২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

বর্ণাঢ্য আয়োজনে ডিআরইউর দুই যুগপূর্তি পালন

-

উৎসবমুখর পরিবেশে ঢাকায় কর্মরত পেশাদার সাংবাদিকদের বৃহৎ সংগঠন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) প্রতিষ্ঠার দুই যুগ পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে সেগুন বাগিচার ডিআরইউ চত্বর সাজানো হয় বর্ণিল সাজে। ভবনগুলোতে আলোকসজ্জা করা হয়। গতকাল বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে ছিল র্যালি, আলোচনা সভা, কেক কাটা, ইফতার ও নৈশভোজ। সকালে জাতীয় ও ডিআরইউর নিজস্ব পতাকা উত্তোলন এবং বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে উৎসবের সূচনা হয়। পরে ডিআরইউ চত্বর থেকে এক বর্ণাঢ্য র্যালি বের হয়। র্যালিটি সেগুন বাগিচার বিভিন্ন সড়ক ঘুরে আবার নিজস্ব কার্যালয়ে এসে শেষ হয়। বিকেলে ডিআরইউ সভাপতি ইলিয়াস হোসেনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খানের সঞ্চালনায় আলোচনা ও ইফতারে অতিথি ছিলেন, তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ, শিক্ষামন্ত্রী ড. দ্বীপু মনি, জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি শওকত মাহমুদ, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, মহাসচিব এম আব্দুল্লাহ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন সভাপতি আবু জাফর সূর্য্য, সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরী, ডিইউজে সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম, জাতীয় প্রেস ক্লাব সভাপতি সাইফুল আলম, ডিআরইউ সাবেক সভাপতি শাজাহান সরদার, সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, সাইফুল ইসলাম, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদ, মুরসালিন নোমানী, সৈয়দ শুকুর আলী শুভ প্রমুখ। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন, ডিআরইউ কার্যনির্বাহী কমিটির যুগ্ম সম্পাদক জামিউল আহসান শিপু, অর্থ সম্পাদক জিয়াউল হক সবুজ, সাংগঠনিক সম্পাদক আফজাল বারী, দফতর সম্পাদক জিহাদ চৌধুরী, নারী বিষয়ক সম্পাদক সাজিদা ইসলাম পারুল, তথ্যপ্রযুক্তি ও প্রশিক্ষণ সম্পাদক আবদুল হাই তুহিন, ক্রীড়া সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শামীম, সাংস্কৃতিক সম্পাদক এমদাদুল হক খান, আপ্যায়ন সম্পাদক এইচ এম আকতার, কল্যাণ সম্পাদক কাওসার আজম, নির্বাহী সদস্য খালিদ সাইফুল্লাহ, বাদল নূর, মাকসুদুল হাসান, নঈমুদ্দিন, রাশেদুল হক, শাহাবুদ্দিন মাহতাব প্রমুখ।
এরশাদের অভিনন্দন : ডিআরইউর দুই যুগপূর্তিতে সংগঠনটির নেতৃবৃন্দ এবং সব সদস্যকে প্রাণঢালা অভিনন্দন জানিয়েছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি, জাতীয় সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। গতকাল এক অভিনন্দন বার্তায় সাবেক রাষ্ট্রপতি এরশাদ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির উত্তরোত্তর সাফল্য এবং উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ কামনা করে বলেন, ডিআরইউ পেশাদার সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ রেখেছে। সাংবাদিকতা পেশার উন্নয়ন এবং উৎকর্ষ সাধনে অনন্য ভূমিকা পালন করা যাচ্ছে। সাংবাদিকদের স্বার্থ রক্ষায় ডিআরইউ উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। তিনি আশা প্রকাশ করে বলেন, দেশ ও মানুষের অধিকারের প্রশ্নে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সদস্যদের সোচ্চার ভূমিকা অব্যাহত থাকবে। একটি সুখী, সম্মৃৃদ্ধশালী নতুন বাংলাদেশ গড়তে সাংবাদিক সমাজ কখনোই আপস করবে না।
ডিআরইউর দুই যুগপূর্তিতে অনুরূপ অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানান জাতীয় পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি, পার্টির সিনিয়র কো-চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা বেগম রওশন এরশাদ এবং পার্টির মহাসচিব ও বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মসিউর রহমান রাঙ্গা।


আরো সংবাদ