২৫ আগস্ট ২০১৯
সাইট সেভার্সের প্রতিবেদন

চক্ষুসেবা গ্রহীতাদের মধ্যে ৫০ শতাংশই প্রতিবন্ধী

-

প্রকল্প হাসপাতালগুলোতে যেসব মানুষ চক্ষুসেবা নিতে আসে তাদের মধ্যে ৫০ শতাংশই প্রতিবন্ধী। এরমধ্যে দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বাদ দিলে ২৭ শতাংশ মানুষ অন্যান্য প্রতিবন্ধী। উভয় ক্ষেত্রে পুরষের তুলনায় নারীর সংখ্যা বেশি।
গতকাল সকালে বনানীর এক অভিজাত হোটেলে ‘ডিজঅ্যাবিলিটি ডাটা ডিজএগ্রিগেশন বেজলাইন ফাইন্ডিং শেয়ারিং’ শীর্ষক সেমিনারে সাইট সেভার্স এ জরিপ প্রতিবেদন তুলে ধরে। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাইট সেভার্সের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার রফিকুল ইসলাম। প্রকল্প বাস্তবায়ন হাসপাতালগুলোসহ অস্থায়ী চক্ষু ক্যাম্পে চিকিৎসা নিতে আসা চারটি জেলার সাত হাজার ৭৯ জন চক্ষুসেবা গ্রহীতার ওপর জরিপ চালানো হয়।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৫০ বছরের বেশি বয়সের মানুষের মধ্যে প্রতিবন্ধিতার হার বেশি এবং কখনো কখনো তা প্রায় দুই-তৃতায়াংশের কাছাকাছি। চোখের সমস্যা নিয়ে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে ৬৩ শতাংশ চক্ষু ক্যাম্পে এবং ৪৬ শতাংশ প্রকল্প হাসপাতালগুলোতে সেবা নেন। দৃষ্টি প্রতিবন্ধী ছাড়া অন্যান্য প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মধ্যে ৩৩ শতাংশ চক্ষু ক্যাম্পে এবং ২৫ শতাংশ হাসপাতালে সেবা গ্রহণ করেন। মোট নমুনার ৪২৮ জনের চোখের ছানি অপারেশন হয়েছে।
সাইট সেভার্সের কান্ট্রি ডিরেক্টর খন্দকার আরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় প্রতিবন্ধী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের পরিচালক (যুগ্ম সচিব) এস কে হামিম হাসান এবং বিশেষ অতিথি ছিলেন সমাজসেবা অধিদফতরের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর (উপসচিব) ডা: আশরাফী আহমেদ প্রমুখ।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এস কে হামিম বলেন, সাইট সেভার্স বাংলাদেশে দরিদ্র ও সুবিধা বঞ্চিত মানুষের মধ্যে চক্ষুসেবা প্রদান করে প্রতিরোধ যোগ্য দৃষ্টিহীনতা দূরীকরণ এবং প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা অপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মতোই সমান অধিকার ভোগ করবে এই লক্ষ্যকে সামনে রেখে দীর্ঘ দিন ধরে কাজ করছে। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ও প্রধানমন্ত্রী প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নে উল্লেখ্যযোগ্য পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। শিক্ষা ও দক্ষতা উন্নয়নের পাশাপাশি স্বাস্থ্যসেবায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের প্রবেশগমত্য একটি বিরাট চ্যালেঞ্জ। যে কারণে অনেক প্রতিবন্ধী মানুষ স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করতে পারেন না। কতজন প্রতিবন্ধী ব্যক্তি বর্তমান স্বাস্থ্য ব্যবস্থায় সরকারি বা বেসরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণ করছে তা জানাটা অনেক জরুরি। এটি টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে সহায়তা করবে।


আরো সংবাদ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে সরকার ব্যর্থ : মির্জা ফখরুল টঙ্গীতে দুই মাদক কারবারি আটক নারী নির্যাতন আইনের অপব্যবহারে হয়রানির শিকার হচ্ছে পুরুষরা আগরতলা বিমানবন্দরের জন্য জমি দিলে সাবভৌমত্ব বিপন্ন হবে : ইসলামী ঐক্যজোট পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে জাতি হতাশ ও বিস্মিত সুশীল ফোরাম পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যে জাতি হতাশ ও বিস্মিত সুশীল ফোরাম ডেমরায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে শিল্প কলকারখানায় সচেতনতামূলক অভিযান ভারতীয় দূতাবাস ঘেরাও করবে খেলাফত আন্দোলন দেশ বাঁচাও সংগ্রামের বিকল্প নেই গোপালগঞ্জ জেলা সমিতির উদ্যোগে ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভা কাশ্মির ইস্যু ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয় : মুসলিম লীগ

সকল

ভারতের হামলার মুখে কতটুকু প্রস্তুত পাকিস্তান? (২৭৭২২)জামালপুরের ডিসির নারী কেলেঙ্কারির ভিডিও ভাইরাল, ডিসির অস্বীকার (২৭৪২৮)কিশোরীর সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক নিয়ে মুখ খুললেন নোবেল (১৯৩২৬)‘কাশ্মিরি গাজা’য় নজিরবিহীন প্রতিরোধ (১৯০১৯)ভারত কেন আগে পরমাণু হামলা চালাতে চায়? (১৮৭০০)সেনাবাহিনীর গাড়িতে গুলি, পাল্টা গুলিতে সন্ত্রাসী নিহত (১৮৩৫৪)কাশ্মির সীমান্তে পাক বাহিনীর গুলিতে ভারতীয় সেনা নিহত (১৩৭৫২)দাম্পত্য জীবনে কোনো কলহ না হওয়ায় স্বামীকে তালাক দিতে চান স্ত্রী (১২৫৫৯)প্রিয়াঙ্কাকে সরাতে পাকিস্তানের চিঠির জবাব দিয়েছে জাতিসংঘ (৮৩৮৪)রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারকে যে বার্তা দিল চীন (৭৭২৬)



mp3 indir bedava internet