২০ আগস্ট ২০১৯

কাজী ভুয়া, কাবিন নামাও ভুয়া অথচ জেল খাটছেন ব্যবসায়ী

-

যে বিবাহ রেজিস্ট্রারের নাম উল্লেখ করা হয়েছে সরকারি নিবন্ধে ওই নামে কোনো রেজিস্ট্রার (কাজী) নেই। মামলার এজাহারে বাদির যে ঠিকানা উল্লেখ আছে, ওই ঠিকানায় ওই নামের কোনো নারী কোনো দিন ছিলেন না। আদৌ ওই নামে কোনো নারী আছেন কি না তা নিয়েও যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। অথচ তার দায়ের করা যৌতুক মামলায় জেল খাটছেন বরিশালের ব্যবসায়ী সাজ্জাদুল হক সাজু।
বরিশালের কোতোয়ালি থানা পুলিশ সাজুকে (৩৫) গত ১৫ এপ্রিল গ্রেফতার করে। গ্রেফতারের পর তিনি জানতে পারেন, রুনা এক নারী তার স্ত্রী দাবি করে তার বিরুদ্ধে যৌতুক মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ওই দিন বরিশাল মহানগর পুলিশের দক্ষিণ বিভাগের ডিসি ও কোতোয়ালি থানার ওসির সাথে যোগাযোগ করা হলে তারা জানান, সাজুর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা আছে। ওই পরোয়ানা বলেই সাজুকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। ২০১৫ সালে রুনাকে সাজু বিয়ে করেছে বলে মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়। এজাহারে উল্লেখ করা হয় বিয়ের পর সাজু তার কাছে যৌতুক দাবি করে আসছিল। যৌতুক না দেয়ায় তাকে মারধর করা হয়। ওই মামলায় আদালত গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন।
সাজুর পরিবার জানায়, সাজু বরিশালে ব্যবসা করেন। সেখানে তাদের পরিবারের একাধিক প্রতিষ্ঠান রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানগুলো দেখাশোনা করেন এবং স্ত্রী-সন্তানসহ পরিবারের সাথেই বসবাস করেন। তিনি বর্তমানে বরিশাল জেলহাজতে রয়েছেন।
এ দিকে সাজুর বিরুদ্ধে মামলার এই বিষয়ে খোঁজ নেয়া শুরু করেন তার বাবা মাসুদুল হক এনাম। তিনি আদালতে গিয়ে মামলার নথিপত্র উদ্ধার করে সেই নথি অনুযায়ী বিয়ের কাবিন নামা সংগ্রহ করেন। ওই কাবিন নামায় বিয়ে রেজিস্ট্রি অফিস হিসেবে উল্লেখ রয়েছে লালমাটিয়া রেজিস্ট্রি অফিস। কাজীর নাম উল্লেখ করা হয়েছে গোলাম কিবরিয়া। লালমাটিয়া রেজিস্ট্রি অফিসে গিয়ে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ওই নামে সেখানে কোনো বিবাহ রেজিস্ট্রার (কাজী) নেই। আর যে কাবিন নামা দেয়া হয়েছে তা রেজিস্টারে উল্লেখ নেই। ওই এলাকার কাজী ইউসুফ চৌধুরী বলেছেন, বিয়ে এবং কাজী দু’টোই ভুয়া। ঢাকা জেলা রেজিস্ট্রার দীপক কুমার সরকার বলেছেন, এরকম কিছু ভুয়া বিবাহ ও তালাক প্রায়ই তাদের কাছে আসে। এর সাথে একটি সিন্ডিকেট জড়িত।
রুনার ঠিকানা উল্লেখ করা হয়েছে, কেরানীগঞ্জের আরশিনগরের বি ব্লকের এক নম্বর রোডের ৫ নম্বর হোল্ডিংয়ে। ওই ঠিকানার আদৌ কোনো অস্তিত্ব নেই। আরশিনগরের প্রধান সড়কটিই অলিখিতভাবে এক নম্বর সড়ক হিসেবে গণ্য হয়। কিন্তু সেখানে কোনো ব্লক নম্বর বা হোল্ডিং নম্বর নেই। ওই এলাকার বেশ কিছু বাড়িতে ঘুরে রুনা ও তার পরিবারের সন্ধান করা হয়। কিন্তু ওই নামে ওই এলাকায় কোনো নারীকে পাওয়া যায়নি।
সাজুর আইনজীবী কামাল বিশ^াস বলেছেন, নিয়ম অনুযায়ী আবেদনকারী রুনার ভোটার পরিচয়পত্র দেয়ার কথা। কিন্তু কেস ডকুমেন্টে ওই পরিচয়পত্র বা আবেদনকারীর কোনো ছবি নেই। মামলার নথিতে আবেদনকারিণীর আইনজীবীর স্বাক্ষর রয়েছে। কিন্তু আইনজীবীকেও এখনো শনাক্ত করা যায়নি।
সাজুর বাবা গতকাল নয়া দিগন্তকে বলেন, তাদের পরিবার এখন খুব অস্থিরতার মধ্যে আছেন। এমন একটি মামলায় তার ছেলে এখন জেল খাটছেন, যার অভিযোগের কোনো অস্তিত্বই নেই। তিনি বলেন, তিনি নিজেও বাদিকে খুঁজছেন। কিন্তু কোনো অস্তিত্ব পাচ্ছেন না।


আরো সংবাদ

‘সোনার বাংলা বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুর অসম্পূর্ণ কাজগুলো সম্পন্ন করে যাচ্ছেন কন্যা শেখ হাসিনা’ স্বদেশে ফিরতে চায় না রোহিঙ্গারা বঙ্গবন্ধু জাতিকে সোনার বাংলা উপহার দিয়ে গেছেন : ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী হামলা, মামলা, গ্রেফতারের মাধ্যমে সরকার টিকে থাকতে চায় : রিজভী ৩য় শ্রেণীর ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, অভিযুক্ত ধর্ষকের রহস্যজনক... দ্বিতীয় বিয়ে করেছেন দ্য রক কাশ্মির সঙ্ঘাতের মাঝেও পাকিস্তানি বর ও ভারতীয় বধুতে বিয়ে সম্পন্ন গফরগাঁওয়ে পঞ্চম শ্রেণীর শিক্ষার্থী ধর্ষিত মেসির অনুরোধে নেইমারকে পেতে আরো একবার চেষ্টা করবে বার্সা বাসর রাতে শিক্ষকের রহস্যজনক মৃত্যু খুলনায় তরুণের মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার

সকল

স্ত্রীর ছলচাতুরীতে ফতুর প্রবাসী স্বামী (৩৬৭২৪)পুলিশ হেফাজতে বাসর রাত কাটলেও ভেঙ্গে গেল বিয়ে (২৩৯০৭)ইমরানকে ‘পেছন থেকে ছুরি মেরেছেন’ মোদি (২১৩৩১)ভারতের পরমাণু অস্ত্রভাণ্ডার এখন ফ্যাসিস্ট মোদির হাতে : ইমরান খানের হুঁশিয়ারি (১৭৪৫৮)সন্ধ্যায় বাবার কিনে দেয়া মোটর সাইকেল সকালে কেড়ে নিল ছেলের প্রাণ (১৪৯৫২)নুরকে ‘খালেদা জিয়ার মতো পরিণতির’ হুমকি (১৩৯০০)স্বামীর সাথে ঘুরতে বেরিয়ে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ, ধর্ষক আটক (১২৫৭৯)সীমান্তে ফের পাল্টাপাল্টি গুলি, দুই ভারতীয় সেনাসহ নিহত ৪ (১১৩১৮)ব্যাগে টাকা আছে ভেবে শারমিনকে হত্যা করে রিকশা চালক রাজু উড়াও (১০৯৫০)গ্রীনল্যান্ড বিক্রির প্রস্তাব হাস্যকর : ড্যানিশ প্রধানমন্ত্রী (১০৫২৩)



bedava internet