১৭ জানুয়ারি ২০২০

বিজ্ঞাপন থেকে ভারতীয় তারকাদের আয়ের কথা শুনলে চোখ কপালে উঠতে পারে

-

মাত্র ৩০ সেকেন্ডের বিজ্ঞাপন। আর তাতেই টেলিভিশনের পর্দা থেকে যেন চোখ সরতে চায় না। বিজ্ঞাপনী জগতের এমনই মোহ। আর তাতে যদি থাকেন অক্ষয় কুমার, অমিতাভ বচ্চন বা দীপিকা-আলিয়ারা? তবে তো কথাই নেই। কিন্তু জানেন কি, আপনার প্রিয় স্টারেরা প্রতি ব্র্যান্ডের বিজ্ঞাপন থেকে কত টাকা আয় করেন? চোখ কপালে উঠতে পারে এর পরিমাণ শুনলে। আনন্দবাজার পত্রিকায় উঠে এসেছে এসব অভিনেতা-অভিনেত্রীর বিজ্ঞাপন থেকে আয়ের তথ্য।

বিজ্ঞাপন থেকে আয়ের ব্যাপারে বলিউডে সবাইকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন অক্ষয় কুমার। এ ব্যাপারে শাহরুখ-আমির-সালমানদের রাজত্ব খানখান করে শীর্ষে রয়েছেন তিনি। গত বছর ‘প্যাডম্যান’, ‘গোল্ড, ‘২.০, দেখা গিয়েছিল তাকে। হলে কী হবে? একটা ব্র্যান্ডে মুখ দেখাতে ‘সিধাসাধা অক্ষয়’নেন আনুমানিক ১০০ কোটি টাকা।

অক্ষয় কুমারের মতোই খানত্রয়ীকে দূরে ঠেলে দিয়েছেন রণবীর সিংহ। তবে ২০১৮-তে অক্ষয়ের থেকে একটা ফিল্ম কম করেছেন তিনি। তা সত্ত্বেও এক একটা ব্র্যান্ড থেকে তার আয় ছিল আনুমানিক ৮৪ কোটি টাকা।

ব্যক্তিগত জীবনে যেমন রণবীর সিংহের পাশাপাশি রয়েছে, আয়ের ব্যাপারেও তার পাশেই রয়েছে দীপিকা পাডুকোন। গত বছর প্রতি বিজ্ঞাপন থেকে আয় করেছেন আনুমানিক ৭৫ কোটি টাকা।

অক্ষয় কুমার বা রণবীর-দীপিকাদের থেকে এই একটা ব্যাপারে বেশ পিছিয়ে পড়েছেন অমিতাভ বচ্চন। তালিকায় চার নম্বরে রয়েছেন বিগ বি। গত বছর তার পকেটে ঢুকেছে প্রতি ব্র্যান্ড এনডোর্স পিছু আনুমানিক ৭২ কোটি টাকা।

বয়স মাত্র ২৬। আর এর মধ্যেই অভিনয় প্রতিভায় তাক লাগিয়ে দিয়েছেন। তবে শুধু অভিনয় দিয়ে নয়, আয়ের ব্যাপারে অনেক রথী-মহারথীকে হেলায় হারাচ্ছেন আলিয়া ভট্ট। ২০১৮-তে এক একটা বিজ্ঞাপন থেকে আলিয়ার আয় কত ছিল জানেন? আনুমানিক ৬৮ কোটি টাকা।

বলিউড নিয়ে কথা হবে, আর শাহরুখ খানের নাম উঠবে না! তা কখনও হয় নাকি? শেভিং ক্রিম হোক বা ঘরে বসে বাজার করার অ্যাপ, অথবা লার্নিং অ্যাপ, সবেতেই দেখা যায় বলিউডের বাদশাকে। এ ধরনের বিজ্ঞাপন থেকে গত বছরে তার আয় ছিল ব্র্যান্ড পিছু আনুমানিক ৫৬ কোটি টাকা।

আলিয়ার মতো বরুণ ধওয়নও ফি বছরে গাদাগুচ্ছের ফিল্ম করেন না। কখনও বছরে একটা, কখনও বা তিনটে ফিল্মে মুখ দেখান তিনি। তবে বিজ্ঞাপনে ভরপুর দেখা যায় তাকে। অন্তর্বাস থেকে শুরু করে ঠান্ডা পানীয়, সবেতেই কুল বরুণ। শাহরুখের পরেই রয়েছেন তিনি। গত বছর শুধুমাত্র একটা বিজ্ঞাপন এনডোর্স করেই তার ঘরে এসেছে আনুমানিক ৪৮ কোটি টাকা।

আমির খান বা শাহরুখ খানদের মতো ফি বছরে মাত্র একটা বা দুটো ফিল্মে দেখা যায় সালমান খানকেও। তবে ভাববেন না, তাতে তার আয় কিছু কম হচ্ছে। শুধুমাত্র একটা বিজ্ঞপনী ছবি বা ব্র্যান্ড প্রমোশন থেকে সল্লু মিয়া গত বছরে নিয়েছিলেন আনুমানিক ৪০ কোটি টাকা।

মেকআপ কিট, শ্যাম্পু থেকে শুরু করে ফ্যাশনেবল ব্যাগ, করিনা কপূর খানের প্রমোট করা ব্র্যান্ডের সংখ্যাও নেহাত কম কিছু নয়। প্রতিটি এনডোর্সমেন্টের জন্য তিনি গত বছরে চার্জ করেছেন আনুমানিক ৩২ কোটি টাকা।

‘ঠগস অব হিন্দোস্থান’ এবং ‘জিরো’, গত বছর মাত্র দু’টি ফিল্মে দেখা গিয়েছে ক্যাটরিনা কাইফকে। তবে ঠান্ডা পানীয়, গয়না, চশমার ফ্রেম থেকে মেকআপ, একের পর এক বিজ্ঞাপনে দেখা গিয়েছে তাকে। আর সেই সব ব্র্যান্ড এনডোর্স করার জন্য পারিশ্রমিক নিয়েছেন আনুমানিক ৩০ কোটি টাকা করে।

 


আরো সংবাদ

বিপিএলের নতুন চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী ‘কেরলে কেউ খাবারের সাথে ধর্ম মেশায় না’ সাংবাদিকতার ইতিহাসে প্রথম! রাজার পোশাকে, হাতে তলোয়ার নিয়ে রিপোটিং (ভিডিও) দাবানলে বিধ্বস্ত অস্ট্রেলিয়ায় বৃষ্টি, ১৮ মাসের বাচ্চার নাচ ভাইরাল দূতাবাস অ্যাপে খুব সহজে ৩৪ সেবা পাওয়া যাচ্ছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী লজ্জাজনক হারের পর অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে জয় ভারতের সোলাইমানি হত্যার দায়ে ট্রাম্পের প্রাণদণ্ড হওয়া উচিত : মার্কিন সাংবাদিক ইরান-মার্কিন সঙ্ঘাত : ওআইসির আত্মসমালোচনার সুযোগ যে কথা বলতে চাই না প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ, ভারতের নির্ভয়া কাণ্ডে ফাঁসি ১ ফেব্রুয়ারি ‘হিউম্যান মিল্ক ব্যাংক’ : প্রসঙ্গ কথা

সকল