২১ আগস্ট ২০১৯

হট লাইনে ডেঙ্গু সেবা, বাসায় যাবে স্বাস্থ্যকর্মী 

ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে এখন থেকে সার্বক্ষনিকভাবে হট লাইনে ডেঙ্গু রোগিকে চিকিৎসা দেয়ার ঘোষনা দিয়েছেন মেয়র সাঈদ খোকন। একই সাথে গঠন করা হয়েছে ৬৭ টি মেডিকেল টিম। হটলাইনে ফোন পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই বাসায় চলে যাবে স্বাস্থ্যকর্মীরা। কাজেই এখন থেকে ডেঙ্গু নিয়ে আর আতংকিত না হওয়ারও আহবান জানিয়েছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএনসিসি’র) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

মেয়র ঘোষনা দেন এখন থেকে আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীরা মাঠে থাকবেন। ডেঙ্গু ছাড়াও অন্য কোন প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা প্রয়োজন হলেও প্রাথমিক চিকিৎসাসেবার জন্য আমাদের হটলাইন ০৯৬১১০০০৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে স্বাস্থ্যকর্মী বাসায় চলে যাবে। ডেঙ্গু নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়তে পারে, বিভ্রাান্তি সৃষ্টি হতে পারে এমন সংবাদ পরিবেশন থেকে গণমাধ্যমকর্মীদের বিরত থাকারও আহ্বান জানিয়েছেন ডিএনসিসি’র মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

মেয়র বলেন বলেন, সরকারের দ্বায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান আইইডিসিআর-এর দেওয়া তথ্য মতে এ বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে এমন রোগীর সংখ্যা তিনজন। কিন্তু কিছু সংবাদমাধ্যম প্রচার করছে ডেঙ্গুতে মারা গেছে ১১ জন। জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে পারে এমন সংবাদ পরিবেশন থেকে সংবাদমাধ্যমকে বিরত থাকারও অনুরোধ জানিয়েছেন।

সোমবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের আয়োজনে নগর ভবনে ‘বিশেষ প্রাথমিক সেবাপক্ষ ২০১৯’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র এসব কথা বলেন । তিনি বলেন, আমরা ডিএসসিসির পক্ষ থেকে সর্বশক্তি প্রয়োগ করে নাগরিকদের ডেঙ্গু প্রতিরোধ ও চিকিৎসাসেবা দিতে প্রস্তুত আছি। ইতোমধ্যে ৬৭টি মেডিকেল টিম গঠন করেছি। বিভিন্ন এলাকায় ৪৭৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যকর্মীরা অবস্থান নেবেন, তারা বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা দেবেন। স্বাস্থ্যকর্মীরা মনে করলে হাসপাতালে ভর্তি করার ব্যবস্থা নেবেন। আর যদি ঘরে রেখে সুস্থ করানো যায় তাহলে সেই হিসেবে চিকিৎসা সেবা তারা দেবেন।

মেয়র বলেন, ডেঙ্গু এ বছর বেশি থাকলেও চিকুনগুনিয়ার সংখ্যা কম। তবে ডেঙ্গুতে আতঙ্কিত হবার কারণ নেই, ডেঙ্গু রোগ সহজেই সেরে যায়। এতে আতঙ্কিত হবার বা ভয় করার কোন কারণ নেই। মেয়র আরো বলেন, ডিএসসিসি থেকে সর্বোচ্চ শক্তি নিয়োগ করা হয়েছে। প্রতিটি অলি-গলিতে ওষুধ ছিটানো হচ্ছে, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ক্যাম্প করা হচ্ছে। এমনকি ধর্মীয় উপাসনালয় থেকে পুরহিতরা জনসচেতনতামূলক প্রচারণা চালাচ্ছেন।

সার্বিকভাবে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আমরা ডেঙ্গুকে প্রতিহত করব। যতক্ষণ পর্যন্ত সম্পূর্ণ ডেঙ্গুমুক্ত নগরী না হবে আমরাও হাল ছাড়ছি না।
ঢাকা দক্ষিণের মেয়র আরো বলেন, এবার ৪২৪৭ জন নাগরিক বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গুর চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন। এরা শুধু ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণের নাগরিক নয়, এরা দেশের বিভিন্ন এলাকার। ডিএসসিসিতে ৭ জুলাই থেকে ১৪ জুলাই পর্যন্ত ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৮৪ জন, যাদের ৩৪ জন এখনও চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আমরা দেখছি সময় যত যাচ্ছে রোগীর সংখ্যা তত কমে আসছে।

মেয়র ঘোষণা দেন এখন থেকে আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীরা মাঠে থাকবেন। ডেঙ্গু ছাড়াও অন্য কোন প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা প্রয়োজন হলেও প্রাথমিক চিকিৎসাসেবার জন্য আমাদের হটলাইন ০৯৬১১০০০৯৯৯ নম্বরে ফোন করলে স্বাস্থ্যকর্মী বাসায় চলে যাবে।

এছাড়াও চলতি মাস থেকে সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ডেঙ্গুর আবাস বা জন্মস্থান ধ্বংস করা হবে বলে ঘোষণা দেন মেয়র সাঈদ খোকন। ডিএসসিসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ডিএসসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শরিফ আহমেদ। এছাড়া ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও সাব এসিসট্যান্ট কমুনিটি মেডিক্যাল অফিসারগন ও বক্তব্য রাখেন।


আরো সংবাদ




mp3 indir bedava internet