২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮

বিদেশীদের কাছে বাড়ি বিক্রি নিষিদ্ধ

বিদেশীদের কাছে বাড়ি বিক্রি নিষিদ্ধ - সংগৃহীত

নিউজিল্যান্ডে এখন থেকে কোন বিদেশী আর ইতিমধ্যে নির্মিত বাড়ি কিনতে পারবেন না। এই বিষয়ে একটি নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। দেশটির বাড়িঘরের দাম স্থানীয়দের জন্য কমিয়ে আনতে এমন পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। 
 
বুধবার ৬৩-৫৭ ভোটে জয়ী হয়ে ‘বৈদেশিক বিনিয়োগ সংশোধন বিল’ নামে বিদেশীদের কাছে বাড়ি বিক্রি নিষিদ্ধ করা বিষয় একটি বিল সংসদে পাস হয়েছে। নিষেধাজ্ঞাটি কেবল যারা সেখানকার বাসিন্দা নয় তাদের ওপর কার্যকর হবে। তবে বিশেষ মুক্ত-বাণিজ্য চুক্তির কারণে অস্ট্রেলিয়া ও সিঙ্গাপুরের নাগরিকদের ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞাটি কার্যকর হবে না। 

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে নিউজিল্যান্ডে বাড়ির দাম ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। অনেকের পক্ষে চড়া দামের কারণে বাড়ি কেনা সম্ভব হচ্ছে না। কম সুদে ঋণ, সীমিত বাড়ি ও অভিবাসন বৃদ্ধির কারণে এমনটি হয়েছে।  নির্মাণাধীন বাড়ির ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞাটি পুরোপুরি কার্যকর হবে না। বিদেশীরা নির্মাণাধীন বাড়িতে সীমিত আকারে বিনিয়োগ করতে পারবেন। 

কন্যাসন্তানের মা হলেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী
এএফপি, ২২ জুন ২০১৮

কন্যা সন্তানের মা হয়েছেন নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন। গতকাল বৃহস্পতিবার সরকারি অকল্যান্ড হাসপাতালে এক ফুটফুটে কন্যা সন্তানের জন্ম দিয়েছেন তিনি। মা ও সন্তান দুইজনেই সুস্থ আছেন বলে জানানো হয়েছে। গত বছর সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠিত নিউজিল্যান্ডের জাতীয় নির্বাচনে জাসিন্ডার দল লেবার পার্টি দ্বিতীয় অবস্থানে ছিল। ওই নির্বাচনে কোনো দলই এককভাবে সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিশ্চিত করতে পারেনি। পরে নিউজিল্যান্ড ফার্স্ট পার্টির নেতা উইনস্টন পিটারের সমর্থন নিয়ে সরকার গঠন করেন জাসিন্ডা আরডার্ন। 

বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় ৬টায় স্বামী কার্ক গেফোর্ড ও নবজাতক সন্তানকে নিয়ে হাস্যোজ্জ্বল একটি সেলফি ইন্সটাগ্রামে পোস্ট করেন ৩৭ বছর বয়সী জেসিন্ডা। সেখানে তিনি লেখেন, ‘আমাদের জগতে পিচ্চিটাকে স্বাগতম।’ তিনি অকল্যান্ড সিটি হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সদের ধন্যবাদ জানান।

১৮৫৬ সালের পর দেশটির ইতিহাসে জাসিন্ডাই সবচেয়ে কনিষ্ঠ প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার মাত্র ছয় দিন আগে তিনি তার গর্ভধারণের কথা জানতে পারেন। সেসময় বিবিসিতে দেয়া এক সাাৎকারে তার উচ্ছ্বাসের কথা জানান।
জেসিন্ডা এক বিবৃতিতে বলেন, ‘আমি নিশ্চিত নতুন মা-বাবা হওয়ার পর অন্যদের যেমন অনুভূতি হয় তেমন অভিজ্ঞতার মধ্য দিয়ে আমরাও যাব।


আরো সংবাদ