১৭ আগস্ট ২০১৯

নারীদের জন্য পৃথক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গঠনে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি পরিহার করুন : কওমি ফোরাম

কওমি ফোরামের সেমিনারে অতিথিরা : নয়া দিগন্ত -

নারীদের জন্য পৃথক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থা করা, পরিচালনা কমিটি গঠনে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি পরিহার ও শিক্ষক নিয়োগে রাজনৈতিক বিবেচনার মূলোৎপাটন করার দাবি জানিয়েছে কওমি ফোরাম। গতকাল জাতীয় প্রেস ক্লাবে আয়োজিত এক সেমিনারে ৭ দফা দাবি জানানো হয়।
কওমি ফোরাম সমন্বয়ক মাওলানা মামুনুল হকের সভাপতিত্বে সেমিনারে আলোচনায় অংশ নেন : মাওলানা খালিদ সাইফুল্লাহ আইয়ুবী, মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজী, মাওলানা হাসান জামিল, মুফতি এনায়েতুল্লাহ, মুফতি মুরতাজা হাসান ফয়েজী মাসুম, মুফতি তোফায়েল গাজালী, মাওলানা ফজলুর রহমান, মাওলানা ইয়াকুব উসমানী, মুফতি দ্বীন মুহাম্মদ, মাওলানা মাহবুব নবাবগঞ্জী, মুফতি আবুল কালাম তৈয়্যবী, মুফতি রিজওয়ান রফিকী, মাওলানা ইনআমুল হক আইয়ুবী, মুফতি আখতার হাফেজ্জী প্রমুখ।
সেমিনারে বলা হয়, নারীর প্রতি সহিংসতা বাড়ছে। সম্প্রতি গণমাধ্যমে প্রকাশিত এক জরিপে দেখা গেছে ১০০ দিনে ৩৯৬ জন নারী শিশু পাশবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে। তবে দুঃখজনক বিষয় হয় যখন আমরা এ ধরনের নৈতিক স্খলনের খবর কোনো শিক্ষাঙ্গন থেকে পাই। স্কুল, কলেজ, ইউনিভার্সিটির শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের নৈতিক অবক্ষয়ের বিষয়টি বেশ পুরনো হলেও ইদানীং মাদরাসায় সংঘটিত কয়েককটি অনৈতিক ঘটনার খবর বেশ আলোচিত হয়েছে। মূলত নৈতিক অবক্ষয়ের কারণগুলো ছড়িয়ে পড়েছে গোটা সমাজে। এর থেকে বাদ যায়নি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানও। এই সমাজ এবং দেশকে বাঁচাতে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শতভাগ নৈতিকতা ফিরিয়ে আনতে বিশেষ পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে।
অন্য দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে : কেবল জীবিকা নির্বাহের খাতিরে চাকরিদাতাদের শিক্ষকতা থেকে সরিয়ে দেয়া, শহরকেন্দ্রিক গণপরিবহনগুলো দুই দরজাবিশিষ্ট করা, ফরজ বিধান পর্দার প্রতি নারী-পুরুষ নির্বিশেষে সবাইকে উদ্বুদ্ধ ও উৎসাহিত করা, শিক্ষার সর্বস্তরে ধর্ম ও নেতিকতার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা এবং অশ্লীল নাটক, সিনেমা সম্প্রচার ইত্যাদি বন্ধ করা।


আরো সংবাদ




bedava internet