুঁসে উঠে শরীয়তপুরের বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থী ও সুশীলসমাজের লোকজন। তারা ১০ জুলাই শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।
ধর্ষক মাসুদ আদালত থেকে জামিন পাওয়ার পর ধর্ষিতা মেয়েটির পরিবারকে মামলা তুলে নিতে নানাভাবে হুমকি দিতে থাকে। ফলে আতঙ্কে দিন কাটাচ্ছিল মেয়েটির পরিবার এমন অভিযোগ এনে ১০ জুলাই জাজিরা থানায় ঘটনার শিকার ওই মেয়েটির বাবা এবং মামলার বাদি নিরাপত্তা চেয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন। এর আগে একই দিন বুধবার বিভিন্ন কলেজের শিক্ষার্থী, জাতীয় মহিলা সংস্থা ও বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন, আইনজীবীসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার লোকজন শরীয়তপুর জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে শরীয়তপুর আদালতে হাজির হলে তার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে ফের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন জেলা ও দায়রা জজ প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস। এ সময় আদালতে ঘটনার শিকার ওই কলেজছাত্রী ও তার মা-বাবা উপস্থিত ছিলেন।
শরীয়তপুর জেলার রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী মির্জা হজরত আলী বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় অভিযুক্ত জাজিরা পৌরসভার মেয়রের ছেলে মাসুদ বেপারীকে অন্তর্বর্তীকালীন জামিন দেয়া হয়েছিল। বৃহস্পতিবার তার আদালতে হাজিরা দেয়ার ধার্য তারিখ ছিল। অভিযুক্ত মাসুদ বেপারী আদালতে হাজিরা দিতে এলে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক প্রশান্ত কুমার বিশ্বাস তার জামিন বাতিল করে তাকে আবারো জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন।


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum