১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ফিলিস্তিনি শরণার্থীদের অর্থ সহায়তা বন্ধের ঘোষণা যুক্তরাষ্ট্রের

উনারা শরনার্থীদের জন্য জরুরী শিক্ষা ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করে থাকে। - ছবি: রয়টার্স

জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে ফিলিস্তিনের শরণার্থীদের জন্য দেয়া সব ধরনের অর্থ সহায়তা বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

দ্য ইউনাইটেড ন্যাশনস রিলিফ অ্যান্ড ওয়ার্ক এজেন্সি (উনারা) নামের সংস্থাটির কার্যক্রমকে ‘অবিশ্বাস্যরকম ত্রুটিপূর্ণ’ আখ্যা দিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্র দফতর এক বিবৃতিতে এ সহায়তা বন্ধের কথা জানিয়েছে। বিবিসি, আলজাজিরা।

মার্কিন পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র হেদার নোয়ার্ট বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন সতর্কতার সঙ্গে এই ইস্যুটি পুনর্বিবেচনা করছে এবং উনারাতে কোনো ধরনের অবদান রাখতে পারছে না।’

মুখপাত্র আরো বলেন, ‘বড় ধরনের অসামঞ্জস্যপূর্ণ এই বোঝা আর যুক্তরাষ্ট্র বহন করতে চায় না।’

এদিকে ফিলিস্তিনের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাসের মুখপাত্র নাবিল আবু রুডিনা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের এই পদক্ষেপ তার দেশের মানুষের বিরুদ্ধে ‘আক্রমণ’।

প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র রয়টার্সকে বলেন, ‘মধ্যপ্রাচ্যের সংকট নিরসনে জাতিসংঘের কোনো ভূমিকা নেই। আর যুক্তরাষ্ট্রের তহবিল বাতিল হলো শাস্তি। এতে পরিস্থিতির কোনো পরিবর্তন আনবে না, এবং এটি সমাধানের অংশ নয়।’

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জেরুজালেমকে ইসরাইলের রাজধানী স্বীকৃতি দিয়ে সেখানে যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানান্তরের পর থেকেই ফিলিস্তিনের সঙ্গে দেশটির সম্পর্কের অবনতি হয়।

সংস্থাটি ফিলিস্তিন, লেবানন, সিরিয়া ও জর্ডানে কয়েক লাখ মানুষকে জরুরি সহায়তা, স্বাস্থ্যসেবা ও শিক্ষা দিয়ে আসছে। জাতিসংঘের এই সংস্থার ৩০ ভাগ ব্যয় বহন করত যুক্তরাষ্ট্র।


আরো সংবাদ