১৫ অক্টোবর ২০১৯

প্রেস কাউন্সিলের নির্দেশনা অযাচিত ও অনভিপ্রেত : বিএফইউজে-ডিইউজে

বিএফইউজে-ডিইউজের লগো - সংগৃহিত

আদালতে বিচারাধীন বিষয়ে সংবাদ পরিবেশন প্রশ্নে প্রেস কাউন্সিলের অযাচিত নির্দেশনামূলক বিবৃতির তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন-বিএফইউজে ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন-(ডিইউজে)’র নেতৃবৃন্দ।

প্রেস কাউন্সিল সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা সমুন্নত রাখার পরিবর্তে অধিকার ও স্বাধীনতা হরণের অনাকাঙ্খিত পথে হাটলে তা দুঃখজনক ও অনভিপ্রেত হবে বলে উল্লেখ করেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। অবিলম্বে বিবৃতিটি প্রত্যাহারেরও দাবি জানান তারা।

বিএফইউজে সভাপতি রুহুল আমিন গাজী ও মহাসচিব এম আবদুল্লাহ এবং ডিইউজে সভাপতি কাদের গনি চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক মো. শহিদুল ইসলাম এক বিবৃতিতে এ আহ্বান জানান।

আজ বুধবার এক যুক্ত বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতারা বলেন, আদালতের সংবাদ পরিবেশনে নিয়োজিত সাংবাদিকরা আইন-কানুন ও বিধিবিধান মেনেই সংবাদ পরিবেশন করে থাকেন। এ বিষয়ে সময়ে সময়ে আদালতের নির্দেশনা ও পরামর্শ বিবেচনা করেই তারা পেশাগত দায়িত্ব পালন করে থাকেন। গত ১৬ মে বিচারাধীন বিষয় নিয়ে সংবাদ প্রকাশ না করতে হাইকোর্ট বিভাগ একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করলেও সাংবাদিক সমাজে তীব্র প্রতিক্রিয়ার প্রেক্ষাপটে তা গত ২১ মে সংশোধন করেন সুপ্রিম কোর্ট প্রশাসন। সংশোধনীর পর গণমাধ্যমকর্মীরা আগের মতোই আদালতের বিচারাধীন বিষয় ও কথোপকথন নিয়ে রিপোর্ট করে আসছেন।

এর আগে গত ৯ এপ্রিল প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন এক সৌজন্য সাক্ষাতে ল’রিপোর্টার্স ফোরামের নেতৃবৃন্দকে বলেছিলেন, ‘আদালতে যা দেখবেন তাই লিখবেন।’ এমতাবস্থায় প্রেস কাউন্সিল সাংবাদিকদের নিয়ন্ত্রণমূলক নির্দেশনা দেয়ার এখতিয়ার রাখে কিনা সে প্রশ্ন ওঠা স্বাভাবিক।

বিবৃতিতে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, একটি গণতান্ত্রিক দেশে স্বাধীন বিচার ব্যবস্থায় যা ঘটবে তা বস্তুনিষ্ঠভাবে তুলে ধরা গণমাধ্যমকর্মীদের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে। সংবিধানে সেই অধিকার নিশ্চিত করা হয়েছে।

প্রেস কাউন্সিলের ওই বিবৃতিতে হাইকোর্টের রায়ের ভুল ব্যাখ্যা দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ উঠেছে যা অনাকাঙ্ক্ষিত।

 


আরো সংবাদ




astropay bozdurmak istiyorum