২৪ জুন ২০১৮

আগাম জামিন পেলেন গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী

গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী - সংগৃহীত

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি ও বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের পৃথক দুই মামলায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে তিন সপ্তাহের আগাম জামিন মঞ্জুর করেছেন হাইকোর্ট।বিচারপতি মুহাম্মদ আবদুল হাফিজ ও বিচারপতি মোঃ সোহরাওয়ার্দীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ গতকাল এ আদেশ দেন।

আদালতে জামিন আবেদনকারী গিয়াসউদ্দিন কাদের চৌধুরীর পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন ব্যারিস্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল। অন্যদিকে রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারে ড. মোঃ বশির উল্লাহ।

ব্যারিষ্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল পরে সাংবাদিকদের বলেন, ফটিকছড়িতে বিস্ফোরক আইনের এক মামলা ও প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি দেওয়ার অভিযোগে করা এক মামলায় গত বৃহস্পতিবার গিয়াস উদ্দিন উদ্দন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত মুখ্য বিচারিক হাকিম আ স ম শহীদুল্লাহ কায়সার। এ দুই মামলায় গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীকে তিন সপ্তাহের আগাম জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট। তিন সপ্তাহের পর তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রীকে হত্যার হুমকি ও উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়ার অভিযোগে গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা করেন ফটিকছড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরী। পরে অভিযোগ আমলে নিয়ে গত বৃহস্পতিবার গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন চট্টগ্রামের আদালত।

মামলায় বলা হয়, জিয়াউর রহমানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে গত মঙ্গলবার চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরী তার বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে বলেন, আপনার বাবার চেয়েও আপনার অবস্থা খারাপ হবে। এরপর গিয়াস উদ্দিন কাদের চৌধুরীর বিরুদ্ধে অন্তত ছয়টি মামলা হয়েছে বলে জানান ব্যারিষ্টার রুহুল কুদ্দুস কাজল।

একই অনুষ্ঠান থেকে থেকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের উপর হামলা ও বোমা বিস্ফোরণের অভিযোগ এনে ঘটনার পরদিন বুধবার বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে ফটিকছড়ি থানায় মামলা করেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ জামাল উদ্দিন। গত বৃহস্পতিবার তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন চট্টগ্রামের আদালত।


আরো সংবাদ