২২ আগস্ট ২০১৯

প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের ২ মামলা

সংখ্যালঘু
প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের ২ মামলা রুজু হয়েছে - ছবি: সংগৃহীত

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের মিথ্যা অভিযোগ করায় বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে দুটি মামলা করা হয়েছে।

আজ রোববার সকালে ঢাকার মহানগর হাকিম জিয়াউল হাসানের আদালতে ব্যারিস্টার সায়্যেদুল হক সুমন ও ঢাকার মহানগর হাকিম আবু সুফিয়ান মো: নোমানের আদালতে ঢাকা আইনজীবী সমিতির (বার) নির্বাহী সদস্য ইব্রাহিম খলিল বাদী হয়ে মামলাগুলো দায়ের করেন।

ব্যারিস্টার সুমন এ বিষয়ে সাংবাদিকদের নিশ্চিত করেছেন।

গত ১৭ জুলাই প্রিয়া বালা বিশ্বাস ওরফে প্রিয়া সাহা বিশ্বের ক্ষমতাধর রাষ্ট্রপ্রধান ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে বাংলাদেশের সংঘালঘু নির্যাতন নিয়ে বক্তব্য দেন। সে বক্তব্য গভীর ষড়যন্ত্রের অংশ বলে দাবি করেন বাদী।

আরজিতে বলা হয়, আসামি প্রিয়া সাহার এ বক্তব্যের মাধ্যমে দেশের মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে ধর্মীয় ভেদাভেদ তৈরি হয়। যাতে দেশকে অস্থিতিশীল ও বিদেশি রাষ্ট্রের হস্তক্ষেপ করার পাঁয়তারা করা হচ্ছে। তাই আসামির বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহের শামিল বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার ২৭ ব্যক্তির সঙ্গে বৈঠক করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সেখানে ১৬টি দেশের প্রতিনিধি অংশ নেন। বাংলাদেশ হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিষ্টান ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক প্রিয়া সাহাও প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সাথে কথা বলার সুযোগ পান।

প্রিয়া সাহা মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বলেন, ‘আমি বাংলাদেশ থেকে এসেছি। বাংলাদেশে ৩ কোটি ৭০ লাখ হিন্দু, বৌদ্ধ ও খ্রিষ্টান নিখোঁজ রয়েছেন। দয়া করে আমাদের লোকজনকে সহায়তা করুন। আমরা আমাদের দেশে থাকতে চাই।’

এরপর তিনি বলেন, ‘এখন সেখানে ১ কোটি ৮০ লাখ সংখ্যালঘু রয়েছে। আমরা আমাদের বাড়িঘর খুইয়েছি। তারা আমাদের বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে, তারা আমাদের ভূমি দখল করে নিয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো বিচার পাইনি।’

প্রিয়া সাহা আর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যকার কথোপকথন প্রকাশ পেলে সমালোচনার ঝড় ওঠে। বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকেও তীব্র নিন্দা জানানো হয়েছে।


আরো সংবাদ




mp3 indir bedava internet