১৩ নভেম্বর ২০১৯

দুই ভাইয়ের শত্রুতায় চিড়েচ্যাপ্টা হলো বসতবাড়ি

দুই ভাইয়ের শত্রুতায় চিড়েচ্যাপ্টা হলো বসতবাড়ি - সংগৃহীত

বাইরে থেকে বা একটু দূর থেকে দেখলে মনে হবে নেহাতই এটা একটা দেয়াল। তবে কাছে গেলেই বোঝা যায়, এই ‘দেয়াল’ বসবাসেরও যোগ্য অর্থ্যাৎ বাড়িও বটে।

এই বাড়ির ঠিকানা লেবানন। সে দেশ তো বটেই, এই বাড়ি সম্ভবত বিশ্বের সবচেয়ে সরু বাড়ি। বাড়িটা এতটাই সরু যে, একে দেয়াল বলে ভুল করাটা একেবারেই আশ্চর্যজনক নয়। লেবাননের বেইরুটের পুরনো লাইট হাউসের কাছে অবস্থিত এই বাড়িটা। বাড়ির উচ্চতা ১৪ মিটার এবং চওড়ায় মাত্র ১ মিটার। দুই ভাইয়ের শত্রুতার জেরেই নাকি এই বাড়ি তৈরি হয়েছিল।

কী রকম? সরু বাড়িটা এবং তার ঠিক পিছনেই যে বড় বাড়ি দেখা যাচ্ছে, এই দুটো বাড়ি দুই ভাইয়ের। পিছনের বাড়িটার সি-ভিউ আটকাতেই ঠিক তার সামনে এই সরু বাড়িটা গড়ে তোলেন আর এক ভাই। বাড়িটা তৈরি হয়েছিল ১৯৫৪ সালে। পৈতৃক সম্পত্তি হস্তান্তরিত হয়েছিল ওই দুই ভাইয়ের কাছে। কিন্তু তখন শুধু ফাঁকা জমি ছিল সেখানে।

জমিটার অনেক অংশ স্থানীয় প্রশাসন বিভিন্ন কাজে দখল করে নিয়েছিল। ফলে বদলে যায় জমিটার আকার। জমিটা দুই ভাই কী ভাবে নিজেদের মধ্যে ভাগ করে নেবেন, তা নিয়ে দীর্ঘ টানাপড়েন চলে। জমি ভাগাভাগির মিমাংসা না হতেই এক ভাই পিছনের বড় বাড়িটা তৈরি করে ফেলেন। সেখানে শুরু করেন আবাসিক হোটেল ব্যবসা। জমিটার অবস্থান খুব সুন্দর। সামনে রাস্তা আর তার ওপারেই সমুদ্র। এরকম একটা লোকেশনে আবাসিক হোটেল, দারুণ চলতে শুরু করে।

আর সেটাই নাকি সহ্য হয়নি অন্য ভাইয়ের। ভাইয়ের ব্যবসায় লালবাতি জ্বালানোর জন্য এবং সেই আবাসিক হোটেলের সি-ভিউ আটকানো জন্য অভিনব পরিকল্পনা করেন তিনি। ওই হোটেলের সামনে যেটুকু জমি ছিল, তাতেই অদ্ভুত আকারের একটি বাড়ি বানিয়ে ফেলেন।

দেয়াল আকৃতির এই বাড়িটার প্রতিটি ফ্লোরে দুটো করে ঘর রয়েছে। একটা সময় এই বাড়ি যৌনকর্মীরা ব্যবহার করতেন। তারপর উদ্বাস্তু শিবির হিসাবে কাজে লাগানো হত বাড়িটা। বর্তমানে বাড়িটা বেআইনি হিসাবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তার উপর বর্তমানে বাড়িটায় নেই কোনো বাসিন্দা। খালি পড়ে রয়েছে সেটা। এই বাড়ির ভবিষ্যত কী হবে তা নিয়ে চিন্তাভাবনা করছে স্থানীয় প্রশাসন। সূত্র : আনন্দবাজার।


আরো সংবাদ

ছেলের নাম রেখে কর্মস্থলে ফিরছিলেন আল আমিন প্রথম বিশ্বযুদ্ধের বীর নরসিংদীর মিয়া চাঁনের স্বীকৃতি চায় পরিবার বিটিআরসি-অপারেটর দ্বন্দ্বে গ্রাহক সেবায় ভোগান্তি বিপুল আর্থিক ক্ষতিতে কোম্পানিগুলো আ’লীগ স্বাধীনতার প্রতিনিধিত্ব করে না : মওদুদ ভেজালবিরোধী অভিযান আরো জোরদার হবে : শিল্প প্রতিমন্ত্রী জাতীয় শ্রমিক লীগের নতুন নেতাদের সংবর্ধনা সিপাহি বিপ্লব না হলে আ’লীগের পুনঃজন্ম হতো না : লেবার পার্টি অনির্বাচিত সরকারের বিদায় হওয়া দরকার : আমীর খসরু কাউন্সিলর মঞ্জু অস্ত্র ও মাদক মামলায় রিমান্ড শেষে কারাগারে ৩ আইন কর্মকর্তার নিয়োগ প্রশ্নে রুল সংসদে রাঙ্গাকে তুলোধোনা বহিষ্কার দাবি

সকল