esans aroma gebze evden eve nakliyat Ezhel Şarkıları indir Entrumpelung wien Installateur Notdienst Wien webtekno bodrum villa kiralama
২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছুটির দিনে তাপসের প্রচারণায় জনতার ঢল

ছুটির দিনে তাপসের প্রচারণায় জনতার ঢল - ছবি : নয়া দিগন্ত

আগামী ৩০ডিসেম্বর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনকে কেন্দ্র করে প্রধান দুই রাজনৈতিক দল বিএনপি ও আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের মাঝে নির্বাচনী উত্তাপ ছড়িয়ে পড়েছে। সকাল থেকে রাত পর্যন্ত বিরামহীন গণসংযোগ ও প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন দুই সিটিতে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা।

শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় মেয়র প্রার্থীদের প্রচারণায় বাড়তি উপস্থিতি ও আমেজ লক্ষ করা গেছে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপসের প্রচারণায় ছিলো সমর্থকদের ব্যাপক উপস্থিতি।

বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ইশরাক হোসেন আওয়ামী লীগ প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ আনলেও তাপস সেগুলো পাত্তা দিচ্ছেন না। এ বিষয়ে শুক্রবার গণসংযোগ চলানোর সময় তাপস বলেছেন, আমরা অত্যন্ত সুষ্ঠু ও উৎসব মুখর পরিবেশে গণসংযোগ ও নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা চালাচ্ছি। এখানে আচরণ বিধি লঙনের কোনো অবকাশ নেই।

তিনি বলেন, সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে আমাদের নেতাকর্মী ও জনসাধারণের মাঝে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে। তারা (বিএনপি) অভিযোগ নিয়ে ব্যস্ত আর আমরা গণসংযোগ নিয়ে ব্যস্ত বলেও মন্তব্য করেন তাপস।

এদিকে প্রচার-প্রচারণার অষ্টম দিনে শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর নাজিরা বাজারে ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস উপস্থিত হওয়ার আগেই নেতা-কর্মীদের ঢল নামে। সেখানে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ, যুবলীগ, যুব মহিলা লীগসহ সহযোগি সংগঠনের নেতা-কর্মীদের উপস্থিতিতে রুপ নেয় গণজমায়েতের।

জয় বাংলা, জিতবে এবার নৌকা, তাপস ভাইয়ের মার্কা নৌকা মার্কা ইত্যাদি নানা শ্লোগান দিতে থাকে উপস্থিত নেতা-কর্মীরা।

দেখা যায়, তাপসের প্রচারণায় নেতা-কর্মীদের পাশাপাশি আইনজীবী, পেশাজীবী, শ্রমজীবী ও সাধারণ মানুষের বাড়তি উপস্থিতি। তাকে এক নজর দেখতে সড়কে, বাসা-বাড়িতে, দোকানপাটে, অলিতে-গলিতে, বাসার ছাদে অবস্থান নিতে দেখা যায় লোকদের। হাত নেড়ে তাদের অভিবাদন গ্রহন ও তাদের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নুর তাপস।
কথা হলে পুরান ঢাকার বাসিন্দা জয়নাল জানান, এখানে একজন নিবেদিত মেয়র দরকার। যিনি পুরান ঢাকার স্বকিয়তা ও সম্প্রতি রক্ষা করে বিদ্যমান সমস্যাগুলো সমাধানে কাজ করবেন।

তিনি বলেন, এখানে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা, অপ্রসস্থ রাস্তাঘাট, যানজট, নদী দখলসহ নানা সমস্যা রয়েছে। আমরা চাই মেয়র হিসেব যেই আসুক না কেন আধুনিক ঢাকার অংশ হতে তাকে এই কাজগুলো অবশ্যই করতে হবে।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ঢাকা দক্ষিনের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ বলেন, আমাদের প্রচারণায় জনসাধারণের ব্যাপক উপস্থিতি প্রমাণ করে নৌকার পক্ষের প্রার্থীর জনপ্রিয়তা। আমাদের বিশ্বাস ঢাকাবাসি আগামী ৩০তারিখ নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে শেখ ফজলে নুর তাপসকে বিপুল ভোটে জয়ি করবে।

মেয়র পদপ্রার্থী ফজলে নুর তাপস বলেন, উন্নয়নের জন্য আমরা যে রুপরেখা দিয়েছি ঢাকাবাসী তা স্বতঃস্ফূর্তভাবে গ্রহণ করেছে।

আমরা আশা করছি আগামী ৩০ জানুয়ারি ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মেয়র এবং কাউন্সিলর পদে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রার্থীকে নির্বাচিত করে আমাদেরকে আপনাদের সেবা করার সুযোগ দিবেন।

ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন, আমিই একমাত্র মেয়র প্রার্থী যে এই পুরান ঢাকা নিয়ে সুনির্দিষ্ট উন্নয়নের রুপরেখা দিয়েছি।

আমরা নির্বাচিত হলে ঐতিহ্যের ঢাকা গড়বো। আমরা এর ঐতিহ্যকে সংরক্ষণ করতে চাই। পুরান ঢাকার সম্প্রীতি, ঐতিহ্য ও স্বকীয়তাকে আমরা পুনর্জীবিত করব।


আরো সংবাদ




short haircuts for black women short haircuts for women Ümraniye evden eve nakliyat