১৩ নভেম্বর ২০১৮

নির্বাচন : যে পরিকল্পনা নিয়ে এগুচ্ছে আওযামী লীগ

নির্বাচনী মাঠে আওয়ামী লীগ - ছবি : সংগ্রহ

দরজায় কড়া নাড়ছে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন। আর নির্বাচনের শেষ প্রস্তুতি সেরে নিতে জোর তৎপরতা চলছে আওয়ামী লীগে। ইতোমধ্যে সারা দেশের পাড়া-মহল্লায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে পড়েছেন কেন্দ্রীয় নেতারা। সুযোগ পেলেই তৃণমূল সুসংগঠিত করার জন্য নিজ এলাকায় চলে যাচ্ছেন অনেকেই। আবার জেলায় জেলায় সফর করছেন দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করা হচ্ছে। নির্বাচন সামনে রেখে বসে নেই আওয়ামী লীগ প্রধান। নির্বাচনে জয়লাভ করতে তিনি নেতাকর্মীদের নানা দিকনির্দেশনা দিচ্ছেন। দেশের বিভিন্ন প্রান্তে নানা প্রকল্প উদ্বোধন, দলীয় জনসভায় অংশগ্রহণ এবং ভিডিও কনফারেন্সসহ বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী জনগণের কাছে ভোট চাচ্ছেন।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ শনিবার সকালে পটুয়াখালীর ১৬টি উন্নয়ন প্রকল্পের নামফলক উন্মোচন ছাড়াও পাঁচটি উন্নয়ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন। পায়রা ১৩২০ মেঘাওয়াট তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র এলাকায় একটি সুধী সমাবেশ করবেন। বিকেলে বরগুনার তালতলীতে একটি দলীয় সমাবেশে বক্তব্য দেবেন তিনি। এর আগে খুলনা, ফরিদপুর, বরিশাল, যশোরসহ বেশ কয়েকটি জেলা ও বিভাগীয় শহরে জনসভা করে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারণীপর্যায়ের একাধিক নেতা জানান, নির্বাচনের আগেই কেন্দ্রের সর্বশক্তি নিয়োগ করে তৃণমূলকে ঐক্যবদ্ধ করার মাধ্যমে নির্বাচনী মাঠ প্রস্তুত করাই দলটির অন্যতম লক্ষ্য।

ইতোমধ্যে লক্ষ্য বাস্তবায়নে কেন্দ্রের বিভিন্নপর্যায়ের নেতাদের সমন্বয়ে ৭৪টি সাংগঠনিক জেলায় ১৫টি টিম গঠন করা হয়েছে। গত ২৬ জানুয়ারি থেকে ওই টিমগুলো দেশব্যাপী সাংগঠনিক সফর শুরু করেছে। আগামী নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগ পর্যন্ত এই টিমগুলো সারা দেশে কাজ করবে। সাংগঠনিক সফর শুরু হওয়ার পর থেকে প্রতি সপ্তাহে সমন্বয় সভা হচ্ছে। ওই সভার মাধ্যমে জেলা, উপজেলা ও থানাগুলোতে সভা-সমাবেশের তারিখ নির্ধারণ করা হচ্ছে। নেতাকর্মীদের অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিরসনের পাশাপাশি সভা-সমাবেশগুলোতে বিগত দিনে বিএনপি জোটের আন্দোলন চলাকালে দেশব্যাপী নাশকতার খণ্ডচিত্র তুলে ধরা হচ্ছে। প্রতিটি আসন ঘিরে ইতোমধ্যে বেশ কিছু এলাকায় কেন্দ্রভিত্তিক কমিটি গঠন করা হয়েছে। 
সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, নির্বাচনী প্রস্তুতির পাশাপাশি আওয়ামী লীগের মনোনয়নপ্রত্যাশীরা গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন। ইতোমধ্যে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের সাভার, আশুলিয়া, টঙ্গী, যাত্রাবাড়ী, শ্যামপুর ও চকবাজারসহ রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে নির্বাচনী গণসংযোগ করেছেন। এর আগে আওয়ামী লীগের চার যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে রাজধানীর বিভিন্ন থানা ও ওয়ার্ডে নির্বাচনী গণসংযোগ করা হয়েছে। এভাবে প্রতিদিনই কোনো না কোনো এলাকায় নির্বাচনী গণসংযোগ করে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা মাঠ কাঁপাচ্ছেন। নেত্রকোনা-২ আসনের মনোনয়নপ্রত্যাশী আওয়ামী লীগের উপকমিটির সাবেক সহসম্পাদক মো: শামছুর রহমান লিটন ওরফে ভিপি লিটন ব্যাপকভাবে গণসংযোগ চালিয়ে যাচ্ছেন নিজ এলাকায়। ঢাকা-৬ আসনে চৌধুরী আশিকুর রহমান লাভলু গণসংযোগে ব্যস্ত সময় পার করছেন। এলাকার বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ও ধর্মীয় অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে ইতোমধ্যে এলাকার সবমহলে মনোনয়ন পাওয়ার আলোচনায় ঝড় তুলেছেন। নেত্রকোনা-৪ আসনে ব্যাপক গণসংযোগ চালাচ্ছেন নব্বই দশকের ছাত্রনেতা ও আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক উপকমিটির সদস্য শফি আহমেদ। ওই আসনে তিনি আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট দিয়ে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করার জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছেন। লিফলেট, ব্যানার ও ফেস্টুনসহ নানা গণসংযোগে অংশ নিচ্ছেন। 

জে এম এস গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক, বিশিষ্ট শিল্পপতি ও শিানুরাগী মাহমুদ আলী রাতুল নোয়াখালী-৬ আসনে দলীয় মনোনয়নপ্রত্যাশী হিসেবে এলাকায় গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। তার পক্ষে নেতাকর্মীরা প্রতিদিনই মাঠে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছেন। নির্বাচনী এলাকার শিা, স্বাস্থ্য, দারিদ্র্য বিমোচন, উন্নত যোগাযোগব্যবস্থা, বিদ্যুৎ, নদীভাঙন ইত্যাদি বিষয়ে ব্যক্তিগতভাবে এবং বিভিন্ন সামাজিক সাংস্কৃতিক ফোরামের মাধ্যমে অবদান রেখে আলোচনায় এসেছেন তিনি। সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরে নিয়মিত প্রচারণা চালাচ্ছেন তিনি।

চাঁদপুর-৩ (সদর ও হাইমচর) আসনের মনোনয়নপ্রত্যাশী মৎস্যজীবী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও জেলা মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি রেদওয়ান খান বোরহান ব্যাপকভাবে গণসংযোগ চালাচ্ছেন। তিনি প্রচার-প্রচারণা ও পথসভা এবং গণসংযোগ অব্যাহত রেখেছেন। তৃণমূলে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরে প্রচারণার মাধ্যমে তিনি ইতোমধ্যে মনোনয়নের আলোচনায় জায়গা করে নিয়েছেন। নেত্রকোনা-৫ আসনে মনোনয়ন পেতে কাজ করে যাচ্ছেন লন্ডন আওয়ামী যুবলীগের সহসভাপতি প্রকৌশলী তুহিন আহমদ খান। নেতাকর্মীদের নিয়ে সরকারের উন্নয়ন চিত্র তুলে ধরে ভোট চাইছেন নৌকায়। নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে পথসভা ও উঠান বৈঠক করছেন নিয়মিত।

এ বিষয়ে আওয়ামী লীগের অন্যতম মুখপাত্র ড. হাছান মাহমুদ নয়া দিগন্তকে বলেন, সংসদ নির্বাচনের জন্য আমরা সার্বিকভাবে প্রস্তুতি গ্রহণ করছি। নির্বাচন সংক্রান্ত সব কাজ পুরোদমে চলছে। প্রার্থী মনোনয়ন প্রক্রিয়াও দ্রুত শুরু হবে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশে যে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড হয়েছে তাতে মানুষ আবারো আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করবে- এটা আমরা আশা করি।


আরো সংবাদ

১০ বিশিষ্ট ব্যক্তিকে নির্বাচনে সম্পৃক্ত করতে চান ড. কামাল আস্থা রাখুন, হিন্দু সম্প্রদায়কে ফখরুল ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন আগের চেয়ে বেশি দমনমূলক : অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল আ’লীগের মনোনয়ন বোর্ডের সদস্য হলেন ফারুক খান ও আব্দুর রাজ্জাক সহকর্মীর আঘাতে প্লাস্টিক ফ্যাক্টরির কর্মচারী নিহত শিক্ষাক্ষেত্রে উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে হবে : শিক্ষামন্ত্রী সাংবাদিক শিমুল হত্যা মামলায় মেয়র মিরুর জামিন স্থগিত শিশুশ্রম নির্মূলের ল্যমাত্রা অর্জনে দেশ যথেষ্ট পিছিয়ে নির্বাচনী তফসিল পুনর্নির্ধারণ জাপা ইতিবাচকভাবেই দেখছে : জি এম কাদের ৩২ আসনে প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে খেলাফত আন্দোলন অভিভাবক ঐক্য ফোরাম চেয়ারম্যানের মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবি

সকল