২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৯
২০২২ বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমস

ক্রিকেট ও আরচারীকে অর্ন্তভূক্তির চেষ্টা

ক্রিকেট ও আরচারীকে অর্ন্তভূক্তির চেষ্টা - নয়া দিগন্ত

ক্রিকেট মূলত: কমনওয়েলথ ভূক্ত দেশগুলোতেই সবচেয়ে বেশী জনপ্রিয়। বিশ্ব ক্রিকেটে এই কমনওয়েলথ ভূক্ত দেশগুলোই দাপট। তা অস্ট্রেলিয়া থেকে শুরু করে দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েষ্ট ইন্ডিজ থেকে নিউজিল্যান্ড পর্যন্ত। সাথে এই উপমহাদেশও।

তবে লক্ষ্যনীয় বিষয়, এই কমনওয়েলথ গেমসে নেই ক্রিকেট। ১৯৯৮ সালের কুয়ালালামপুর কমনওয়েলথ গেমসে প্রথম এবং শেষ বারের মতো অন্তর্ভূক্ত হয়েছিল খেলাটি। বাংলাদেশও সেই গেমসের ক্রিকেটে দল পাঠিয়েছি। হার অবশ্য প্রতি ম্যাচেই। তবে ২০২২ সালের বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমসে ফের ক্রিকেটকে অন্তর্ভূক্ত করার চেষ্টা চলছে। আর সেই প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন বাংলাদেশ অলিম্পিক অ্যাসোসিয়েশনের মহাসচীব সৈয়দ শাহেদ রেজা। ২৭/২৮ জানুয়ারী বার্মিংহামে অনুষ্ঠিত হয় কমনওয়েলথ গেমস কমিটির সভা ও ওয়ার্কশপ। এই সভায় আগামী কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেটকে পুনরায় আন্তর্ভূক্ত করার জোর দাবী জানান তিনি। সাথে আরচারীও। পাশাপাশি শ্যূটিংকে ডিসিপ্লিনের মধ্যে রাখার জন্যও দাবী জানান তিনি। শাহেদ রেজা বললেন এই কথা।

ক্রিকেট এর মতো এই গেমসে অনিয়মিত জনপ্রিয় অলিম্পিক ইভেন্ট আরাচরীও। মাত্র দুই বার আরচারী অর্ন্তভূক্ত ছিল কমনওয়েলথ গেমসে। তা ১৯৮২ সালের ব্রিসবেন এবং ২০১০ এর দিল্লী গেমসে। আগামী বার্মিংহাম গেমসে এই আরচারীকেও অন্তর্ভূক্ত করার দাবী শাহেদ রেজার। তিনি কমনওয়েলথ গেমসে এশিয়া অঞ্চলের নির্বাচতি প্রতিনিধি। তাই দাবীটা তিনিই করেন। বিওএ মহাসচীব জানান, মে মাসের মধ্যে বামির্ংহাম কমনওয়েলথ গেমস কমিটির সভা। তখন ২০২২ সালের ডিসিপ্লিন চূড়ান্ত হবে।

শাহেদ রেজার যুক্তি, ‘ক্রিকেটতো কমনওয়েলথ দেশগুলোই খেলা। দীর্ঘদিন ধরেই এই দেশ গুলোতে চর্চা হচ্ছে খেলাটি। তাই কমনওয়েল গেমসে কেন তা থাকবে না। একই সাথে বলেছি আরচারীকেও অন্তর্ভূক্ত করতে।’ গেমসটির সাথে লম্বা সময়ের সম্পর্ক শ্যূটিংয়ের। এই গেমসে দু’টি ¯¦র্ণ সহ বাংলাদেশের যা কিছু পদক প্রাপ্তি এই ডিসিপ্লিন থেকেই। সর্বশেষ ২০১৮ এর গোল্ডকোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশের দুটি রৌপ্য আসে শ্যূটিং থেকে। অথচ ২০২২ সালের গেমসে থেকে বাদ দেয়া হয় এই শ্যূটিংও। বিওএ মহাসচীব জানান, আমি বলেছি শ্যূটিংতো সব সময়ই হয়ে আসছে কমনওয়েলথ গেমসে। তাহলে এখন কেন তা বাদ দেয়া হবে। তাই আমি শ্যূটিংকে বাদ না দেয়ার জন্য আবেদন করে বক্তব্য দিয়েছি।’ তার মতে, আমার এই দাবীর প্রতিবাদ করেনি কোনো দেশ। যার অর্থ সবারই সমর্থন আছে। আমি সব দেশেও স্বার্থ দেখেই প্রস্তাব দিয়েছি। জানান, আমার বক্তব্য আমি দিয়েছি। এখন চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত পরে জানা যাবে।
আগামী কমনওয়েলথ গেমসে হ্যান্ডবলকে অন্তর্ভূক্তির জন্য আবেদন করেছেন আফ্রিকা মহাদেশের প্রতিনিধি। এখন গেমস কমিটি মার্চ থেকে মে মাসের মধ্যে সভা করে তাদের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে।

১৯৯৮ সালের কুয়ালালামপুর কমনওয়েলথ গেমসে বাংলাদেশ গ্রুপে খেলেছিল দক্ষিণ আফ্রিকা, বার্বাডোজ এবং উত্তর আয়ারল্যান্ডের সাথে। জেতা হয়নি কোনো খেলাতেই। তখন অবশ্য ৫০ ওভারের ম্যাচ হয়েছিল। বার্মিংহামে যদি ক্রিকেট অন্তর্ভূক্ত হয় তখন তা ২০ না ৫০ ওভারের ম্যাচ হবে তা পরে ঠিক হবে। টেস্ট, ওয়ানডে সিরিজ এবং বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ নামে ক্যারিবিয়ান দেশগুলো অংশ নিলেও ২০ বছর আগের কমনওয়েলথ গেমসে আর ওয়েস্ট ইন্ডিজ নামে খেলেনি তারা। নিজ নিজ দেশের নামে খেলে জ্যামাইকা, বার্বাডোজ এবং অ্যান্টেগুয়া -বারবুডা। সে আসরে উপমাহদেশের ভারত, পাকিস্তান এবং শ্রীলংকাও অংশ নেয় ক্রিকেটে। মোট ১৬ দেশ ছিল প্রতিদ্বন্দ্বী। উপমাহদেশের দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র শ্রীলংকা ছাড়া কোনো দেশই সেমিতে খেলতে পারেনি। গেমসের ¯¦র্ণ গিয়েছেল দক্ষিণ আফ্রিকার দখলে। তা অস্ট্রেলিয়াকে হারিয়ে।

বার্মিংহাম কমনওয়েলথ গেমসে ক্রিকেট এবং আরচারী অন্তর্ভূক্ত হলে বাংলাদেশের পদক জয়ের সম্ভাবনা উজ্জ্বল হবে। শ্যূটিং থাকলেতো কথাই নেই।

 


আরো সংবাদ

Hacklink

ofis taşıma Instagram Web Viewer

canli radyo dinle

Yabanci Dil Seslendirme