২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বঙ্গবন্ধুর তৃতীয় গ্রন্থ ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ প্রকাশিত হচ্ছে

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ছবি - সংগৃহীত

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের লেখা তৃতীয় গ্রন্থ ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ প্রকাশিত হচ্ছে। বইটি প্রকাশ করছে বাংলা একাডেমি।

একই সাথে বঙ্গবন্ধুর এই ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ বইটি ইংরেজী ভাষায়ও প্রকাশিত হচ্ছে। ইংরেজী ভাষায় বইটি অনুবাদ করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ফকরুল আলম। তিনি বঙ্গবন্ধুর লেখা দ্বিতীয় গ্রন্থ এবং বাংলা একাডেমি প্রকাশিত ‘কারাগারের রোজনামচা’ বইটিও ইংরেজী ভাষায় অনুবাদ করেছেন।

বঙ্গবন্ধুর ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ বইটির প্রথম প্রকাশ ২০ হাজার কপি ছাপা হবে। বাংলা একাডেমি আয়োজিত আগামী অমর একুশের গ্রন্থমেলার উদ্বোধনী দিন থেকেই বইটি মেলায় পাঠকরা ক্রয় করতে পারবেন বলে একাডেমি কর্তৃপক্ষ আশা প্রকাশ করছেন। ইংরেজী ভাষায়ও বইটি একই সময়ে প্রকাশের টার্গেট করেছে বাংলা একাডেমি।

বইটি সম্পাদনার দায়িত্বে নিয়োজিত বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক ও লোক গবেষক অধ্যাপক শামসুজ্জমান খান এ সব তথ্য জানান। তিনি জানান, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু চীন সফর করেছিলেন। তাঁর এই সফরের উপর তিনি ডায়েরি লিখেছেন। এই ডায়েরিই হচ্ছে ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ বইটি।

তিনি জানান, বইটির প্রকাশনার কাজ এগিয়ে চলছে। বইয়ের গ্রন্থস্বত্ব থাকছেন ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেরোরিয়াল ট্রাস্ট’। ভূমিকা লিখছেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জ্যেষ্ঠ কন্যা ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর ভূমিকা লেখা পাওয়া গেলেই বইটির ছাপার কাজ সম্পন্ন হবে।

তিনি বলেন, বাংলা একাডেমিতে আগামী অমর একুশের গ্রন্থমেলার উদ্বোধনী দিনেই বঙ্গবন্ধুর লেখা ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ বইটির আনুষ্ঠানিকভাবে মোড়ক উন্মোচন করার আশা করছেন তারা। একই সাথে ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ বইটির ইংরেজী প্রকাশনাও সম্পন্ন করার টার্গেট করা হয়েছে। দুটি বইয়ের কাজ একই সাথে চলছে। একাডেমি থেকে প্রকাশিত বঙ্গবন্ধুর ‘কারাগারের রোজনামচা’ গ্রন্থটির ইংরেজী অনুবাদক অধ্যাপক ফকরুল আলম ‘নয়া চীন’ বইটির অনুবাদের কাজ করছেন।

বইটির প্রকাশক থাকছেন বাংলা একাডেমির গবেষণা, সংকলন ও অভিধান বিভাগের পরিচালক মোবারক হোসেন। তিনি জানান, বইটি প্রকাশের কাজ অনেক দূর এগিয়েছে। আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই প্রকাশনার কাজ শেষ হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রথম বই ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ প্রকাশ করেছিল ঢাকার প্রকাশনা সংস্থা ইউপিএল। এরপর তাঁর দ্বিতীয় গ্রন্থ ‘কারাগারের রোজনামচা’ প্রকাশ করে বাংলা একাডেমি। তৃতীয় গ্রন্থ ‘নয়া চীন ভ্রমণ’ও প্রকাশ করছে বাংলা একাডেমি।


আরো সংবাদ