২৪ জুন ২০১৮

ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক রক্ষাকারী আরব দেশগুলোকে হুঁশিয়ারি

ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক রক্ষাকারী আরব দেশগুলোকে হুঁশিয়ারি - সংগৃহীত

ফিলিস্তিনের ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের নেতারা বলেছেন, কোনো কোনো আরব দেশ ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার যে উদ্যোগ নিয়েছে তা সহ্য করা হবে না।

ইসরাইলি নেতাদের সঙ্গে আলোচনা করতে মরক্কোর একটি প্রতিনিধিদল ইসরাইলে পৌঁছার পর এ সতর্কবাণী উচ্চারণ করলেন ইসলামি জিহাদ আন্দোলনের নেতারা।

সংগঠনটির গণমাধ্যম বিষয়ক প্রধান দাউদ শাহাব সম্প্রতি এক টুইটার বার্তায় এ হুঁশিয়ারি দিয়ে আরো বলেছেন, মরক্কোর প্রতিনিধিদলটি ফিলিস্তিনি শহীদদের রক্তের অবমাননা ও ফিলিস্তিনি শিশু হত্যাকারীদের উৎসাহিত করেছে।

ইসরাইল সফরকারী প্রতিনিধিদলের প্রতি সমর্থন প্রত্যাহার করার জন্য মরক্কোর জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। সেইসাথে তিনি জেরুসালেমে বসবাসরত ফিলিস্তিনিদের কাছে আবেদন জানিয়েছেন, তারা যেন আল-আকসা মসজিদসহ অন্য পবিত্র স্থানে মরক্কোর ওই প্রতিনিধিদলকে প্রবেশ করতে না দেন।

সম্প্রতি সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন ও মরক্কোসহ কয়েকটি আরব দেশ অবৈধ দখলদার ইসরাইলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগ নিয়েছে। এ উদ্যোগের অংশ হিসেবেই মরক্কোর ওই প্রতিনিধিদল ইসরাইল সফর করছে।

 

বাঙ্কারে পালালো ইসরাইলিরা, প্রস্তুত ফিলিস্তিন ও ইরান
আরাবিয়া

ফিলিস্তিনিরা ও ইরানিরা মানসিকভাবে বেশ শক্তিশালী। দখলদার ইসরাইলের ব্যাপারে তারা বরাবরই প্রতিবাদী। আধুনিক অস্ত্রশস্ত্র ছাড়াও ঈমানী বলে বলিয়ান হয়ে তারা প্রতিরোধ গড়ে তুলে। শহীদী তামান্নার কারণে ফিলিস্তিনি নিরস্ত্র কিন্তু বিপ্লবী মুসলমানদেরও ইসরাইলবাসীর কাছে একেকটি টাইম বোমার মতো মনে হয়। তাইতো অত্যাধুনিক যুদ্ধাস্ত্র থাকার পরও ইসরাইলবাসী উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠায় ভুগে।

সম্প্রতি ইসরাইলি স্নাইপারের গুলিতে ফিলিস্তিনি নার্স নিহত হবার ঘটনায় ইসরাইল-ফিলিস্তিন পাল্টাপাল্টি হামলার ঘটনা ঘটেছে। গাজা উপত্যকায় ইসরাইল কর্তৃক ২টি মিসাইল নিক্ষেপের ঘটনার প্রতিবাদে ফিলিস্তিনিরা ইসরাইলে ২টি রকেট হামলা করে। কিন্তু রকেট হামলার খবর আগেই যেনে যায় ইসরাইল। একটি রকেট আকাশে ধ্বংস করতে পারলেও অপরটি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানে।

ইসরাইলি সেনারা রকেট হামলার খবর আগেই জানতে পারায় ওই এলাকা থেকে তারা স্থানীয় বাসিন্দাদের সরিয়ে নেয়। তাদেরকে বাড়ি থেকে স্থানান্তর করে সেনাবাহিনীর বাঙ্কারে লুকিয়ে ফেলা হয়। ইসরাইলি সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে রকেট হামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে এ বিষয়ে এখনো কোনো বক্তব্য দেয়নি ইসলামি প্রতিরোধ আন্দোলন হামাস।

ইসরাইলি টিভি চ্যানেল ১০ এর প্রতিবেদনে বলা হয়, গাজা উপত্যকার সীমান্তবর্তী ইসরাইলি এলাকায় সম্ভাব্য রকেট হামলায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। ফলে ইহুদি বসতিদের সেনা বাঙ্কারে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

অন্যদিকে ইরানের সাথে সই হওয়া ৬ জাতিগোষ্ঠীর পরমাণু চুক্তি থেকে যুক্তরাষ্ট্র বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর নতুন করে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে ইরান। তবে ইরান নতুন করে ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণের যে প্রস্তুতি নিচ্ছে তা পরমাণু সমঝোতার আলোকেই হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছে ফ্রান্সের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জ্যঁ-ইভস লা দ্রিয়াঁ।

নতুন সেন্ট্রিফিউজ তৈরির পদক্ষেপকে পরমাণু সমঝোতার লঙ্ঘন বলে ধরে নেয়া হবে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে লাঁ দ্রিয়া বলেন, এখনো তা হয়নি বরং ইরানিরা তাদের সর্বোচ্চ স্তরে গেছে।

২০১৫ সালে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা থেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বেরিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার পর ইরানের সর্বোচ্চ নেতা আয়াতুল্লাহ আলি খামেনি ইউরেনিয়াম সমৃদ্ধকরণ শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন। এরপর মঙ্গলবার তেহরান ঘোষণা করেছে যে, নাতাঞ্জ পরমাণু স্থাপনায় উন্নত সেন্ট্রিফিউজ বসানোর কাজ শুরু হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে ফরাসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী বুধবার বলেন, ইরান যে ঘোষণা দিয়েছে তা সম্পূর্ণভাবে পরমাণু সমঝোতার আওতায় রয়েছে। আমি মনে করি এটি সুন্দর অরাজনৈতিক পদক্ষেপ।


আরো সংবাদ