২৩ মে ২০১৯

কারাবন্দী আরমানের সংশ্লিষ্ট মামলার নথি তলব ও রুল জারি

-

বিনা দোষে ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হয়ে তিন বছর ধরে কারাভোগ করা রাজধানী পল্লবীর বেনারসির কারিগর মো: আরমানের (৩৬) মামলার নথি তলব করেছেন হাইকোর্ট। সংশ্লিষ্ট মামলার যাবতীয় নথিপত্র সাত দিনের মধ্যে পাঠাতে মহানগর দায়রা জজকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।
মামলার নথি তলবের পাশাপাশি রুলও জারি করেছেন আদালত। রুলে আরমানকে আটক রাখা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তাকে কেন মুক্তি দেয়া হবে না, তাকে হাইকোর্টে হাজির করার কেন নির্দেশ দেয়া হবে না এবং তাকে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তা জানতে চেয়েছেন আদালত।
স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের মহাপরিদর্শক, কাশিমপুর কারাগারের সুপারিনটেনডেন্ট ও পল্লবী থানার ওসিকে আগামী ১০ দিনের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আদেশের জন্য আগামী ৬ মে দিন ধার্য রেখেছেন আদালত।
বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো: খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ গতকাল রুলসহ এ আদেশ দেন।
আদালতে রিটের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন আইনজীবী ব্যারিস্টার মো: হুমায়ন কবির পল্লব, সঙ্গে ছিলেন আইনজীবী মোজাম্মেল হক ও মাজেদুল কাদের। রাষ্ট্রপক্ষে শুনানিতে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মোতাহার হোসেন ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল মো: মিজানুর রহমান।
‘কারাগারে আরেক জাহালম’ শিরোনামে একটি জাতীয় দৈনিকে প্রকাশিত এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন যুক্ত করে গত রোববার হাইকোর্টে রিটটি করে ‘ল’ অ্যান্ড লাইফ ফাউন্ডেশন।
ওই পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, পল্লবীর বেনারসি কারিগর মো: আরমান নির্দোষ হয়েও ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি হিসেবে গত ৩ বছর ধরে কারাভোগ করছেন। রাজধানীর পল্লবী থানার একটি মাদক মামলায় ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি মাদক কারবারি শাহাবুদ্দিন বিহারি এ মামলার প্রকৃত আসামি। কিন্তু তার পরিচয়ে, তার পরিবর্তে সাজাভোগ করছেন মো: আরমান।
শুধু বাবার নামে মিল থাকায় পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে শাহাবুদ্দিন নামে আদালতে সোপর্দ করেছে বলে জোর অভিযোগ করেছে তার পরিবার। অন্যদিকে প্রকৃত আসামি শাহাবুদ্দিন কারাগারের বাইরে দিব্যি মাদক কারবার চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।
পুলিশের ভুলে মৃত ইয়াছিন ওরফে মহিউদ্দিনের ছেলে শাহাবুদ্দিনের পরিবর্তে দীর্ঘ ৩ বছর ধরে কারাগারে মানবেতর জীবন যাপন করছেন মো: আরমান। শুধু বাবার নামে (মৃত ইয়াছিন) মিল থাকায় শাহাবুদ্দিনের বদলে পল্লবীর ১৩ হাটস, ব্লক-এ, সেকশন-১০ তেজগাঁও নন লোকাল রিলিফ ক্যাম্পের বাসিন্দা আরমানকে বিনা অপরাধে সাজা ভোগ করতে হচ্ছে।
এর আগে গত ১৮ এপ্রিল একটি জাতীয় দৈনিকে ‘কারাগারে আরেক জাহালম’ শিরোনামে প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদন সংযুক্ত করে রিট আবেদনটি দায়ের করা হয়। প্রতিবেদনে বলা হয়, অপরাধী না হয়েও পাটকলশ্রমিক জাহালমকে জালিয়াতির ৩৩ মামলার আসামি হয়ে ৩ বছর কারাভোগ করতে হয়েছিল। শেষ পর্যন্ত উচ্চ আদালতের হস্তক্ষেপে তিনি কারামুক্ত হন।


আরো সংবাদ




agario agario - agario