২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

রাশিয়া ও আমেরিকাতেও হামলা চালানোর ঘোষণা বাগদাদির

-

ফের বড় ধরণের হামলা করতে পারে ইসলামিক স্টেট তথা আইএস। ইরাক, সিরিয়া, রাশিয়া ও আমেরিকাতে এই হামলা হতে পারে বলে খবর। আর এই খবরেই নড়েচড়ে বসেছে গোটা বিশ্ব। কারণ আইএস উগ্রপন্থী গোষ্ঠীর শীর্ষ নেতা আবু বাকর অল–বাগদাদি বুধবার একটি অডিও টেপ প্রকাশ করেছে। যেখানে সরাসরি 'জিহাদ' ঘোষণা করে মুসলিমদের হামলা করতে আহ্বান করা হয়েছে। ঈদের মরশুমে পশ্চিম দুনিয়ায় হামলা নামিয়ে আনতে বলা হয়েছে ওই অডিও টেপে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে ইরাক ও সিরিয়ায় আইএস ঘাঁটি হারিয়েছে। তা ফের ফিরিয়ে আনতে হবে। স্বাভাবিকভাবেই এই অডিও টেপে কপালে ভাঁজ পড়েছে পশ্চিম দুনিয়াসহ– অন্য দেশগুলোতেও। যা প্রতিরোধে নতুন করে কী পদক্ষেপ করা যায় তা ভাবা শুরু হয়েছে।

কী বলা হয়েছে ওই অডিও টেপে?‌ আইএস গোষ্ঠীর শীর্ষ নেতা আবু বাকর অল–বাগদাদি কি হুমকি দিয়েছেন?‌ অডিও টেপে বলা হয়েছে, ‘‌যারা নিজেদের ধর্ম, ধৈর্য ও জেহাদ ভুলে গেছে তাদের শত্রুদের বিরুদ্ধে, যারা নিজেদের করা অঙ্গীকার রাখতে পারেনি, সেটা অত্যন্ত নিন্দনীয় বিষয়। কিন্তু যখন তারা এগুলিকে আঁকড়ে ধরবে তখন অবশ্যই পরাক্রম দেখাতে পারবে ও সাফল্য মিলবে। নির্দিষ্ট সময়ের পরও।’‌ এই বক্তব্য সামনে আসতেই বোঝা যাচ্ছে আবার তামাম বিশ্বকে হামলা, নাশকতা করে নড়িয়ে দিতে এভাবে মুসলিম যুবক–যুবতীদের আহ্বান করা হচ্ছে। যা সত্যিই চিন্তায় ফেলার বিষয়।

অন্যদিকে আমেরিকা ও রাশিয়াকে হুমকি দিয়ে বাগদাদির মন্তব্য, ‘‌আইএসকে নির্মূল করতে যারা পিছন থেকে সাহায্য করেছে, সেই দুটি দেশ আমেরিকা ও রাশিয়ার জন্য জিহাদিরা এবার আতঙ্ক তৈরি করছে।’‌ ফলে শুধু যুদ্ধবিধ্বস্ত সিরিয়া ও ইরাক নয়, হামলা নেমে আসবে আমেরিকা ও রাশিয়াতেও। যা সত্যিই চিন্তার বিষয় বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক কূটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।


সব নদীর পানিই বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে
দেশের সকল প্রধান নদ-নদীর পানি সমতল বিপদসীমার নীচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। পাশাপাশি, ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, গঙ্গা-পদ্মা এবং সুরমা-কুশিয়ারা নদীসমূহের পানি সমতল হ্রাস পাচ্ছে, যা আগামী ৪৮ ঘন্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।
বৃহস্পতিবার সকালে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে নদ-নদীর পরিস্থিতি ও পূর্বাভাসে এ কথা জানানো হয়।
এতে আরও বলা হয়, বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত পর্যবেক্ষণাধীন ৯৪টি পানি সমতল স্টেশনের মধ্যে ৬২টিতে পানি সমতল হ্রাস পেয়েছে, ১৯টিতে বৃদ্ধি পেয়েছে এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫টি। কোন স্টেশনেই পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে না।
আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা পর্যন্ত গত ২৪ ঘন্টায় সাতক্ষীরায় ১১১ মি.মি. এবং পঞ্চগড়ে ৯৬ দশমিক ৫ মি.মি. বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে।

 


আরো সংবাদ