১৬ জুন ২০১৯

মানহীন ৫২ পণ্য বাজার থেকে না সরানোয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল

-

হাইকোর্টের আদেশের পরও মানহীন ৫২টি পণ্য বাজারথেকে না সরানোয় নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। একইসাথে তাকে আগামী ১৬ জুন হাজির হয়ে এ বিষয়ে ব্যাখ্যা দিতে বলেছেন আদালত।

আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি শেখ হাসান আরিফের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ এ রুল জারি করেন।

আজ শুনানিতে আদালত বলেছেন, ৫২টি পণ্য নিয়ে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের ভূমিকা ছিলো আইওয়াশ। বড় বড় কোম্পানিকে ভয় পেলে ঘরে গিয়ে রান্নাবান্না করেন। নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ হাইকোর্টকে হাইকোর্ট দেখাচ্ছে।

ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা ছাড়া মানহীন ৫২টি পণ্যের একটিও বাজার থেকে সরানোর বিষয়ে কোনো প্রতিবেদন দাখিল করতে পারেনি নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ।

বিএসটিআই ঘোষিত ৫২টি মানহীন পণ্য বাজার থেকে তুলে ফেলতে গত ১২ মে আদেশ দিয়েছিলো হাইকোর্ট। এই আদেশের পর ৫২টি পণ্যের বিরুদ্ধে অভিযানে নামে প্রশাসন। এরই মধ্যে ৫২টি পণ্যের প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে খাদ্য আদালতে মামলা করেছে নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ।

মানহীন ৫২টি পণ্য হলো- সিটি ওয়েলের সরিষার তেল, গ্রীণ ব্লিচিংয়ের সরিষার তেল, শমনমের সরিষার তেল, বাংলাদেশ এডিবল ওয়েলের সরিষার তেল, কাশেম ফুডের চিপস, আরা ফুডের ড্রিংকিং ওয়াটার, আল সাফির ড্রিংকিং ওয়াটার, মিজান ড্রিংকিং ওয়াটার, মর্ণ ডিউয়ের ড্রিংকিং ওয়াটার, ডানকান ন্যাচারাল মিনারেল ওয়াটার, আরার ডিউ ড্রিংকিং ওয়াটার, দিঘী ড্রিংকিং ওয়াটার, প্রাণের লাচ্ছা সেমাই, ডুডলি নুডলস, শান্ত ফুডের সফট ড্রিংক পাউডার, জাহাঙ্গীর ফুড সফট ড্রিংক পাউডার, ড্যানিশের হলুদের গুড়া, প্রাণের হলুদ গুড়া, ফ্রেশের হলুদ গুড়া, এসিআইয়ের ধনিয়ার গুড়া, প্রাণের কারি পাউডার, ড্যানিশের কারী পাউডার, বনলতার ঘি, পিওর হাটহাজারী মরিচ গুড়া, মিষ্টিমেলা লাচ্ছা সেমাই, মধুবনের লাচ্ছা সেমাই, মিঠাইর লাচ্ছা সেমাই, ওয়েলফুডের লাচ্ছা সেমাই, এসিআইয়ের আয়োডিন যুক্ত লবণ, মোল্লা সল্টের আয়োডিন যুক্ত লবণ, কিংয়ের ময়দা, রুপসার দই, মক্কার চানাচুর, মেহেদীর বিস্কুট, বাঘাবাড়ীর স্পেশাল ঘি, নিশিতা ফুডসের সুজি, মঞ্জিলের হলুদ গুড়া, মধুমতির আয়োডিন যুক্ত লবণ, সান ফুডের হলুদ গুড়া, গ্রীন লেনের মধু, কিরনের লাচ্ছা সেমাই, ডলফিনের মরিচের গুড়া, ডলফিনের হলুদের গুড়া, সূর্যের মরিচের গুড়া, জেদ্দার লাচ্ছা সেমাই, অমৃতের লাচ্ছা সেমাই, দাদা সুপারের আয়োডিন যুক্ত লবণ, মদীনার আয়োডিন যুক্ত লবণ ও নুরের আয়োডিন যুক্ত লবণ।

আদালত নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের আইনজীবী ফরিদুল ইসলামকে উদ্দেশ করে বলেন, আদালতের আদেশের পরেও আপনারা মানহীন একটি পণ্যও রিমুভ করলেন না। আদালতের আদেশের প্রতি ন্যূনতম সম্মানও দেখালেন না। তাহলে আপনাদের মতো প্রতিষ্ঠানের থাকার কি দরকার? এসিআই ও প্রাণের মতো বড় বড় কোম্পনিকে ভয় পান। যদি সেটা হয় তাহলে চেয়ার ছেড়ে দিয়ে বাড়িতে গিয়ে রান্না করলেই হয়। নইলে কোনো ব্যাংকের কেরাণীর চাকরি নিলেই হয়। হাইকোর্ট নির্দেশের পর কিছুই না করে নানা অজুহাত দেখাচ্ছেন। এরপর আদালত নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যানকে তলব করেন।


আরো সংবাদ