২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

স্কোরই আশা জাগাচ্ছে শাকিলের

স্কোরই আশা জাগাচ্ছে শাকিলের - সংগৃহীত

আবদুল্লাহ হেল বাকীর মতোই এবারের গোল্ডকোস্ট কমনওয়েলথ গেমসে রৌপ্য জয়ী তিনি। বাকী এককভাবে এখনো এস এ গেমসে ¯¦র্ণ জিততে পারেননি। তার ২০১০ সালের স্বর্ণ ১০ মিটার এয়ার রাইফেল দলগততে। এখানেই কিছুটা এগিয়ে শাকিল আহমেদ। ২০১৬-এর এসএ গেমসে ৫০ মিটার পিস্তল এককে স্বর্ণ আছে তার। বাকীর মতো এখনো তারকা খ্যাতি জোটেনি শাকিলের।

বাকীর যে দু’টি কমনওয়েলথ গেমস রৌপ্য। তবে প্রতিটি প্রথম আন্তর্জাতিক আসরেই পদক আছে শাকিলের। সাথে এই মুহূর্তে স্কোরও বেশ ভালো। এই দু’টি বিষয়ই এবারের জাকার্তা-পালেমবাং এশিয়ান গেমসে পদকের আশা জাগাচ্ছে শাকিলের মাঝে। যদিও ভালো করেই তিনি অবগত, এসএ গেমস বা কমনওয়েলথ গেমসের চেয়ে কঠিনতম আসর এশিয়ান গেমস। চীন, জাপান ও দÿিণ কোরিয়ান শুটারা এই গেমসের ফেবারিট এবং শক্ত প্রতিপক্ষ।

অবশ্য নিজের প্রিয় ইভেন্ট ৫০ মিটার পিস্তলে খেলা হচ্ছে না শাকিলের। লড়তে হবে ১০ মিটার এয়ার পি¯Íলে। ৫০ মিটার পি¯Íলে ইভেন্টেই তার স্বর্ণ ২০১৬-এর শিলং-গৌহাটিতে এবং রৌপ্য এবার এপ্রিলে গোল্ডকোস্টে। ২০১৬ এসএ গেমসে তিনি ১০ মিটার এয়ার পি¯Íলের ইভেন্টের দিন তিনি বেশ অসুস্থ হয়ে পড়েন। ভালো করতে পারেননি। অস্ট্রেলিয়ার গোল্ডকোস্টে ৫৬৩ স্কোর করে ফাইনাল রাউন্ডে উঠেও শেষ পর্যন্ত হন ষষ্ঠ। কিন্তু ৫০ মিটারে পদক জেতেন দুই আসরেই।


প্রিয় ইভেন্ট না হলেও এখন ১০ মিটারে বেশ ভালো করছেন শাকিল। ২০১৫ সালে এই ইভেন্টেই এশিয়ান এয়ারগান চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জ জয় তার। আর্মির এই শুটার দুই দিন আগে ৬০০-এর মধ্যে ৫৮৬ স্কোর করেন। গত পরশু মেরেছেন ৫৮৪। তার মতে, ‘এই স্কোরে ওর্য়াল্ড চ্যাম্পিয়নশিপেই ফাইনাল রাউন্ডে ওঠা যায়। সুতরাং এশিয়াডে এই পারফরম্যান্স থাকলে পদক হয়ে যেতে পারে।’ খুলনার এই ছেলের নতুন প্রেরণা কোরিয়ান কোচ ইয়াং কিম। তার অধীনেই গত এস এ গেমসে স্বর্ণ জয়। মাঝে ছিলেন ইতালির মার্কো সাপিচ। কমনওয়েলথ গেমসের পর শুটিং ফেডারেশন আর তাকে চাকরিতে রাখেনি। কোরিয়ান কোচ কাজে এবং কঠোর পরিশ্রমে বিশ্বাসী। পারব এটা বললে হবে না। তাকে করে দেখাতে হয়। যা আরো উদ্বুদ্ধ করছে শাকিলকে।

এই প্রথমবার এশিয়ান গেমসে অংশ নিচ্ছেন শাকিল। ২০১৩তে সেনাবাহিনীতে ভর্তি হয়ে ২০১৫তে দিলিøতে প্রথমবারের মতো অংশ নিতে যান এশিয়ান এয়ারগান চ্যাম্পিয়নশিপে। তাতে ব্রোঞ্জ জয় তার। ২০১৬-এর এসএ গেমসও ছিল তার প্রথম। তাতে অর্জন একটি স্বর্ণ ও দলগততে একটি ব্রোঞ্জ। গোল্ডকোস্ট কমনওয়েল গেমস ও তার জন্য ছিল প্রথম। সাফল্য সেখানেও। রৌপ্য জয়। ফলে এবার এশিয়ান গেমসে অভিষেকটাকেও স্মরণীয় করে রাখতে চান তিনি। আরো জানান, ‘আগে আমাকে একসাথে ১০ মিটার এবং ৫০ মিটার পি¯Íলে লড়তে হতো। এশিয়াডে শুধু ১০ মিটারে লড়বো। তাই সম্পূর্ণ মনোযোগটা এখন এক ইভেন্টেই। ’১০ মিটার এয়ার পি¯Íল এককের পাশাপাশি মিক্সড ইভেন্টেও অংশ নেবেন তিনি। ‘এটা অবশ্য আমার জন্য নতুন’, জানালেন শাকিল।

এই মুহূর্তে বেশ ভালো স্কোর করছেন ১০ মিটারে। এই নেপথ্য হিসেবে নতুন পাওয়া অস্ত্র, নিজ কর্মস্থল সেনাবাহিনী এবং শুটিং ফেডারেশনের সার্বাত্মক সহযোগিতাকে সামনে আনলেন তিনি। সৈনিক হিসেবে যোগ দিলেও কমনওয়েলথ গেমসে রৌপ্য জয়ের পর এখন তার পদোন্নতি হয়ে নন কমিশন্ড অফিসার। এসবও তাকে উৎসাহ জোগাচ্ছে আরো ভালো করতে। তিন বছর ধরে জাতীয় দলে। এই সময়ে তার অর্জন চারটি আন্তর্জাতিক পদক। এবার কি এশিয়াড থেকে পদক আনতে পাবেন? শুটিংয়ে অবশ্য এখনো এশিয়ান গেমসে বাংলাদেশ পদকের দেখা পায়নি।


আরো সংবাদ