১৬ জুলাই ২০১৯

জলাবদ্ধতা-যানজটে রাজধানীতে চরম ভোগান্তি

-

গতকালের মাত্র আধাঘণ্টার বৃষ্টিতে জলাবদ্ধতা সৃষ্টি হয়েছিল রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে। এ পানি সরতে দীর্ঘসময় লেগে যায়। পাশাপাশি বিভিন্ন সড়কে রাস্তা খোঁড়াখুঁড়ি করায় জলাবদ্ধতা ও যানজটে গতকাল দিনভর চরম ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছে নগরবাসীকে।
সকাল ১১টার দিকে হঠাৎই আকাশ কালো করে চারিদিক অন্ধকারে ঢেকে যায়। এর কিছুক্ষণই পরই নামে বৃষ্টি। একটানা প্রায় আধাঘণ্টা ধরে চলে বৃষ্টি। মুষলধারায় বৃষ্টি নামায় তীব্র গরমে শান্তি নেমে আসে। ঠাণ্ডার পরশ ছড়িয়ে পড়ে সবখানে। তবে বিপাকে পড়েন বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার কর্মব্যস্ত মানুষ। বৃষ্টিতে রাজধানীর বিভিন্ন সড়কে পানি জমে যায়। গুলিস্তান, বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউ, বঙ্গভবন সংলগ্ন সড়ক, মতিঝিল, আরামবাগ, মিরপুর, ধানমন্ডি, পুরান ঢাকার বিভিন্ন সড়ক, এমনকি সচিবালয়ের মধ্যেও হাঁটুপানি জমে যায়। গুলিস্তানে পানির মধ্য দিয়ে গাড়ি চলাচলে ঢেউয়ের সৃষ্টি হতে দেখা যায়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন পথচারীসহ সব স্তরের মানুষ। অনেকের পোশাক পানিতে ভিজে যায়। আবার অনেকের পোশাকে ময়লা পানি লেগে ব্যবহার অনুপযোগী হয়ে পড়ে। বঙ্গভবন সংলগ্ন পশ্চিম দিকের সড়কে সম্প্রতি ড্রেন নির্মাণ করেছে সিটি করপোরেশন। কিন্তু তারপরও গতকালের বৃষ্টিতে ফ্লাইওভারের নিচের মোড়ে প্রায় হাঁটুপানি জমে যেতে দেখা যায়। এ কারণে ওই সড়ক দিয়ে চলাচলকারী বেশকিছু মোটরসাইকেল ও সিএনজি নষ্ট হয়ে যায়। অনেকে রিকশা থেকে পড়ে দুর্ঘটনার শিকার হন।
এ দিকে বর্তমানে রাজধানীতে মেগা প্রকল্প মেট্রোরেলের নির্মাণকাজ চলছে। উত্তরা, মিরপুর, আগারগাঁও হয়ে ফার্মগেট, শাহবাগ, টিএসসি, দোয়েল চত্বর ঘুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে দিয়ে মতিঝিল পর্যন্ত এ মেট্রোরেলের বিস্তৃতি। এ কারণে এ সব সড়কের বেশির ভাগ জায়গায় খোঁড়াখুঁড়ি চলছে। এ ছাড়া রাস্তার অর্ধেক দখলে থাকায় এসব সড়ক ব্যবহারে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। যানজট সবসময় লেগেই থাকে।
সম্প্রতি মতিঝিলের আশপাশের অনেকগুলো সড়কে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও ঢাকা ওয়াসার উন্নয়ন কাজ চলছে। এ কারণে কোথাও রাস্তায় উপর বড় বড় পাইপ ফেলে রাখা হয়েছে। আবার কোথাও রাস্তা কেটে রাখা হয়েছে। এতে রাস্তা সরু হয়ে যাওয়ায় প্রতিদিন যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে এসব সড়কে। এ ছাড়া গতকাল সপ্তাহের শেষ দিন হওয়ায় অফিস ছুটির পর থেকেই রাজধানীর প্রতিটি সড়কে ভয়াবহ যানজট সৃষ্টি হয়। মতিঝিল থেকে শাহবাগ, শাহবাগ থেকে ফার্মগেট, মিরপুর রোড, মুগদা বিশ্বরোড, মালিবাগ থেকে উত্তরাগামী সড়ক, মগবাজার থেকে মহাখালী-বনানি সড়কসহ অলিগলির প্রতিটি সড়কেই ব্যাপক যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে নগরবাসীকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা সড়কে বিভিন্ন পরিবহনে কাটাতে হয়েছে।
উত্তর বাড্ডা থেকে সায়েদাবাদ আসা রফিকুল ইসলাম বলেন, তুরাগ পরিবহনে উঠেছি বেলা ২টায়। সায়েদাবাদ পৌঁছাতে প্রায় ৫টা বেজে গেছে। আসার পথে প্রতিটি মোড়েই যানজটে পড়েছে বাস। এ ছাড়া কমলাপুর স্টেডিয়াম সংলগ্ন টিটিপাড়া এলাকায় এলে প্রায় আধাঘণ্টা বসে থাকতে হয়। একইভাবে মগবাজার-বনানি সড়ক, শাহবাগ থেকে ফার্মগেট, মিরপুর রোডসহ প্রতিটি সড়কেই বাসযাত্রীসহ সব ধরনের গাড়ির যাত্রীকে ঘণ্টার পর ঘণ্টা যানজটের শিকার হতে হয়।


আরো সংবাদ




gebze evden eve nakliyat instagram takipçi hilesi