২২ নভেম্বর ২০১৯

আদালতের এজলাসেই যেভাবে মৃত্যুবরণ করেন মুরসি

মিসরের সাবেক প্রেসিডেন্ট ড. মোহাম্মদ মুরসি - ফাইল ছবি

মিসরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত একমাত্র প্রেসিডেন্ট ড. মোহাম্মদ মুরসি সোমবার শুনানি চলাকালে মৃত্যুবরণ করেছেন। ৬৭ বছর বয়সী সাবেক এই প্রেসিডেন্ট দেশটির আদালতের এজলাসেই মৃত্যুবরণ করেন। মিসরের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতা ও গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নির্বাচিত প্রথম বৈধ প্রেসিডেন্ট ছিলেন তিনি।

এদিকে মুরসি কারাগারে অকালে মারা যেতে পারেন বলে আন্তর্জাতিক কয়েকটি সংস্থা আগে থেকেই সতর্ক করেছিল। কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল, সাবেক এই প্রেসিডেন্টকে কারাবন্দি রাখার ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক মানদণ্ড বজায় রাখতে ব্যর্থ হয়েছে দেশটির কর্তৃপক্ষ।

পাশাপাশি সাবেক প্রেসিডেন্ট ড. মোহাম্মদ মুরসির অকাল মৃত্যুর আশঙ্কা জানিয়ে তার প্রতি অবহেলার জন্য দেশটির ক্ষমতাসীন আবদুল ফাত্তাহ আল সিসিকেও দায়ী করেছিল যুক্তরাজ্যের বিশেষ স্বাধীন বন্দিত্ব পর্যালোচনা প্যানেল ‘ইনডিপেনডেন্ট ডিটেনশান রিভিউ প্যানেল’।

সোমবার আদালতে মুরসি মৃত্যুবরণ করলেও মৃত্যুর বিষয়টি বেশ অনেকটা সময় গোপন রাখে সিসি প্রশাসন। এমনকি মুরসির মৃত্যুর সঠিক সময়ও প্রকাশ করা হয়নি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়, সোমবার আদালতের কার্যক্রম শেষ হওয়ার পর একপর্যায়ে ৬৭ বছর বয়সী সাবেক এই প্রেসিডেন্ট জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এর কিছুক্ষণ পরই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

অন্যদিকে বার্তা সংস্থা এপি জানিয়েছে, আদালতে রাষ্ট্রের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও নথি পাচারের অভিযোগে দায়েরকৃত মামলার শুনানি চলছিল। একপর্যায়ে সাবেক এই প্রেসিডেন্ট বিচারকের কাছে কথা বলার অনুমতি চাইলে তাকে কথা বলতে অনুমতি দেয়া হয়।

এ সময় ২০ মিনিট বক্তব্য রাখেন ড. মোহাম্মদ মুরসি। বক্তব্য দেয়ার মাঝেই বুকে ব্যথা অনুভব করেন মুরসি। একপর্যায়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন তিনি। এ সময় দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেয়া হলে সেখানেই শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন মিসরের গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রথম প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি।


আরো সংবাদ