২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

প্রধানমন্ত্রীকে কোটা আন্দোলনের বিষয়টি সহানুভূতির সাথে দেখার আহ্বান রওশন এরশাদের

-

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলনের বিষয়টি সহানুভূতির দৃষ্টিতে দেখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন সংসদে বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ। তিনি বলেছেন, কোটা নিয়ে ছেলেমেয়েদের মধ্যে অনেক বিভ্রাট দেখা যাচ্ছে। দাবি আদায়ে আন্দোলন করতে গিয়ে তাদের এখন নির্যাতনের শিকার হতে হচ্ছে। এটা তাদের ন্যায্য দাবি। স্পিকারের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীকে অনুরোধ করব, তিনি যেন সহানুভূতির দৃষ্টি নিয়ে এই বিষয়টি বিবেচনা করেন। গতকাল সংসদে বাজেট অধিবেশনের সমাপনী পর্বে তিনি সরকার প্রধানের প্রতি এই আহ্বান জানান।
রওশন এরশাদ বলেন, সরকার জনগণের চাহিদা কতটুকু পূরণ করতে পেরেছে, তা চিন্তাভাবনা করতে হবে। আমরা বেকার যুবকদের চাকরি দিতে পারছি না। সংসদে আসলাম, বসে সময় কাটালাম, তাহলে তো হবে না।
বাজেট প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বাজেটে প্রণোদনা নেই। ব্যাংক লুটপাটকারীদের কর কমানো হয়েছে। ব্যাংক খাতে লুটপাট চলছে। ব্যাংক খাতে নৈরাজ্য বন্ধ করতে হলে সংস্কারের কোনো বিকল্প নেই। ১৬ লাখ মানুষ ব্যাংক হিসাব বন্ধ করে দিয়েছেন।
রওশন বলেন, ভেজাল নিয়ে যতবারই বলি প্রধানমন্ত্রী হেসে উড়িয়ে দেন। হেসে উড়িয়ে দেয়ার কথা না। ডিজিটাল বাংলাদেশ কিভাবে গড়বেন? আবহাওয়া পর্যন্ত দূষিত। নদী ভালো রাখেনি। আবহাওয়ায় সীসা। এগুলো দেখতে হবে।
তিনি বলেন, শিাব্যবস্থা সঙ্কটাপন্ন অবস্থায় পড়েছে। জিপিএ ৫ পাওয়া শিার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীায় পাস করতে হচ্ছে। এটা যদি হয়, তাহলে দেশের শিার মান কোথায় গিয়েছে?
রাজধানীর যানজট প্রসঙ্গে রওশন বলেন, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী চলাচল করলে রাস্তা বন্ধ রাখা হয়। রাস্তায় যানজট ছাড়তে ছাড়তে রাত হয়ে যায়। অন্য রাস্তায় যাওয়াই যায় না। বৃষ্টিতে সব রাস্তা ভাঙা। কেউ বলে না সাহস করে। এখানে যারা আছেন, সবাই জানেন। কিন্তু কারও সাহস নেই বলার। সবাই যানজটে নাকাল থাকেন।


আরো সংবাদ