১৮ জুন ২০১৯

বিআইডব্লিউটিএ কার্যালয়ে দুদকের অভিযান

-

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআইডব্লিউউটিএ) প্রধান দফতরে অভিযান চালিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন। ড্রেজিংকার্যক্রম পরিচালনার জন্য টেন্ডার প্রক্রিয়ায় অনিয়ম এবং নৌ-পরিবহন অধিদফতরে নতুন জাহাজের নকশা অনুমোদন, সার্ভে সার্টিফিকেট প্রদানে অনিয়মের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল সোমবার অভিযান চালিয়েছে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম। দুদক সূত্র এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।
দুদক কর্মকর্তারা জানান, অভিযানে দুদকের টিম অভিযানে জানতে পারে, ড্রেজিংকার্যক্রম পরিচালনার জন্য ১০ লাখ টাকার অতিরিক্ত ব্যয়ের জন্য ই-টেন্ডারিং পদ্ধতি থাকলেও, ১০ লাখ টাকার নিচে ম্যানুয়ালি টেন্ডার কার্যক্রম পরিচালিত হয়। ফলে এক্ষেত্রে অনিয়মের সুযোগ রয়েছে।
নতুন জাহাজের নকশা অনুমোদনে অনিয়মের অভিযোগ অনুসন্ধানে দুদক টিম জানতে পারে, ২০১৮ সালে ২২০টি নকশা প্রদানের সিদ্ধান্ত থাকলেও নতুন নকশা অনুমোদিত হয়েছে ৩৪৫টি। এক্ষেত্রে অনিয়ম হয়েছে মর্মে টিম প্রাথমিকভাবে অভিমত দেয়। এ ছাড়াও আবেদন বিবেচনার ক্ষেত্রে ক্রম না মেনে যারা পরবর্তীতে আবেদন করেছেন তাদেরও ঘুষ-দুর্নীতির বিনিময়ে সিরিয়াল ভঙ্গ করে আগে নকশা পাশ করা হয়েছে বলে জানা যায়।
অপর দিকে জাহাজের সার্ভে সার্টিফিকেট প্রদানের ক্ষেত্রে অবৈধ অর্থ অর্জনের উদ্দেশ্যে কালক্ষেপণ করা হয় মর্মে দুদকের অনুসন্ধানে জানা যায়। সার্ভেয়ারদের কোনো রিপোর্ট প্রদানের বাধ্যবাধকতা না থাকায় তারা এ বিষয়ে স্বেচ্ছাচারিতার আশ্রয় নেন। দুদক টিম, বিআইডব্লিউর চিফ ইঞ্জিনিয়ারকে সুপারিশ প্রদান করে যে, সার্ভেয়ারদের সাপ্তাহিক ও মাসিক ভিত্তিতে রিপোর্ট প্রদান করতে হবে।
বিএসটিআই বিভিন্ন কার্যক্রমে অনিয়ম খতিয়ে দেখতে বিএসটিআই, প্রধান কার্যালয়ে অভিযান পরিচালনা করে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম। কার্যালয়ের বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহ করে।


আরো সংবাদ