১৮ আগস্ট ২০১৯

ইরানের পার্লামেন্টে মার্কিন বাহিনীকে সন্ত্রাসী ঘোষণা করে বিল পাস

ইরানের পার্লামেন্ট সদস্যরা মার্কিন বাহিনীকে সন্ত্রাসী ঘোষণা করে একটি বিল পাস করেন - ছবি : সংগৃহীত

ইরানের পার্লামেন্ট সদস্যরা মধ্যপ্রাচ্যে মার্কিন বাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দিতে একটি বিলের ওপর ভোট দিয়েছেন। ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে মার্কিন ঘোষণার কার্যকর হওয়ার একদিন পর গতকাল মঙ্গলবার ইরানের পার্লামেন্টে এ বিল পাস হয়।

এ সময় পার্লামেন্টে অনুষ্ঠিত এক বিতর্কে অনেক আইনপ্রণেতারা পুরো মার্কিন সেনা ও নিরাপত্তা বাহিনীকেই সন্ত্রাসী বলে ঘোষণার দাবি জানান।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের খবরে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার মার্কিন বাহিনীর সন্ত্রাসী কর্মতৎপরতার কঠোর জবাব দিতে সরকারকে কর্তৃত্ব দিতেই মূলত প্রতিরক্ষামন্ত্রী জেনারেল আমির হাতামি এ বিলটি সংসদে উপস্থাপন করেন। এর ফলে কোনো ধরনের ঝামেলা ছাড়াই মার্কিন সরকারের যেকোনো উদ্যোগকে থামিয়ে দিতে আইনগত, রাজনৈতিক ও কূটনৈতিক পদক্ষেপ নিতে পারবে ইরান সরকার। তবে ইরান পার্লামেন্টে পাস হওয়া এ আইন কিভাবে কার্যকর করা হবে, সে সম্পর্কে কোনো ধারণা দেয়া হয়নি।

২০৪ আইনপ্রণেতা বিলের পক্ষে ভোট দিয়েছেন। দুইজন ভোট দিয়েছেন বিপক্ষে, আর একজন ভোটদানে বিরত ছিলেন।

হাতামি আইনপ্রণেতাদের লক্ষ্য করে বলেন, ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা পুরোপুরি অকার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। সেই সাথে মধ্যপ্রাচ্যে ইরানের প্রভাবকে বিনষ্ট করে দেয়ার জন্যই যুক্তরাষ্ট্র ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা করেছে।

ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনীর সদস্যরা বর্তমানে ইরাক, সিরিয়া, লেবানন ও ইয়েমেনে সক্রিয় রয়েছে।

 

আরো পড়ুন : বিপ্লবী বাহিনীকে যুক্তরাষ্ট্রের সন্ত্রাসী তালিকাভুক্তির নিন্দায় ইরান
পার্স টুডে, ১০ এপ্রিল ২০১৯, ০০:০০

রেভলুশনারি গার্ড (আইআরজিসি) বাহিনীকে যুক্তরাষ্ট্রের বিদেশী সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করার কঠোর নিন্দা জানিয়েছে ইরান। তারা যুক্তরাষ্ট্রকে ‘সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক’ দেশ হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে এবং একই সাথে মধ্যপ্রাচ্যে মোতায়েন মার্কিন বাহিনী সেন্টকমকে (ইউনাইটেড স্টেটস সেন্ট্রাল কমান্ড) সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করেছে।

সোমবার ইরানের ‘এলিট ফোর্স’ হিসেবে পরিচিত রেভ্যুলেশনারি গার্ডকে (আইআরজিসি) বিদেশী সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে তালিকাভুক্ত করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যুক্তরাষ্ট্রের ওই পদক্ষেপের পাল্টা জবাব দিতেই এমন পদক্ষেপ নিলো ইরান। মার্কিন সরকারের এ সিদ্ধান্তের নিন্দা জানানোর পাশাপাশি আইআরজিসির বিরুদ্ধে আনা অভিযোগকে ভিত্তিহীন বলে প্রত্যাখ্যান করেছে ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ (এসএনএসসি)। ইরানের সর্বোচ্চ জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ জানিয়েছে, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসিকে সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে ঘোষণা দেয়ায় এর পাল্টা পদক্ষেপ হিসেবে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

এক বিবৃতিতে এসএনএসসির পক্ষ থেকে ওয়াশিংটনের এমন পদক্ষেপকে অবৈধ এবং নির্বোধ কর্মকাণ্ড বলে উল্লেখ করা হয়েছে। একই সাথে যুক্তরাষ্ট্রকে ‘সন্ত্রাসবাদের পৃষ্ঠপোষক’ দেশ হিসেবেও উল্লেখ করা হয়েছে। এসএনএসসি এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র এবং এর মিত্র দেশগুলো সব সময় পশ্চিম এশিয়ায় চরমপন্থী ও সন্ত্রাসী সংগঠনগুলোকে সমর্থন দিয়ে যাচ্ছে। ইরানি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানিকে মার্কিন বাহিনী সেন্টকমকে সন্ত্রাসী সংগঠনের তালিকাভুক্ত করার আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফ।


আরো সংবাদ




bedava internet